চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:২৩ পূর্বাহ্ণ

কমছে না মাছ ও সবজির দাম

এক মাস ধরেই বাজারে মাছ ও সবজি দামে চলছে অস্থির অবস্থা। উত্তরণ ঘটছে না অবস্থার। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন ক্রেতারা। এদিকে সমুদ্রে মাছধরা বন্ধ থাকায় বাজারে চাহিদামত মাছ নেই। বাজারে চাষের কিছু মাছ আসলেও বিক্রি হচ্ছে দ্বিগুণ দামে। আবার বাজারে শীতকালীন সবজির দেখা গেলেও গত সপ্তাহের মত প্রায় একই দামে বিক্রি হচ্ছে সব সবজি। তবে ফের দাম

বেড়েছে কাঁচা মরিচের। কাল নগরীর চকবাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতিকেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১শ থেকে ১৩০ টাকা দরে। তবে অপরিবতির্ত আছে ব্রয়লার, কক মুরগি ও মাংসের দাম। কাল বাজারে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১শ থেকে ১২০ টাকায়। নতুন ফুলকপি প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, মুলা ৪০ টাকা, টমেটো ১২০ থেকে ১শ টাকা, বেগুন ৬০ থেকে ৭০ টাকা, চিচিঙ্গা ৭০ টাকা, ঝিঙা ৬০ টাকা, ধুন্দল ৬০ টাকা, কাকরল ৫০ থেকে ৬০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, কচুর ছড়া ৮০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, মিষ্টি কুমড়ো ৪০ টাকা, শসা ৫০ টাকা ও আলু ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাজারে চাহিদার তুলনায় সবজি এখনো কম তাই দাম কমছে না সবজির। আমরা আড়তদারদের থেকে বেশি দামে কিনে আনছি সবজি। তাই বিক্রিও করছি বেশি দামে। গৃহিনী আয়শা বেগম বলেন, আমার স্বামী একটি চাকরি করে। তাই আমাকেই বাজার করতে হয়। বাজারে আসলে দ্রব্যমূল্যের দাম শুনলে ভয় পাই। এত টাকা দিয়ে বাজার করলে সংসারের অন্য খরচ কিভাবে বহন করবো। এদিকে বাজারে রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪শ থেকে ৪৫০ টাকায়। কাতাল বিক্রি হচ্ছে ৫শ টাকা দরে। তেলাপিয়া বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা, পাঙ্গাস ১৪০ টাকা, ফার্মের কৈ মাছ ৩শ টাকা, কেচকি প্রতিকেজি ৪শ টাকা, ছোট চিংড়ি ৫০০-৫৫০ টাকা, মাঝারি চিংড়ি ৬০০-৬৫০ টাকা, সরপুটি ৩০০ টাকা, র্ফামের টাকি মাছ ৩৫০ টাকা, শিং মাছ ৫শ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ক্রেতা আবু তোফাজ্জেল বলেন, মাছের দাম অতিরিক্ত বেড়েছে। তেমনি সবজির দামও বেড়েছে। মাছ বা সবজি যে কোন একটির দাম কমা দরকার। বয়লার মুরগির ১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ২৩০ টাকা, দেশি মুরগি ৪০০ টাকায় ধরে বিক্রি হচ্ছে। আবার অপরিবতির্ত আছে গরু ও ছাগলের মাংস। হাড়ছাড়া গরুর মাংস ৭০০ টাকা, হাড়সহ ৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ছাগলের মাংস কেজি ৭০০ টাকা ধরে বিক্রি হচ্ছে।

The Post Viewed By: 82 People

সম্পর্কিত পোস্ট