চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২২ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:০৩ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ম্যাক্স হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর অভিযোগ

নগরীর বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে আবারো ভুল চিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। খিঁচুনি ও জ্বর নিয়ে ভর্তি হওয়া এক শিশুর মৃত্যুর পর এই অভিযোগ উঠেছে। পরিবারের অভিযোগ, মৃত্যুর ঘণ্টাখানেক আগেও শিশুটি খেলা করছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে একটি এন্টিবায়োটিক ইনজেকশন শরীরে পুশ করার করা

শিশুটি ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। নিহত শিশুর নাম জারিন সারওয়ার প্রিয়। শিশুটির পরিবার জানায়, খিচুনি ও জ¦রে আক্রান্ত হয়ে গত ১৭ নভেম্বর ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি হয় প্রিয়। সে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পেডিয়াট্রিক নেফ্রলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সনৎ কুমার বড়–য়ার অধীনে চিকিৎসাধীন ছিল। টেস্ট রিপোর্টে ম্যানিনজাইটিস পজিটিভ আসার পর চিকিৎসক সনৎ কুমার বড়ুয়া তাকে এন্টিবায়োটিক ইনজেকশন দেয়ার জন্য প্রেসক্রাইব করেন। এরপর তাকে কেবিনে নেওয়ার কথা ছিল। ইনজেকশন দেয়ার আধ ঘণ্টা পর তার মৃত্যু হয়।

শিশুটির মা ব্যাংক কর্মকর্তা ও লেখিকা মোহছেনা আক্তার ঝর্ণা কান্না করতে করতে বলেন, আমার ছেলেটা সকালেও আমার বুকে খেলা করেছে। এন্টিবায়েটিক দেয়ার পর সে সহ্য করতে পারেনি। আমার ভালো ছেলেটা মারা গেল।

চিকিৎসক সনৎ কুমার বড়ুয়া সাংবাদিকদের বলেন, শিশুটির আগে থেকে জ্বর ছিল। এরপর খিঁচুনি হয়। ম্যানিনজাইটিসে আক্রান্ত ছিল। জ্বর কিছুটা কমে আসে। এরপর পরীক্ষায় এনকাফেলাইটিস পজেটিভ আসে। কার্বোসিড ইনজেকশন দেয়া হয়েছে। সেটার কোনো সাইডইফেক্ট নেই। হয়ত ইনজেকশন দেয়ার সময়েই তার প্রদাহ কিংবা খিচুনিটা আবার শুরু হয়। এ কারণেই হয়তো তার মৃত্যু হয়েছে। ইনজেকশনটা দীর্ঘক্ষণ ধরে দেয়া হচ্ছিল। সেটা এভাবেই দেয়া হয়। ইনজেকশনে কোন সমস্যা ছিল না।

ম্যাক্স হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. লিয়াকত আলী সাংবাদিকদের বলেন, শিশুটির সঠিক চিকিৎসা হয়েছে। ম্যানিনজাইটিস রোগটাই এমন। রোগী কখনো একটু ইমপ্রুভ করবে, কখনো আবার একটু অসুস্থ হবে। ইনজেকশন দেয়ার কারণে তার মৃত্যু হওয়ার কথা সত্য নয়। তার পরিবারের সদস্যরাও হাসপাতাল থেকে যাওয়ার সময় এমন দাবি করেননি। কোনো অভিযোগও করেননি।

The Post Viewed By: 61 People

সম্পর্কিত পোস্ট