চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ | ৫:১৮ অপরাহ্ন

টেকনাফ সংবাদদাতা

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক কারবারি নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় সহকারী পুলিশ সুপারসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) ভোররাতে উপজেলা হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘরিয়াপাড়া সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি শুটার গান, দেশীয় তৈরি পাঁচটি এলজি, ৩৬ রাউন্ড গুলি এবং পাঁচ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ।

বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয়ে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়ন কাঞ্জরপাড়ার সামশুল আলমের পুত্র জিয়াবুল হক প্রকাশ বাবুল (৩০) ও বাহারছড়া ইউনিয়নের শীলখালীর কেফায়েত উল্লাহর পুত্র আজিম উল্লাহ (৪৬) নিহত হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা হচ্ছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উখিয়া-টেকনাফ সার্কেল) নিহাদ আদনান তাইয়ান, টেকনাফ মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সাব্বির আহমেদ, কনেস্টবল রাইসুল ইসলাম আসাদ ও আবদুস শুক্কুর।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ বুধবার (১৬ অক্টোবর) বিকালের দিকে উপজেলার হ্নীলা বাজার এলাকা থেকে কয়েকটি মামলার পলাতক আসামি অস্ত্রধারী মাদক কারবারি জিয়াবুল হক প্রকাশ বাবুলকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) ভোররাতের দিকে অস্ত্রধারী মাদক কারবারিদের গোপন আস্তানায় অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করতে অভিযান চালায়। এ সময় অপরাধীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আটক আসামির সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ শুরু করে এবং আটক আসামীদের ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে আত্মরক্ষার্থে পুলিশ সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়।

উভয়পক্ষের গোলাগুলির এক পর্যায়ে উখিয়া-টেকনাফের সার্কেল নিহাদ আদনান তাইয়ানসহ পুলিশের চার সদস্য গুরুতর আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার পর ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক বাবুল ও তার সহযোগী আজিম উল্লাহকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এরপর পুলিশ সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার হাসপাতালে প্রেরণ করেন। কক্সবাজার পৌছার পর দায়িত্বরত ডাক্তার তাদের দু’জনকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশগুলো উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়।

 

পূর্বকোণ/কাশেম-রাশেদ

The Post Viewed By: 116 People

সম্পর্কিত পোস্ট