চট্টগ্রাম বুধবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১৫ মে, ২০১৯ | ২:০৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা , চন্দনাইশ

আদালতে আসামির স্বীকারোক্তি চন্দনাইশে

ছিনতাইকৃত নগদ টাকা, মোবাইল সেটসহ আটক ১

চন্দনাইশ থানা পুলিশ গাছবাড়ীয়া কলেজ গেইট এলাকা থেকে ছিনতাই মামলার আলামতসহ ১ জনকে আটক করে। আটককৃত ব্যক্তি গতকাল মঙ্গলবার (১৪ মে) জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। জানা যায়, গত ৯ মে সকালে পটিয়ার ব্যবসায়ী বোয়ালখালী উপজেলার আমুচিয়া গ্রামের মো. মোতাহের হোসেনের ছেলে মো. ফজরুল ইসলাম (৩৪) তার ব্যবসার চালানের টাকা ২ জনকে ৩৫ হাজার টাকা প্রদান করেন। পরে বিকেলে তারই বন্ধু জানে আলমের বড় ভাইকে অসুস্থ অবস্থায় পক্কীমার্কা এলাকায় দেখতে যান। দেখে ফেরার পথে গাছবাড়ীয়া পেট্রোল পাম্প এলাকায় ৩ জন ছিনতাইকারী তাকে জোরপূর্বক সিএনজি অটোরিক্সাতে (চট্টগ্রাম-থ-১১-১২২৯) তুলে নিয়ে ছৈয়দাবাদ পাহাড়ি এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে দেড় ঘণ্টা আটক রেখে তার নিকট থাকা ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা ও ব্যবহারের স্যামসাং মোবাইল সেট (মূল্য ২২ হাজার) ছিনিয়ে নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ গত ১৩ মে বিকালে কলেজ গেইট এলাকা থেকে ছিনতাইকারীদের সদস্য পূর্ব সাতবাড়িয়া বাদশা পাড়ার আবদুর রশিদের ছেলে মো. রুবেল (২৭) কে আটক করে। গতকাল মঙ্গলবার (১৪ মে) রুবেল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেলাল উদ্দীনের আদালতে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন বলে জানিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. খাজু মিয়া। ভিকটিম ফজরুল ইসলাম বাদি হয়ে গ্রেপ্তারকৃত মো. রুবেল, উত্তর হাশিপুরের আজম খানের ছেলে মো. এমরান হোসেন (২৮), মৃত শাহ আলমের ছেলে মো. হাসান (১৯), আবদুস সালামের ছেলে মো. মিন্টু (২০) কে আসামি করে গত ১৩ মে রাতে মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে পুলিশ রুবেলকে আটক করে এবং তার নিকট থেকে ছিনতাইয়ের ২৫ হাজার টাকা, মোবাইল সেট উদ্ধার করে। একই সাথে রুবেল ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের নাম উল্লেখ করে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জুডিশিয়ার ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় বলে জানিয়েছেন এসআই মো. খাজু মিয়া। সে সাথে অন্যান্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

বিজ্ঞাপন

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 277 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট