চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:০৯ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব সংবাদদাতা হ টেকনাফ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে ব্যাপক সতর্কতা

দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রশাসন প্রস্তুত

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে টেকনাফে গতকাল শনিবার থেমে থেমে হালকা ও মাঝারি বৃষ্টিপাত হয়েছে। টেকনাফের উপকূলীয় এলাকায় ৪নং সতর্কতা সংকেত অনুযায়ী রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ঘূর্ণিঝড় আতঙ্কে সময় পার করছেন টেকনাফের বিভিন্ন পাহাড় ও বন কেটে ঝুঁকিতে আশ্রয় নেওয়া লাখ লাখ রোহিঙ্গারা। তবে এ দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রশাসন সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছে।টেকনাফ শালবন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান জাফর আলম জানান, ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে সকালে ক্যা¤েপ বৈঠক করা হয়েছে। এছাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মসজিদে মাইকিং করে সবাইকে সতর্ক করা হচ্ছে। পাহাড়ে ঝুকিঁপূর্ণ বসতিদের নিরাপদে সরে যাওয়ার জন্য বলা হচ্ছে।

টেকনাফের শালবন রোহিঙ্গা ক্যা¤েপর নেতা বজলুল ইসলাম জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগ আঘাত হানতে পারে এমন আশঙ্কার খবর ক্যা¤েপ প্রচার করা হচ্ছে। ক্যা¤প পাহাড়ের ঢালুতে ঝুপড়ি ঘর হওয়ায় তাদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। নিরাপদ স্থানে আশ্রয় না নিলে ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানলে রোহিঙ্গা ক্যা¤েপ প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে। টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘স্থানীয়দের পাশাপাশি রোহিঙ্গা শরণার্থীদেরও সতর্ক

থাকতে বলা হয়েছে। তাছাড়া সকল আশ্রয় কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দুর্যোগ মোকাবেলায় রোহিঙ্গাদের ক্যা¤েপর ভেতরে অবস্থিত মসজিদ, স্কুল ও আশপাশের স্থানীয় আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে অবস্থান নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। দুর্যোগে অবহেলা না করে ক্যা¤েপ রোহিঙ্গাদের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নেওয়ার জন্য মাইকিংসহ নানাভাবে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, রেডক্রস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, দমকল বাহিনী বিভিন্ন এনজিও সংস্থার কর্মীরাসহ রোহিঙ্গা স্বেচ্ছাসেবী ও দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হয়েছে। ৩৪টি রোহিঙ্গা ক্যা¤েপ প্রায় তিন হাজার স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত আছেন। পাশাপাশি পাহাড়ে অতি ঝুকিঁপূর্ণদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে’।

The Post Viewed By: 55 People

সম্পর্কিত পোস্ট