চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৭ নভেম্বর, ২০১৯ | ১১:৪৩ অপরাহ্ন

কক্সবাজার সংবাদদাতা

ত্রাণের নামে বিকাশে জালিয়াতি, আটক ১

বিকাশ জালিয়াতি চক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সন্ধ্যায় হলিডের মোড় থেকে তাকে আটক করা হয়।

মামলার এজাহারে জানা যায়, গত ৭ সেপ্টেম্বর উখিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমকে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কর্মকর্তা পরিচয়ে চকরিয়ার চরনদ্বীপের মরহুম আবদুল করিমের পুত্র মোহাম্মদ নুর মানিক (৩৪) ফোন করে উখিয়া উপজেলার হতদরিদ্র মানুষের জন্য রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের নামে ২শ প্যাকেট ত্রাণ বরাদ্দ হয়েছে বলে জানান। প্রতিটি প্যাকেটের জন্য পরিবহন খরচ বাবদ ৭শ টাকা করে বিকাশে প্রদান করতে বলা হয়।

হতদরিদ্রদের জন্য ত্রাণ বরাদ্দের কথা শুনে ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ওই ব্যক্তিকে বিকাশের মাধ্যমে মোট ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা প্রদান করেন। একই ব্যক্তি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কামরুন নেছা বেবিকেও কল করে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির পক্ষ থেকে ১৫০ প্যাকেট ত্রাণ বরাদ্দ দিয়েছেন বলে জানান। তাকেও প্যাকেট প্রতি ৭০০ টাকা পরিবহন খরচ বাবদ বিকাশে পাঠাতে বললে তিনিও নুর মানিককে ১ লাখ টাকা বিকাশে পাঠিয়ে দেন। কিন্তু টাকা পাঠানোর পর থেকে ওই ব্যক্তির সব নাম্বার বন্ধ পেয়ে দুই ভাইস চেয়ারম্যানেরই সন্দেহ হয়। ওই ব্যক্তি দুইজনকেই আলাদা আলাদাভাবে বোকা বানিয়ে মোট ২ লাখ ৪০ হাজার হাতিয়ে নিয়ে সটকে পড়ে।

এদিকে এ বিষয়ে উখিয়া থানায় ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা পেয়ে ঘটনার মূল রহস্য ও প্রতারককে আটক করতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মানস বড়ুয়া ও মাসুম খান ওই বিকাশ জালিয়াতির সদস্যকে ধরতে ফাঁদ পাতে। কৌশলে অভিযান চালিয়ে আজ বৃহস্পতিবার হলিডের মোড় থেকে তাকে আটক করা হয়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মানস বড়ুয়া ও মাসুম খান বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে ওই প্রতারককে আটক করা হয়। তার সাথে আরও কারা জড়িত রয়েছে তা শীঘ্রই খুঁজে বের করা হবে।

পূর্বকোণ/আরাফাত-রাশেদ

The Post Viewed By: 90 People

সম্পর্কিত পোস্ট