চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১১ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৩০ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা হ চবি

চবি’র আবাসিক হল প্রভোস্টদের অতিরিক্ত সময় দেয়ার আহ্বান

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে নিয়মিত প্রভোস্ট না থাকার অভিযোগ উঠেছে। এতে করে যেকোন সময়ে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলে তা তাৎক্ষণিক সামাল দিতে নানা জটিরতার সম্মুখীন হয়। তবে এ বিষয়ে নিজের অবস্থান পরিস্কার করলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন দায়িত্ব প্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরিন আখতার।

তিনি বলেন, আবাসিক হলের প্রভোস্টদের সাথে বৈঠক হয়েছে। আমি তাদেরকে হলে অতিরিক্ত সময় দিতে বলেছি।

প্রভোস্টরা ক্যাম্পাসে না থাকলে ব্যবস্থা নেয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমিযেহেতু রুটিন দায়িত্বে আছি, এমন কোন সিদ্ধান্ত আমি এখন নিতে পারি না। তাছাড়া চলতি মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা রয়েছে। এখনই কোন গুরুত্বপূর্ণ পদে রদবদল আনা ঠিক হবে না। প্রভোস্ট কমিটির সদস্যদের সাথে কথা বলে বিষয়টি ঠিক করবো।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত চার বছরে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় প্রায় ২০ বারেরও অধিক হল তল্লাশি করে পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যার বেশির ভাগ তল্লাশি কার্যক্রম চালানো হয় গভীর রাতে। এতে আগ্নেয়াস্ত্র থেকে শুরু করে উদ্ধার করা হয় দেশীয় অস্ত্র। গভীর রাতে হল তল্লাশি চালাতে গিয়ে তৎকালীন সময়ে হল প্রশাসনের সাড়া পাওয়া যেত না অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, শুধু আবাসিক হলের প্রভোস্টই নয় ক্যাম্পাসের বাহিরে থাকেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের দায়িত্বে থাকা শিক্ষকরাও। এতে করে কোন ঘটনা ঘটলে তার সামাল দেয়া যেন দুষ্কর হয়ে উঠে। তাছাড়া একটি নির্দিষ্ট সময় ছাড়া প্রভোস্টরা হলে না আসায় ছাত্রদের পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ। এরআগে গত মে মাসে হলের দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ এনে শাহ জালাল হলে প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. সুলতান আহমদের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন করে আবাসিক ছাত্ররা। পরেদিনই তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী প্রভোস্টকে অব্যাহতি দেয়।

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব প্রক্টরের হাতে থাকলেও এই প্রক্টররাও ক্যাম্পাসে থাকেন না। সাবেক উপাচার্যের আমল থেকে শুরু হওয়া এই রীতি এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে।
শুধু তাই নয় আপদকালীন মুহূর্তে কোন ঘটনা ঘটলে তা সমাল দিতে ক্যাম্পাসে রাখা হয়েছে একজন সহকারী প্রক্টর। অথচ তিনি সময় মত তিনিও আসতে পারেন না ঘটনাস্থলে।

এদিকে, গতকাল বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরিন আখতারের সাথে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় প্রভোস্ট এবং প্রক্টরের। এতে প্রভোস্টদের আবাসিক হলে আরো সময় দিতে আহ্বান জানান ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য।
উপাচার্যের সাথে বৈঠকের বিষয় এ এফ রহমান হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য আমাদের আবাসিক হলে আরো সময় দিতে বলেছেন। হলে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে ব্যপারে সজাগ থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন।

The Post Viewed By: 51 People

সম্পর্কিত পোস্ট