চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২০ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ট্রাফিক বিভাগের পাইলট প্রকল্পে আরো তিন রুট

আজ থেকে সপ্তাহব্যাপী পর্যবেক্ষণে রুট তিনটি

নগরীর গণপরিবহন ব্যবস্থা ঢেলে সাজাতে ট্রাফিক বিভাগের পাইলট প্রকল্পে যুক্ত হচ্ছে আরো তিনটি রুট। প্রাথমিক পর্যায়ে নগরীর ৬ নং ও ১০ নং রুটের পরিবহণগুলোকে এ উদ্যোগের আওতায় আনে নগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। সপ্তাহব্যাপী রুট দুটিতে শৃঙ্খলা ফেরানোর অভিযান পরিচালনা করে এবার আরো তিনটি রুট এই উদ্যোগের আওতায় আনা হচ্ছে। আজ রবিবার থেকে নগরীর ৪, ৭ ও ৮ নং রুটের গণপরিবহনগুলোকে নিয়ে আসা হবে কঠোর নিয়ন্ত্রণের আওতায়। চট্রগ্রামের বাস মালিক ও শ্রমিক সংগঠনদের সাথে বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নেয় ট্রাফিক বিভাগ। যে সিদ্ধান্তের সাথে পূর্বের মত একাত্মতা পোষণ করে তা অনুসরণের অঙ্গীকার করেন গণ পরিবহনের মালিক-শ্রমিক নেতারা।

নগর ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, আজ রবিবার থেকে নগরীর ৪, ৭ ও ৮ নং রুটের গণপরিবহনগুলোকে ট্রাফিক বিভাগের নতুন এ উদ্যোগের আওতায় আনা হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে সপ্তাহব্যাপী পর্যবেক্ষণে রাখা হবে রুট তিনটিকে। এই তিনটি রুটেও থাকবে ৬ ও ১০ নং রটের জন্য গ্রহণ করা পদক্ষেপগুলো। যার মধ্যে রয়েছে- নির্ধারিত স্থান ছাড়া অন্য কোথাও দাঁড়াতে পারবে না বাস। স্টপেজে পৌঁছানের আগে বন্ধ রাখতে হবে দরজা। প্রতিটি বাসকে যেতে হবে নির্দিষ্ট গন্তব্যে। মাঝপথে ঘুরিয়ে দেয়ার মতো স্বেচ্ছাচারিতার সুযোগ দেয়া হবে না। যাত্রীকে ভাড়া উল্লেখ করে দিতে হবে টিকেট। বাস চালককে নির্ধরিত পোশাক পরে গাড়ি চালাতে হবে। এছাড়া ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া কাউকে গাড়ি চালানোর কোন সুযোগ দেয়া হবে না। এছাড়া এসব পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করা হচ্ছে কি না তাও মনিটরিং করা হবে। যেখানে পুলিশ সদস্যের পাশাপাশি মনিটরিং করবে বাস মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মোস্তাক আহমেদ পূর্বকোণকে বলেন, ‘সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে এবং গণপরবিহন ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে আমরা পাইলট প্রকল্প নামে একটি কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করি। প্রাথমিক পর্যায়ে ১০ নম্বর ও ৬ নম্বর রুটে চলাচলকারী পরিবহনগুলোকে এ কার্যকরী উদ্যোগের আওতায় আনা হয়েছিল। এবার এ উদ্যোগে যুক্ত করা হয়েছে ৪,৭ ও ৮ নং রুটের গণপরিবহনগুলোকে। আগামীকাল (রবিবার) থেকে সপ্তাহব্যাপী পরীক্ষামূলকভাবে পর্যবেক্ষণে থাকবে রুট তিনটি।’ এ উদ্যোগের আওতায় আনা পূর্বের রুট দুটির নানান অনিয়ম নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দীর্ঘদিনের অব্যবস্থপনায় থাকা গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে কিছুটা সময়ের প্রয়োজন। তবে আগের তুলনায় সড়কে অনেক শৃঙ্খলা ফিরেছে। একসময় শেষ গন্তব্য পর্যন্ত কোন বাস যেতো না। এখন যাচ্ছে। বাকি যেসব সমস্যা আছে সেগুলোও দূর হবে। প্রয়োজনে আমরা আরো কঠোর হবো। তবে তাদেরকে পর্যাপ্ত সময় দেয়া হবে।’

The Post Viewed By: 157 People

সম্পর্কিত পোস্ট