চট্টগ্রাম বুধবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২০

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৩:০২ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

দক্ষিণ জেলায় কমিটি বিলুপ্ত ছাত্রদলের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ১২

দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১২ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল আনুমানিক ৩টায় নগরীর দোস্ত বিল্ডিংস্থ দলীয় কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। ছাত্রদলের দক্ষিণ জেলা শাখার আওতাধীন সকল উপজেলা, পৌরসভা ও সাংগঠনিক কলেজসমূহের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। গত সোমবার দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো. শহীদুল আলম শহীদ ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহসীন সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এসব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছিলেন। কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক তারা এ ঘোষণা দেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেন।

ছাত্রদলের কয়েকজন নেতাকর্মী অভিযোগ করে বলেন, কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা শুনে ছাত্রদলের দক্ষিণ জেলা শাখার আওতাধীন সকল উপজেলা, পৌরসভা ও সাংগঠনিক কলেজসমূহের নেতৃবৃন্দ গতকাল সকাল ১০টায় নগরীর দোস্ত বিল্ডিংস্থ দলীয় কার্যালয়ে অবস্থান নেয়। দুপুরের পর বিকেল আনুমানিক ৩টায় দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো. শহীদুল আলম শহীদ ও সাধারণ সম্পাদক

মোহাম্মদ মহসীন এর নেতৃত্বে ছাত্রদলের কিছু নেতাকর্মী সেখানে তাদের সাথে হাতাহাতি ও লাঠি নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হন। তবে আহতদের কারো অবস্থা গুরুতর নয় বলে জানা গেছে। এদিকে ঘটনা সম্পর্কে আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হায়দার চৌধুরী দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, গত ৯ ডিসেম্বর কোন ধরনের সম্মেলন, মতবিনিময়, কর্মীসভা ও পূর্ব ঘোষণা ছাড়া কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের নির্দেশনাকে অমান্য করে দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দক্ষিণ জেলার আওতাধীন সকল উপজেলা-পৌরসভা ও কলেজ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে। এটা সম্পূর্ণ দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থী। এ ঘটনায় বিলুপ্তকৃত কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় বিলুপ্তকৃত কমিটির উপজেলা, পৌরসভা ও কলেজ শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ দলীয় কার্যালয়ে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি পালন করলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে দক্ষিণ জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে আমাদের উপর ক্রিকেটের স্ট্যাম্প ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। এতে আমিসহ অন্তত ১২ জন আহত হই। আহতদের মধ্যে রয়েছেন আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি জিয়াউল কাদের জিয়া, চন্দনাইশ উপজেলা সভাপতি তরিকুল ইসলাম টুটুল, সাতকানিয়া উপজেলা সভাপতি মো. নাজিম উদ্দিন, বোয়ালখালী উপজেলার আহ্বায়ক মহসিন খোকন, বাঁশখালী উপজেলা সভাপতি আবদুল আলীম।

ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে দক্ষিণ জেলা সভাপতি শহীদুল আলম শহীদ বলেন, ‘মূলত দলের মধ্যে শৃঙ্খলা আনতে কমিটি বিলুপ্ত করেছি। কারণ দক্ষিণ জেলার উপজেলা, পৌরসভাসমূহে ৩/৪টি করে ছাত্রদলের কমিটি রয়েছে। কিন্তু কোন কমিটির নেতৃবৃন্দকে ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের সময় দেখা যায়নি। এমনকি তাদের দলীয় কর্মসূচিতে দেখা মেলে না। তাই বাধ্য হয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের উপর হামলার প্রসঙ্গে শহীদুল আলম শহীদ বলেন, ‘তাদের উপর আমরা কোন হামলা চালাইনি। তারাই আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে।’
এদিকে এ ঘটনার পর ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ দক্ষিণ জেলা শাখার আওতাধীন সকল উপজেলা, পৌরসভা ও সাংগঠনিক কলেজসমূহের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা স্থগিত করেছে।

The Post Viewed By: 82 People

সম্পর্কিত পোস্ট