চট্টগ্রাম সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

১৫ মে, ২০১৯ | ২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা , নাজিরহাট

ফটিকছড়িতে প্রতিবেশীর ছুরিতে ব্যবসায়ী খুন

ফটিকছড়ির বখতপুর ইউনিয়নে সীমানা সংক্রান্ত জেরে প্রতিবেশীর ছুরিকাঘাতে মুহাম্মদ মনছুর (৩৮) নামে এক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরো ৩ জন। নিহত মনছুর ১ নং ওয়ার্ডের মিয়া বাড়ির মৃত মুহাম্মদ মিয়ার ছেলে। আহতরা হলেন নিহতের চাচা জহুর ছাফা (৭৫), ভাই মুহাম্মদ আকবর (৩৫) ও ভাতিজা মুহাম্মদ রুমান (২৫)। গতকাল ১৪ মে ইফতারের পূর্বমুহূর্তে ওই ইউনিয়নের শান্তিরহাট বাজারে ঘটনাটি ঘটে। মনছুর চমেক হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি পেশায় একজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী ছিলেন। আহতরা চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তাদের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা যায়।
জানা গেছে, ওই এলাকার প্রতিবেশী বাবু ও ফিরোজদের সাথে নিহত ব্যক্তির পরিবারের দীর্ঘদিন ধরে সীমানা সংক্রান্ত ঝামেলা ছিল। তারই জের ধরে বাবু ও ফিরোজের সাথে শান্তিরহাট বাজারের পশ্চিম মাথায় তাঁদের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ঘটনাটি সংঘাতে রূপ নেয়। এতে প্রতিপক্ষের ছুরির আঘাতে গুরুতর আহত মনছুর মাটিতে লুটে পড়েন। অন্যান্যরাও আহত হন। স্থানীয়রা মনছুরকে উদ্ধার করে নাজিরহাটস্থ ফটিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরতরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চমেক হাসপাতালে রেফার করেন। ওখানেই রাতে মনছুর মারা যান। তিনি দুই কন্যার জনক।
নিহতের ভাই মুহাম্মদ লোকমান জানান, ‘আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। খুনি বাবু-ফিরোজদের সাথে ঝামেলা ছিল আমার চাচা জহুর ছাফার সাথে। কিন্তু তারা ওই ঘটনাটি আমার ভাইয়ের উপর চাপিয়ে নির্মমভাবে জনসমক্ষে হত্যা করে।
স্থানীয় চেয়ারম্যান এম সোলাইমান বি.কম জানান, সীমানা সংক্রান্ত বিষয়ে ঘটনাটি ঘটে। আসল খুনি শনাক্ত হয়েছে। আমি দ্রুত তাদের বিচার দাবি করছি।
জানতে চাইলে ফটিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ বাবুল আখতার জানান, ঘটনা শোনার পরপরই আমরা ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। সেখান থেকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই জনকে থানায় নিয়ে আসি। এখনো কোন মামলা হয়নি বলে জানান ওসি।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট