চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ | ৩:০৬ পূর্বাহ্ণ

হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারীর ওরশ সম্পন্ন

‘বৈরিতা নয়, শ্রদ্ধা-সম্প্রীতির ভিত্তিতে একতাবদ্ধ হতে হবে’

ইসলাম শান্তি চায়, মতপার্থক্যের চেয়ে আমাদের মাঝে যে মিলগুলো রয়েছে তার ভিত্তিতে আমাদেরকে এগুতে হবে। মাইজভা-ারীয়া ত্বরিকার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার প্রতি সহমর্মিতা ও সদ্ভাব বজায় রাখা। আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত একটি আদর্শের নাম। যে আদর্শের মধ্যে আল্লাহ্ ও তাঁর প্রিয় রাসূল (দ.) এবং রাসুলে কারীমের আহলে বায়েতগণের আদর্শ চর্চা হয়। তাই বৈরিতা নয়, পারস্পরিক শ্রদ্ধা-সম্প্রীতির ভিত্তিতে আমাদেরকে একতাবদ্ধ হতে হবে।

বাংলাদেশে প্রবর্তিত একমাত্র ত্বরিকা, ত্বরিকা-ই-মাইজভা-ারীয়ার প্রবর্তক গাউসুল আযম হযরত মাওলানা শাহ্সুফি সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্ মাইজভা-ারী (ক.)’র প্রপৌত্র ও অছিয়ে গাউসুল আযম খাদেমুল ফোকারা হযরত সৈয়দ দেলাওর হোসাইন মাইজভা-ারী (ক.)’র প্রথম পুত্র বিশ^অলি শাহানশাহ্ হযরত মাওলানা শাহ্সুফি সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারী (ক.)’র ৩১তম ওরশ উপলক্ষে তাঁর একমাত্র পুত্র, ‘এস জেড এইচ এম ট্রাস্ট’র ম্যানেজিং ট্রাস্টি আলহাজ শাহসুফি সৈয়দ মোহাম্মদ হাসান মাইজভা-ারী (ম.জি.আ) মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, সমাজকে কিছু দিতে হলে তাদের জন্য কাজ করতে হবে। ভবিষ্যৎ প্রজন্ম এবং সমাজের জন্য আমাদের দায়বদ্ধতা হিসেবে বিশ্বঅলি শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারী ট্রাস্ট (এসজেডএইচএম ট্রাস্ট) ৭ দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করেছে।

১১ অক্টোবর মাইজভা-ার শরিফ গাউসিয়া হক মন্জিলে বিশ্বঅলি শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারীর ৩১তম ওরস শরীফ যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় সম্পন্ন হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল বাদ ফজর রওজা শরিফে গিলাফ চড়ানো, দিনব্যাপী খতমে কুরআন, তাওয়াল্লোদে গাউসিয়া, জিকির-আজকার, যিয়ারত, মিলাদ, সেমা মাহফিল, আখেরি মুনাজাত ও তার্বারুক বিতরণ।

এছাড়া বিশ^অলি শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারী (ক.)-এর ওরশ উপলক্ষে মাইজভা-ার শরিফ গাউসিয়া হক মন্জিল, শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভা-ারী (ক.) ট্রাস্ট ও মাইজভা-ারী গাউসিয়া হক কমিটি বাংলাদেশ কেন্দীয় পর্ষদ নিয়ন্ত্রণাধীন দেশে-বিদেশের শাখা কমিটি সমূহের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। এছাড়াও পবিত্র ওরসে মাইজভা-ারী গাউসিয়া হক কমিটির ভারত, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, কাতার, ওমান, কুয়েত, সৌদি আরব, যুক্তরাষ্ট্র সহ বিভিন্ন দেশের আশেক-ভক্তগণ উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় মাহফিলে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ভারতের আলীগড় বিশ^বিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রফেসর ও আজমির শরীফের গদিনসীন ড. সৈয়দ লিয়াকত হোসাইন মঈনী, প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটি ঢাকার অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আবুল ফাতাহ মুহাম্মদ মহিউদ্দীন। বক্তব্য রাখেন মাওলানা সৈয়দ আহমদুল হক মাইজভা-ারী, মাওলানা হাফেজ আবুল কালাম, মাওলানা নুর হোছাইন হেলালী সাহেব। উপস্থিত ছিলেন মাইজভা-ারী গাউসিয়া হক কমিটির কেন্দ্রীয় পর্ষদ সভাপতি আলহাজ রেজাউল আলী জসিম চৌধুরী, অধ্যাপক এ.ওয়াই.এম জাফর, শেখ মুজিবর রহমান বাবুল, সৈয়দ মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দীন, কাজী মোহাম্মদ ইউসুফ, সৈয়দ জহুরুল কাদের আজাদ, এ.এন.এম.এ মোমিন প্রমুখ।
আখেরি মোনাজাতে দেশ, জাতি ও বিশ^ মুসলিম উম্মাহসহ পৃথিবীর সকল মানুষের কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 186 People

সম্পর্কিত পোস্ট