চট্টগ্রাম সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৪:৫৫ পূর্বাহ্ন

জাহেদুল আলম হ রাউজান

চুয়েটজুড়ে প্রাণের উচ্ছ্বাস কি খবর বন্ধু?

নতুন পুরনোদের মেলবন্ধন, প্রাণের উচ্ছ্বাসে শেষ হলো চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)’র ৪র্থ সমাবর্তন। এ সমার্বতনকে ঘিরে যেন প্রাণের মেলা বসেছিল ক্যাম্পাসে। গ্রাজুয়েশন শেষ করে দেশের বিভিন্নস্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ছাত্র-ছাত্রীরা আবারো একে অপরের সঙ্গে কাছাকাছি হওয়ার সুযোগ পান গতকাল (বৃহস্পতিবার) সমাবর্তন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। পুরনো বন্ধু-সহপাঠীদের দেখা পেয়ে সবাই মেতে উঠেন সেলফিতে। কেউ আবার ছবি তোলেন শিক্ষাজীবনের শেষ সুখস্মৃতি ধরে রাখতে। কি খবর বন্ধু? কেমন আছিস, অনেক দিন পর দেখা, এমন নানা শব্দ যোগ করে একেকজন কুশল বিনিময় করেন। মেতে উঠেন কোলাকুলিতে। চুয়েটের সেই পরিচিত গোল চত্বরে, সমাবর্তন উপলক্ষে তৈরী করা ভিন্ন ভিন্ন ফটোফ্রেমে, নান্দনিক স্থান ও প্রাকৃতিক পরিবেশে ছবি তোলে মন জুড়িয়েছেন গ্রাজুয়েশনপ্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীরা। জোটবদ্ধ কেউ কেউ নিজেদের গ্রাজুয়েশনের বিশেষ টুপি উড়িয়ে উচ্ছ্বাস করেছেন মনভরে। ২০১১ ব্যাচের পুরকৌশল বিভাগের গ্রাজুয়েটপ্রাপ্ত শোভন সরকারের বাড়ি নারায়নগঞ্জে। তিনি সমাবর্তন উপলক্ষে এসেছেন বুধবার চট্টগ্রাম শহরে। বৃহস্পতিবার সকাল সকাল ছুটে আসেন প্রাণের বিদ্যাপীঠে। তিনি বলেন, ৪ বছরের শিক্ষাজীবন শেষে ভালো কিছু আশা করেছি। সেটি আজ পূরণ হলো সমাবর্তনের মাধ্যমে। কম্পিউটার সায়েন্স থেকে গ্রাজুয়েশন করা তানজিনা ফেরদৌস নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘মীরসরাই থেকে বুধবার চট্টগ্রাম শহরে চলে আসি। বৃহস্পতিবার সকালে এসে সমাবর্তনে এসে যোগ দিই। তিনি বলেন, ‘জীবনের বহুল প্রতীক্ষিত ছিল এই দিনটি।, আজকে সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। জুনিয়র, সিনিয়রা আজকে সবাই মিলেমিশে আনন্দ করেছি।

কম্পিউটার সায়েন্সে পড়া রাঙ্গুনিয়ার সামান্তা বড়–য়া চট্টগ্রাম শহরের বাসায় থাকেন। তিনি বলেন, ‘জানুয়ারিতে মাস্টার্স পড়ার জন্য কানাডা যাচ্ছি, এর আগে এই সমাবর্তনে থাকতে পারা বড় পাওনা। আজকে মা, বাবা, শিক্ষক সবার কষ্ট সার্থক হয়েছে। আমি বিদেশে গিয়েও পড়ালেখা করে চুয়েটের মান বজায় রাখতে দোয়া চাই। রসায়ন বিভাগ থেকে এমফিল করা চকরিয়ার ডুলহাজারা থেকে আসা জয়নাল আবেদীন ও কম্পিউটার সায়েন্সের ছাত্র, ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক লিংকন চৌধুরী বলেন, প্রত্যক শিক্ষার্থীর জন্য এটি একটি স্মরণীয় দিন। এ দিনের জন্য সবাই অপেক্ষায় থাকেন। নতুন পুরনোরা মিলে এ দিনকে অন্যরকম করে রাখলাম। এ ক্যাম্পাস আমাদের মনের মণিকোঠায় বিঁধে থাকবে।

The Post Viewed By: 64 People

সম্পর্কিত পোস্ট