চট্টগ্রাম রবিবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২০

সর্বশেষ:

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৫:১৪ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ধুলোবালিতে একাকার কলেজ রোড

ওয়ার্ড ১৬ চকবাজার

চকবাজার কেয়ারী শপিংমলের সামনে থেকে জামালখান পর্যন্ত যাতায়াতের সড়কটির ধুলোবালিতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে শিক্ষার্থী, এলাকাবাসী ও পথচারীরা।

কলেজ রোডের এ সড়কটি দিয়ে দৈনিক যাতায়াত করে কয়েক লাখ মানুষ। এই সড়কের পাশেই অবস্থিত চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ ও হাজী মোহাম্মদ মহসিন কলেজ। আরো আছে দুইটি সরকারি ও একটি বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়সহ কয়েকটি কেজি স্কুল। এই পাঁচটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ালেখা করে প্রায় ১০ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী। আর এ শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন এই পথ দিয়ে যাতায়াত করে। শুধু কলেজ বিদ্যালয় পড়–য়া শিক্ষার্থীই নয়, আছে প্লে থেকে পঞ্চম পড়–য়া শিশু শিক্ষার্থী। তারাও এমন বায়ু দূষণের কারণে অতিষ্ঠ। দীর্ঘদিন ধরেই চলছে এমন অবস্থা। এতে শিশুসহ অনেকেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছে। পাশাপাশি বিভিন্ন চাকুরিজীবীরাও ভুগছেন এ সমস্যায়। চট্টগ্রাম কলেজ ও মহসিন কলেজের শিক্ষার্থীরা বলেন, শীত আসতে না আসতেই এ রাস্তাটি ধূলার সাগরে পরিণত হয়েছে। এপথ দিয়ে যেতে খুব খারাপ লাগে। কারণ ঘর থেকে গোসল করে বের হই, আবার গিয়ে গোসল করি। অনেকেই জানান, এ রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় শ্বাসকষ্ট অনুভব করি।

মহসিন কলেজের ফারজানা আফরোজ নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, এপথ দিয়ে যাতায়াত করার কারণে আমার চুলের অবস্থা খুব খারাপ। চুল পড়ে যাচ্ছে। নিঃশ্বাসের সাথে ধূলাবালি ঢুকে এলার্জিজনিত সমস্যা হয়ে গেছে। আরমান হোসেন নামের এক পথচারী বলেন, আমি প্রতিদিন এপথ দিয়ে যাতায়াত করি। আমার অফিস আগ্রাবাদ। রাস্তায় এমন ধূলাবালির কারণে আমি সব সময়ই অসুস্থ বোধ করি। প্রতিদিন দু’বার যাতায়াত করতে হয়। শীত আসার সাথে সাথে চকবাজার থেকে আগ্রাবাদ যেতে প্রায় জায়গায়ই বাতাসের সাথে এমন ধূলাবালি উড়তে থাকে। তবে এখানে তুলোনামূলক বেশি।

আসমা আক্তার নামে এ গৃহিনী তার পাঁচ বছরের ছেলেকে নিয়ে স্কুলে যাওয়ার পথে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বাচ্চাকে নিয়ে আমি এ পথ দিয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াত করি। রাস্তার এমন করুণ অবস্থার কারণে আমার ছেলে প্রায়ই অসুস্থ থাকে। রাত হওয়ার সাথে সাথে নাক দিয়ে নিঃশ্বাস ফেলতে ও নিতে পারে না। রাস্তার বায়ু দূষণের কারণেই এমনটি হচ্ছে। কিছুদিন আগে টিভির খবরে দেখেছি ঢাকা সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে রাস্তায় পানির ব্যবস্থা করছে বায়ু দূষণের কারণে। কিন্তু বায়ু দূষণ কি শুধু ঢাকায়ই হয়, চট্টগ্রামে হয় না? নাকি শুধু ঢাকায় মানুষ থাকে, চট্টগ্রামেরগুলো মানুষ নয়। তাহলে শুধু ঢাকার মানুষের জন্য এমন ব্যবস্থা, চট্টগ্রামের জন্য নয় কেন? তাহলে কি ধরে নেব চট্টগ্রামের জন্য ভাবার কেউ নেই?

The Post Viewed By: 222 People

সম্পর্কিত পোস্ট