চট্টগ্রাম সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ | ১:১৮ am

নিজস্ব প্রতিবেদক

পাহাড়তলিতে গড়ে তোলা হচ্ছে শেখ রাসেল শিশু পার্ক

বঙ্গবন্ধুর শিশুপুত্র শেখ রাসেলের নামে নগরীর পাহড়াতলিতে প্রাকৃতিক পরিবেশে পৌনে চার একর জমিজুড়ে গড়ে তোলা হচ্ছে একটি শিশু পার্ক। নাম দেয়া হচ্ছে শেখ রাসেল শিশু পার্ক। পাহাড়তলি রেলওয়ে জাদুঘর ঘিরেই পার্কটি তৈরির কাজ চলছে।

প্রায় পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পার্কটি গড়ে তুলছে। স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে পার্কের একপাশে নির্মাণ করা হয়েছে ‘শহীদ স্মৃতি সৌধ’।
বিশাল এলাকাজুড়ে পার্ক নির্মাণ করা হলেও সেখানকার কোন গাছপালা কাটা হবেনা। পাহাড় চূড়ায় দর্শনার্থীদের জন্য থাকবে ওয়াচ টাওয়ার।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে চট্টগ্রাম নগরীকে গ্রিন ও ক্লিন নগরীতে পরিণত করতে বিভিন্ন উদ্যেগ গ্রহণ করি।টাইগারপাস, দেওয়ানহাটসহ পুরো নগরীতে বিলবোর্ড উচ্ছেদ করে পূর্বের অবস্থা ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে।

বিলবোর্ড উচ্ছেদের কারণে নগরবাসী এখন নগরীর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবগাহন করতে পারেন। নগরবাসীকে স্নিগ্ধ, নির্মল ও দুর্গন্ধমুক্ত সকাল উপহার দেওয়ার জন্য রাতে ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করা হচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা চাই নদী, সাগর ও পাহাড়ের মেলবন্ধনে চট্টগ্রাম নগরীর যে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রয়েছে তা ফিরিয়ে আনতে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নগর পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী স্থপতি আবদুল্লাহ আল ওমর জানান, তিন দশমিক সাত একর জমি জুড়ে শেখ রাসেল শিশু পার্ক গড়ে তোলার কাজ চলছে।

শহীদ শাহজাহান মাঠ সংলগ্ন রেলওয়ে জাদুঘর ঘিরে পার্কটিতে শিশুদের বিনোদনের পাশাপাশি বয়স্কদের জন্য নানা সুবিধা রাখা হয়েছে। পার্কে যা যা থাকবে: শেখ রাসেল শিশুপার্কে থাকবে একটি উন্মুক্ত মঞ্চ। যেখানে নানা অনুষ্ঠান করার আধুনিক সুযোগ সুবিধা থাকবে। সংক্ষিপ্ত আত্নজীবনীসহ বঙ্গবন্ধুর একটি প্রতিকৃতি থাকবে। থাকবে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতি।
স্থপতি ওমর জানান, প্রাকৃতিক পরিবেশ ঠিক রেখেই পার্কের নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। আলোকায়নের ব্যবস্থা থাকবে। শিশুদের জন্য নানা ধরনের রাইডের ব্যবস্থার পাশাপাশি বাগান, পার্কিং স্পেস,পাবলিক টয়লেট, ওয়াকওয়ে, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা, দৃষ্টি প্রতিবন্ধিদের নিরাপদ হাঁটার জন্য আলাদাভাবে পেভিং টাইলস পথ, দর্শনার্থীদের ওয়াশরুম,বিশ্রামের স্থান, ক্যান্টিন, ঝুলন্ত সেতু, ড্রেনেজে ব্যবস্থাসহ নানা সুবিধা।

The Post Viewed By: 109 People

সম্পর্কিত পোস্ট