চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯

৭ নভেম্বর, ২০১৯ | ৩:১৯ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

পানের দাম ১৫ টাকা থেকে ৫শ’ টাকা

এ যেন পানের বাহার। নানারকম মসলার মিশ্রণে তৈরি পান চিবোতেই রসে ভরে যায় মুখ। আর ছড়িছে পড়ে সুগন্ধ। ভোজন রসিক বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য এ পান। খাবারের পরে পান খাওয়া বাঙালির অভ্যাসে পরিণত হয়েছে বহুকাল থেকে। আবার অনেকে কারণে-অকারণে সারাদিনই চিবোতে থাকে পান। অতিথি সেবায়ও পানের জুড়ি নেই। বহুবছর ধরেই চলে আসছে এ রীতি। সময়ের সাথে সেই পানে যোগ হয়েছে আরো নতুনত্ব। এমনি বাহারি নাম আর মসলার মিশ্রণে পান বিক্রি করছে প্রবর্তক মোড় পুলিশ বক্সের পাশে ফাতেমা আক্তার জান্নাত নামের পানের দোকানে। আট রকমের পান আছে এ পান বিতানে। এই পানগুলোর মধ্যে আছে শাহী নরমাল পান, শাহী মিডিয়াম, শাহী স্পেশাল, আগুণ পান, স্পেশাল জড়িবুটি পান, জামাই পান, বউ পান ও জামাই বউ পান। পাশাপাশি আছে সাধারণ পানও। বিকেল চারটার দিকে দোকানটি বেশ জমে উঠে। দেখা যায় তরুণ থেকে বৃদ্ধ নানা বয়সের পান রসিকদের। ১৫ টাকা থেকে ৫শ’ টাকা দামের পান আছে এ দোকানে। পানে মসলার হিসেবে ব্যবহার করে নারকেল, চকলেট, জিরা, কিসমিস, কালো জিরা, চেরিফল, মোরব্বা, বিভিন্ন জাতের সুপারি ও চুন। সাথে আছে নানারকম সুগন্ধি জর্দা। এসব উপকরণের মিশ্রনে একটি পান হয়ে উঠে আরো রসালো। তাই পান রসিকদের ভিড় হয় এখানে।

বিবি কুলসুম নামের এক গৃহিনী বলেন, ‘প্রতিদিন বিকেল চারটায় হাঁটতে বের হই। আগে এখানে এসে একটি শাহী স্পেশাল পান কিনে মুখে দেই। তারপরে ঘণ্টাখানে হাঁটাহাটি করে আবার এখান থেকে একটি পান নিয়ে খেতে খেতে বাসায় যাই। এখানের পান আমার খুব পছন্দের। নানারকম মসলা দিয়ে তৈরি করে। খেতেও খুব ভালো লাগে। এমনিতে আমি পানে অভ্যস্ত নই। বিকেলে বের হলেই এখান থেকে দুইটি কিনে খাই।’

শিউলি রানী নামে এক বৃদ্ধা বলেন, ‘পান আমার খুব পছন্দ। আমি যে শখের বশে খাই তা নয়। ১০ বছরের বেশি সময় ধরে পান খাচ্ছি। তবে ডাক্তার পান খেতে নিষেধও করেছে। কিন্তু কি করবো অভ্যাস হয়ে গেছেতো, ছাড়তে পারি না। এখানে নানারকমের পান বিক্রি করে। আর আমারও পান খুব পছন্দ। তাই মাঝে মধ্যে এখানে এসে কিছু ভিন্ন সাধের পান খাই।’

পান ব্যবসায়ী বেলাল আহমেদ বলেন, ‘আমার বাড়ি সিলেট। দোকানটি নতুন। আমাদের সিলেটে নানারকম মসলা দিয়ে পান সাজায়। আর সেগুলো খুব জনপ্রিয়। আমি সেখানে নানারকম মসলার মিশ্রণে পান সাজানো শিখেছি। তাই এখানে এসে এ দোকানটি দিয়েছি। আমিই আমার পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষণ ব্যক্তি। এ ব্যবসা করে আমাকে মা, বাবা, ভাই, বোনসহ পাঁচজনের সংসার চালাতে হয়। আমি বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও বিয়েতে পান সাজানোর অর্ডারও নিয়ে থাকি। আমিতো এখনো নতুন, তাই ব্যবসা ভালো হয় বলা যায় না। তবে যারা একবার খেয়েছে তারা পরবর্তীতে আবার আসে আর পানের প্রশংসাও করে।

The Post Viewed By: 65 People

সম্পর্কিত পোস্ট