চট্টগ্রাম শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২১ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:০৬ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

১০ প্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা

মেয়াদোত্তীর্ণ দুধ-আইসক্রিম ধ্বংস

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চট্টগ্রামের বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয় গতকাল রবিবার নগরীর বন্দর, ইপিজেড, পাঁচলাইশ ও চকবাজার থানার বিভিন্ন এলাকায় পৃথক তদারকিমূলক অভিযান চালিয়ে ১০প্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। অভিযানে মেয়াদ উত্তীর্ণ দুধ, অননুমোদিত ওষুধ, প্রসাধনী, সস, দই ও উৎপাদন, মেয়াদবিহীন আইসক্রিম ধ্বংস করা হয়। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নাসরিন আক্তার, সহকারী পরিচালক (মেট্টো) বিকাশ চন্দ্র দাস এবং জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে বন্দর থানার রবিউল স্টোরকে পিঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় ৫,০০০ টাকা, সুমাইয়া স্টারকে মূল্যতালিকা প্রদর্শন না করা এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ দুধ বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে সংরক্ষণ করায় ৭,০০০ টাকা জরিমানা করে দুধ ধ্বংস করা হয়। এছাড়াও কলসি দীঘির পাড় বাজারের বিভিন্ন

দোকানে পিঁয়াজের মূল্য তদারকি করা হয়। ইপিজেড এলাকায় মেয়াদ উত্তীর্ণ দুধ সংরক্ষণের জন্য বিপ্ল­ব স্টোরকে ১০,০০০ টাকা এবং উৎপাদন, মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখবিহীন অননুমোদিত আইসক্রিম সংরক্ষণের জন্য মামা ভাগিনা স্টোরকে ১০,০০০ টাকা জরিমানা করে আইসক্রিম ধ্বংস করা হয়। চকবাজার থানায় অননুমোদিত কসমেটিকস বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষণ করায় সিটি কর্ণারকে ৮,০০০ টাকা এবং সাজঘরকে ৫,০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। নিবন্ধনবিহীন ওষুধ বিক্রয়ের হন্য সংরক্ষণ করায় পাচঁলাইশের মক্কা ফার্মেসিকে ৫,০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। চকবাজারের কেয়ারি ইলিশিয়ামের খাবারের দোকানগুলো তদারকি করা হয়। এসময় পাতিসেরি রেস্টুরেন্টকে অননুমোদিত সস ও দই ব্যবহার করে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন করায় ১০,০০০ টাকা, আড্ডা রেস্টুরেন্টকে একই অপরাধে ৮,০০০ টাকা এবং মূল্য তালিকা না রাখায় স্টুডেন্ট ফুড কর্নারকে ২,০০০ টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয় এবং প্রায় ৪০ লিটার অননুমোদিত সস ও ৪ কেজি দই ধ্বংস করা হয়। অভিযানের সার্বিক নিরাপত্তায় এপিবিএন, ৯ এর সদস্যবৃন্দ নিয়োজিত ছিলেন।

The Post Viewed By: 104 People

সম্পর্কিত পোস্ট