চট্টগ্রাম বুধবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ | ৩:২২ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইস্টার্ন ব্যাংকের পৌনে ১২ কোটি টাকা আত্মসাত

শাখা ব্যবস্থাপকসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে ৮ মামলা

গ্রাহকের ১১ কোটি ৭৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) দুই ব্যবস্থাপকসহ আটজনের বিরুদ্ধে পৃথক আটটি মামলা দায়ের করেছে দুদক। গত সোমবার সন্ধ্যায় দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম-১ এ এসব মামলা দায়ের করা হয়। দুদক জানায়, নকল সিল ও প্যাড ব্যবহার করে জালিয়াতির মাধ্যমে ব্যাংকটি দুই কর্মকর্তাসহ অন্যরা এসব টাকা আত্মসাৎ করার প্রমাণ পাওয়া যায়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদককের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য। মামলার আসামিরা হলেন- ইস্টার্ন ব্যাংক চট্টগ্রামের দুটি শাখার ব্যবস্থাপক মো. ইফতেখারুল কবির ও সামিউল সাহেদ চৌধুরী, স্থানীয় ব্যবসায়ী জাকির হোসেন (বাপ্পী), মো. মাহমুদুল হাসান, আব্দুল মাবুদ, ফারজানা হোসেন ফেন্সী, আজম চৌধুরী ও খালেদ সাইফুল্লাহ। এদেরমধ্যে ব্যাংক কর্মকর্তা ইফতেখারুল কবির প্রতিটি মামলায় এবং অন্যদের একাধিক মামলায় আসামি করা হয়েছে। এর আগে গত ৬ অক্টোবর এফডিআরের নামে জালিয়াতির আশ্রয়ে গ্রাহকের ৮১ লাখ আত্মসাতের অভিযোগে ইফতেখারুল কবিরসহ দুজনের বিরুদ্ধ পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেন সংস্থাটির উপ-সহকারী পরিচালক নুরুল ইসলাম। নতুন করে দায়ের হওয়া

এই আট মামলার বাদিরা হলেন- দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম-১ এর উপ-পরিচালক লুৎফুল কবির চন্দন, সহকারী পরিচালক ফখরুল ইসলাম, উপ-সহকারী পরিচালক হোসাইন শরীফ ও মাহমুদা আক্তার।

মামলা এজাহার সূত্রে জানা যায়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে জাল সিল, প্যাড ইত্যাদি তৈরি করে বিভিন্ন গ্রাহকের কাছ থেকে চেক নিয়ে অর্থ উত্তোলন করেন। যা দুদকের অনুসন্ধানে প্রমাণ পাওয়া যায়। এ আটজন গ্রাহকের কাছ থেকে নেয়া চেক বিভিন্ন সময়ে নগদায়ন করে মোট ১১ কোটি ৭৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা উত্তোলন করেছেন বলেও মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়।

The Post Viewed By: 285 People

সম্পর্কিত পোস্ট