চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২১ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:০৮ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় গার্মেন্টস কর্মীকে দুইদিন আটকে রেখে ধর্ষণ

প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ধরে নিয়ে দুইদিন আটকে রেখে জোরপুর্বক ধর্ষণ করার অভিযোগ এনেছে এক গার্মেন্টস কর্মী। ঘটনার শিকার তরুণী এ ব্যাপারে গত ১৮ সেপ্টেম্বর হাটহাজারী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় পাঁচজনকে এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। মুঠোফোনে জানতে চাইলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হাটহাজারী থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলমগীর

জানান, এ ঘটনায় কাউকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারিনি। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে-তরুণীর বাবা একজন রিকশাচালক, মা মানুষের বাসাবাড়িতে গৃহপরিচারিকার কাজ করেন। তিনি নিজেও একটি গার্মেন্টস এ চাকুরি করেন। মা বাবার সাথে বুড়িশ্চর ধুপকূল এলাকায় থাকেন ওই তরুণী। ভজপুরের তসলিম মেম্বারের বাড়ির জেবল হোসেনের ছেলে নুরুল ইসলাম ওরফে কালাইয়া ধুপকূলের জাফর কলোনির ৭ নম্বর বাসায় থাকেন। গার্মেন্টসে আসাযাওয়ার পথে প্রায় সময় নুরুল ইসলাম তরুণীকে প্রেমের প্রস্তাব দিলে তিনি রাজি হননি।

তরুণী বলেন, গত ৩ নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় গার্মেন্টসে কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে গোলাপের দোকান এলাকায় পৌঁছালে নুরুল ইসলাম তার সহযোগীদের নিয়ে তরুণীকে গোলাপের কলোনির আট নম্বর বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে তাকে বিয়েতে রাজী হতে চাপ দেয়। রাজী না হলে আট নম্বর বাসা থেকে তরুণীকে সাত নম্বর বাসায় নিয়ে যায় নুরুল ইসলাম।

তরুণীর অভিযোগ সেই বাসায় ৩ নভেম্বর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত আটকে তাকে জোর করে ধর্ষণ করে নুরুল ইসলাম। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে ওই বাসা থেকে উদ্ধার করে হাটহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

The Post Viewed By: 45 People

সম্পর্কিত পোস্ট