চট্টগ্রাম শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২২ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:০২ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

কোচিং সেন্টারের ছেলেদের কর্মকা-ে ক্ষুব্ধ অভিভাবক

ছাত্রীদের গা ঘেঁষে লিফলেট বিতরণ

‘স্কুল গেট অবরোধ করে লিফলেট হাতে দাঁড়িয়ে আছে উঠতি বয়সের ৫/৬ ছেলে। তাদের গা ঘেঁষেই স্কুল থেকে মেয়েদের বের হতে হচ্ছে। সরতে বললেও ছেলেদের কেউ সরছে না। বালিকা স্কুলের গেটের সামনে ছেলেদের কর্মকা- নিয়ে ক্ষুব্ধ অভিভাবকগণ। অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অভিভাবক কামরুন নাহার দৈনিক পূর্বকোণকে অভিযোগ করে বলেন, প্রতিদিন স্কুল ছুটির সময় বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে আসা ছেলেরা লিফলেট নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। তাদের কারণে মেয়েরা স্কুল থেকে বের হতে পারে না। এমনকি সেসব ছেলেদের মধ্যে অনেকেই মেয়েদের গায়েও হাত দেয় বলে অভিযোগ করেন তিনি। গতকাল নন্দনকানন এলাকার অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে সরেজমিনে দেখা যায়, সায়েন্স কেয়ার, উদ্ভাস, বি.টি কোচিং, চর্যাপদ, অমিত’স ইংলিশ কেয়ারসহ বিভিন্ন কোচিং থেকে লিফলেট নিয়ে আসা ছেলেরা গেটের সামনে দাঁড়িয়ে আছে। তারা স্কুলের সামনে এমনভাবে দাঁড়িয়ে আছে, কোন শিক্ষার্থী বের হওয়ার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা অবশিষ্ট নেই। মেয়েদের স্কুল থেকে বের হতে হলে, দাঁড়িয়ে থাকা সেসব ছেলেদের গা ঘেঁষে বা ঠেলাঠেলি করে বের হতে হবে।

স্কুল ছুটির সময় শিক্ষার্থীদের একাধিক অভিভাবকের সাথে কথা হলে তারা জানান, মেয়েরা স্কুল থেকে বের হওয়ার সময় বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে আসা ছেলেরা লিফলেট নিয়ে ঠিক স্কুল গেটের সামনে দাঁড়িয়ে থাকে। মেয়েদের গায়ে হাত দেয়ার মতো অবস্থা। সবাই উঠতি বয়সের ছেলে। তাই হয়তো কেউ কিছু বলছে না ভয়ে। কিছু বললেই আবার কি অঘটন ঘটিয়ে বসে। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষের এসবের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া উচিত। মেয়েদের নিরাপত্তার বিষয় আছে। স্কুল কর্তৃপক্ষকে এসব দেখতে হবে।
এ সম্পর্কে জানতে চাইলে অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ জারেকা বেগম জানান, মেয়েরা স্কুলে প্রবেশ ও বের হওয়ার সময় হলে বিভিন্ন কোচিং সেন্টার থেকে কিছু ছেলেকে লিফলেট নিয়ে পাঠানো হয়।

ব্যাপারটা আমার নিজের কাজেও বিরক্তিকর মনে হয়। অনেক সময় ভ্যানগুলো রাস্তা বা ফুটপাত দখল করলে আমরা কোতোয়ালী থানার সাহায্য নিয়ে তাদের সরিয়ে দিই। যারা লিফলেট নিয়ে আসে আমরা তাদের বলেছি, একটু দূরে দাঁড়ানোর জন্য। কিন্তু একেকদিন একেক কোচিং বা প্রতিষ্ঠান থেকে ছেলেরা আসে, তাই বললেও কাজ হয় না। তিনি আরো বলেন, আমাদের দারোয়ানকে নির্দেশ দেয়া আছে বাইরের কেউ যাতে স্কুল গেটের সামনে না দাঁড়ায়। এরপরও কেউ কেউ দারোয়ানকে ভয়ভীতি দেখিয়ে এসব কার্যক্রম করে। পরবর্তীতে আমরা দারোয়ানকে আরো কঠোর হতে বলবো। প্রয়োজনে এ ব্যাপারে আমরা কোতোয়ালী থানা পুলিশের সাহায্য নিব।

The Post Viewed By: 158 People

সম্পর্কিত পোস্ট