চট্টগ্রাম সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২১ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:১৫ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার

লাইসেন্স, ফিটনেস সনদ আপডেটের জন্য ৩০ জুন পর্যন্ত সময় হ নতুন আইন সংশোধনের দাবি বিবেচনার জন্য সড়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর আশ^াস

অবশেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসের পর ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় দ্বিতীয় দফা বৈঠক শেষে রাত ১২ টা ৫০ মিনিটের দিকে ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ। গতকাল বুধবার রাত ১টায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

মন্ত্রী বলেন, ৯ দফা দাবিতে পণ্য পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয় মালিক-শ্রমিকরা। সংকট নিরসনে তাদের সাথে দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে আন্তঃজেলা বাস শ্রমিক সমিতির নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে চলমান কর্মবিরতি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন মালিক-শ্রমিক নেতারা।

বৈঠকের শ্রমিকদের দাবির বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত হয়েছে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘শ্রমিকরা যে দাবিগুলো তুলেছেন সেগুলোর মধ্যে যৌক্তিক দাবিগুলোর জন্য আমরা সময় বেঁধে দিয়েছি। যেমন তাদের ড্রাইভিং লাইসেন্স নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত অসঙ্গতি ছিল। এই অসঙ্গতি কাটানোর জন্য আমরা আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত তাদেরকে সময় বেঁধে দিয়েছি। এ সময়ের মধ্যে লাইসেন্স সংক্রান্ত সকল অসঙ্গতি কাটিয়ে উঠতে হবে। তবে এর মধ্যে তাদের বিদ্যমান লাইসেন্স দিয়েই গাড়ি চালাতে পারবেন। দি¦তীয় দাবি ছিল গাড়ির ফিটনেস নবায়নের ফি নিয়ে। এই দাবিটি যোগাযোগ মন্ত্রী পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে মেনে নিবেন বলে আশ্বস্ত করেছি। গাড়ির দৈর্ঘ্য-প্রস্থ নিয়েও কিছু দাবি ছিল যেগুলো আগামী জুনের ৩০ তারিখের মধ্যে বিআরটিএর সাথে বৈঠক করে মিটিয়ে নিবেন। এছাড়া আইন সংশোধনের যে দাবিগুলো তারা করেছে সেগুলোর বিষয়েও আমরা যোগাযোগ মন্ত্রীর কাছে কিছু সুপারিশ তুলে ধরবো।’
এর আগে মঙ্গলবার রাতে পণ্য পরিবহনের শ্রমিকদের সাথে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রথম দফা বৈঠক হয়েছিল। তবে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয় সে বৈঠক।

The Post Viewed By: 73 People

সম্পর্কিত পোস্ট