চট্টগ্রাম শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ | ১:৪০ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

হৃদরোগ বিভাগের সিসিইউ-২ উদ্বোধনীতে মেয়র

চমেক হাসপাতালের চিকিৎসক নার্সদের নোবেল দেওয়া উচিত

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের নোবেল প্রাইজ দেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। গতকাল বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের সিসিইউ-২ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মেয়র বলেন, মাত্র ১৩’শ শয্যার এই হাসপাতালে আউটডোর ও ইনডোরসহ প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ হাজার মানুষকে সেবা দিতে হয়। এটা কিন্তু স্বাভাবিক বিষয় নয়। দীর্ঘদিন থেকে জনবল ও কাঠামোর সংকট থাকা সত্বেও হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা যে পরিমাণ সেবা দিয়ে যাচ্ছে, তাতে আমি মনে করি, তাদের নোবোল প্রাইজ দেওয়া উচিত। বৃহত্তর চট্টগ্রামের মানুষের হৃদরোগ চিকিৎসার একমাত্র ভারসাস্থল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল উল্লেখ করে মেয়র আরও বলেন, দেশের অন্যান্য স্থানের তুলনায় চট্টগ্রামে হৃদরোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। কিন্তু এ স্থানে হৃদরোগ চিকিৎসা জন্য নেই কোন আলাদা হাসপাতাল। যার জন্য সরকারি এ হাসপাতালেই চিকিৎসা নিতে হয় সবাইকে।

শয্যাসহ নানা সংকটের কারণে হিমশিম খেতে হচ্ছে বিভাগটিকে। তবে রোগী কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে নতুন করে হৃদরোগ বিভাগে ১৫টি শয্যা সম্বলিত আরও একটি সিসিইউ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে তা বাস্তবায়ন করেছে যা প্রশংসার দাবিদার। রোগীকল্যাণ সমিতির কার্যক্রমের সাথে তাহের ব্রাদার্সের মতো সামর্থ্যবান সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান যদি সম্পৃক্ত হন তাহলে বিনা চিকিৎসায় বা অর্থাভাবে আর কোন রোগী মারা যাবেন না বলেও উল্লেখ করেন মেয়র।

প্রসঙ্গত : হৃদরোগ বিভাগ এতদিন মাত্র ১৬ শয্যা দিয়ে সিসিইউ সেবা দিতে গিয়ে গিয়ে হিমশিম খেতেন চিকিৎসকরা। রোগীকল্যাণ সমিতির উদ্যোগে ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তাহের ব্রাদার্স লি. এর আর্থিক সহায়তায় নতুন করে আরও ১৫ শয্যা বিশিষ্ট করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ)-২ স্থাপন করা হয়।

সভায় রোগীকল্যাণ সমিতির সভাপতি ও হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহসেন উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বি এম এ চট্টগ্রামের সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. নাসির উদ্দিন মাহমুদ, হৃদরোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. প্রবীর কুমার দাশ, সমাজসেবা অধিদপ্তর চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক মো. শহীদুল ইসলাম, তাহের ব্রাদার্স লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল বশর।

বিএমএ সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান বলেন, আমি নিজেও রোগীকল্যাণ সমিতির আজীবন সদস্য। এ পর্যন্ত প্রায় তিন লক্ষ রোগীকে সহায়তা করেছে রোগীকল্যাণ সমিতি। যা সামর্থ্যবান ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় তারা এমন কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের এই কাজে সকলকেই এগিয়ে আসা জরুরি। এই ১৫ শয্যা স্থাপন করা হয়েছে। যা শয্যার দিক থেকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট’র পর সিসিইউর অবস্থান।

হৃদরোগ বিভাগের প্রধান প্রবীর দাশ বলেন, এতদিন মাত্র ১৬ শয্যা নিয়ে রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে আমাদের নিয়মিত হিমশিম খেতে হতো। সিসিইউ বেড সংযোজন করায় এখন থেকে প্রায় দ্বিগুণ সংখ্যক রোগীকে সেবা দেয়া সম্ভব হবে।

রোগীকল্যাণ সমিতির সকল ভাল কাজের সাথে তাহের ব্রাদার্স সম্পৃক্ত থাকবে বলে ঘোষনা দিয়ে তাহের ব্রাদার্স লিমিটেড’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল বাশার বলেন, সবসময় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে প্রস্তুত রয়েছে তাহের ব্রাদার্স। রোগীকল্যাণ সমিতি মানুষের জন্য যে কাজ করে যাচ্ছে তা অবশ্যই প্রশংসনীয়।

সমিতির তথ্য প্রকাশনা ও প্রচার সম্পাদক হাফেজ মো. আমান উল্যাহর সঞ্চালনায় এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাসপাতাল সমাজসেবা অফিসার ও রোগীকল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক অভিজিৎ সাহা।

The Post Viewed By: 98 People

সম্পর্কিত পোস্ট