চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৫ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

১২ অক্টোবর, ২০১৯ | ১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মুক্তধ্বনি আবৃত্তি সংসদের আয়োজন অভিন্ন ব্যঞ্জনায় ভালবাসা অফুরান

কবিতা হচ্ছে এমন একটি মাধ্যম যার মাধ্যমে আমরা আবেগের বহিঃপ্রকাশ ঘটাই। আর সেই আবেগ একজন মানুষের মনের ভাষাও। একজন মানুষ আবেগের মাধ্যমেই কবিতার সুরে মনের ভাষাগুলো প্রকাশিত করে ভিন্ন ভিন্ন রূপে। কখনো সেটি মধুর প্রেমের গল্প, কখনো বিরহের ভাষায় আবার কখনো প্রার্থনার সুরেও প্রকাশিত হয়। এই কবিতা বাঙালি জাতি সত্তার আরেক গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। আর আজ একই মঞ্চে দুই বাংলার আবৃত্তি শিল্পীরা মিলিত হয়েছে কবিতার মাধ্যমে। এই কবিতাই পারে রাজপথে বিপ্লবী স্লোগানের জন্ম দিতে। সে কবিতার বিপ্লবী সুরে একদিন বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধারা উৎসাহিত হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন দেশ মাতাকে মুক্ত করতে। ‘অভিন্ন ব্যঞ্জনায় ভালবাসা অফুরান’ আবৃত্তি অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মরিয়ম ইসলাম উদ্বোধনকালে একথা বলেন।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে মুক্তধ্বনি আবৃত্তি সংসদ ‘অভিন্ন ব্যঞ্জনায় ভালবাসা অফুরান’ আবৃত্তি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম-সম্পাদক ও আবৃত্তি শিল্পী রাশেদ হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আবৃত্তি করেন বিশ্বভরা প্রাণ বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জাহান বশির, সম্মিলিত আবৃত্তি জোট চট্টগ্রামের সহ-সভাপতি নিশাত হাসিনা শিরিন, ভারতের আবৃত্তিশিল্পী গৌতম শীল, মালবিকা চক্রবর্তী, মুক্তধ্বনি আবৃত্তি সংসদের সাধারণ সম্পাদক জাহেদ হোসেন রনি, আবৃত্তি শিল্পী আশিক আরেফিন, রেহানা আক্তার এ্যানি, ইসরাত জাহান ও নাসরিন তমা। এসময় কবিরা একে একে মঞ্চে কবিতা পাঠ করেন। মুক্তধ্বনি আবৃত্তি সংসদের সভাপতি মো. মছরুর হোসেন বলেন, আবৃত্তি আজ অনবদ্য শিল্প মাধ্যম। হাজার বছরের দ্রাঘিষ্ঠ গতিসীমায় চলতে চলতে পথ করে নিয়েছে এই প্রমিত অনার্য প্রায়োগিক বাচিক শিল্প। সমাজ পরিবর্তনে দুর্নিবার শব্দ মালার ফলিত উচ্চারণ আজ তার অন্যতম হাতিয়ার। তার বাস্তবতা আবৃত্তি শিল্প আজ সফল।

শেয়ার করুন
  • 1
    Share
The Post Viewed By: 147 People

সম্পর্কিত পোস্ট