চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ | ৪:১৩ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

‘ওরাও মানুষ,ওদেরও ক্লান্তি আছে’

চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানাধীন জুবিলী রোডের জহুর হকার্স ও জালালাবাদ মার্কেটে শনিবার ভোরে সংঘটিত আগুন নেভাতে কাজ করেছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের চারটি স্টেশনের ১৫টি ইউনিট। ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রমে ৩ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুনে পুড়ে যায় শতাধিক দোকান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আগুন নেভানোর কাজে নিয়োজিত ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের বীরত্বের প্রশংসা করে অনেকেই স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

এরমধ্যে চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন নিজের ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাস দেন। স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন-

‘ওদের জন্যই আমরা বেঁচে যাই। ওদের জন্যই টিকে থাকি। আগুন দেখে যখন আমরা কিলোমিটার দূরত্বে নিজেদের সরিয়ে রাখি। তখন তারা আগুনে ঝাঁপিয়ে আমাদের নিরাপদ করে। কাগজে-কলমে হকার্স মার্কেটে ৭০ দোকান পোড়ার কথা লেখা থাকবে। লেখা থাকবে না তাদের দুই হাজার দোকান বাঁচানোর কৃতিত্ব। লেখা থাকবে না আগুন থেকে অন্যের সম্পদ বাঁচানোর তাদের প্রাণান্তকর চেষ্টার বীরত্বও। ‘

এরপর ফায়ার সার্ভিসের দুইজন কর্মীর ছবি দিয়ে তিনি লিখেন-

‘সারারাত আগুনের সাথে যুদ্ধ শেষে একটু বিশ্রাম নিচ্ছিলেন ফায়ার সার্ভিসের দুই ভাই। তখনই ছবিটি তোলা। স্যালুট ভাই তোমাদের।’

অপরদিকে অনুপম পার্থ নামের একজনের সংগৃহীত ফেসবুক পোস্টে ওঠে আসে আরো একজন ফায়ার সার্ভিস কর্মীকে নিয়ে লেখা। পূর্ণচন্দ্র মুৎসুদ্দি নামের ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মকর্তার ক্লান্ত শরীরে বিশ্রাম নেয়ার একটি ছবি পোস্ট করে পোস্টদাতা লিখেছেন, জহুর হকার্স মার্কেটে আগুন লাগলে নিজের বাহিনী নিয়ে আগুন নেভানোর কাজে নেমে পড়েন পূর্ণচন্দ্র মুৎসুদ্দি ।  একসময় নিজের স্ত্রীর স্বর্ণ বিক্রি করে অফিসের বকেয়া শোধ করেছিলেন তিনি। রাষ্ট্রের জন্য একজন কর্মকর্তার এমন ত্যাগ নিশ্চয়ই অন্য রাষ্ট্রীয় কর্মচারীদের প্রেরণা যোগাবে। তাদের জন্যই আমরা গর্বিত হই।

পূর্বকোণ/টিএফ

The Post Viewed By: 288 People

সম্পর্কিত পোস্ট