চট্টগ্রাম রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১১ অক্টোবর, ২০১৯ | ১:১১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, সীতাকু-

হট্টগোলেই প- সীতাকু- আ.লীগের বর্ধিত সভা

সীতাকু- উপজেলা আ.লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আহ্বান করা বর্ধিত সভা নেতাকর্মীদের হট্টগোলে ভেস্তে গেছে। এতে ওই সভায় আ.লীগের ওয়ার্ড কমিটিগুলোর সম্মেলনের সিদ্ধান্ত হ্বার কথা থাকলেও তা আর হয়নি। তবে উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন পূর্ব নির্ধারিত ১৬ নভেম্বরেই অনুষ্ঠিত হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, সর্বশেষ ২০১২ সালে সীতাকু- উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হ্বার কথা থাকলেও কার্যত ৭ বছরেও আর কোন সম্মেলন হয়নি। সম্মেলন নিয়ে দলে বিভিন্ন সময় মতানৈক্য সৃষ্টি হয়। তবে অতি সম্প্রতি চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আ.লীগের সভায় আগামী ১৬ নভেম্বর সীতাকু- উপজেলা আ.লীগের সম্মেলনের সিদ্ধান্ত দেন নেতাকর্মীরা। কিন্তু তার আগে ৯টি ইউনিয়ন ও প্রত্যেকটি ওয়ার্ড কমিটির সম্মেলন করতে বলা হয়। এ সম্মেলনে সমন্বয়ের দায়িত্ব দেয়া হয় উত্তর জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি ও মহানগর পিপি এডভোকেট ফকরুদ্দিনকে।

এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতেই উপজেলা আ.লীগ গত বুধবার বর্ধিত সভা আহ্বান করে। বিকাল সাড়ে ৩টায় পৌরসভা সংলগ্ন জেলা পরিষদ পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. ইসহাকের সভাপতিত্বে শুরু হওয়া এ সভায় উপস্থিত হন সীতাকু- আসনের সংসদ সদস্য দিদারুল আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম আল মামুন ও থানা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়াসহ নেতাকর্মীরা। এতে সিদ্ধান্ত হয় যে আগামী ২ নভেম্বর থেকে ১৩ নভেম্বরের মধ্যে সকল ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। একইভাবে ওয়ার্ড আ.লীগের সম্মেলন বিষয়ে আলোচনা শুরু হলে বাড়বকু- ইউনিয়ন আ.লীগের আহ্বায়ক কমিটি ও বারৈয়াঢালা আ.লীগের আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে নেতাকর্মীরা মতানৈক্য জড়িয়ে পড়েন। এসব কমিটিকে একপক্ষ বৈধ দাবি করলে আরেকপক্ষ অবৈধ আখ্যা দেয়। একপর্যায়ে এসব কমিটি নিয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য রাখেন এমপি দিদারুল আলম ও থানা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া। এছাড়াও নেতাকর্মীরা মতানৈক্য জড়িয়ে পড়ে হট্টগোল সৃষ্টি হলে শেষ পর্যন্ত ওয়ার্ড আ.লীগের কাউন্সিলের বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব হয়নি। শেষে বর্ধিত সভা মুলতবি করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সীতাকু- উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া বলেন, ২ নং ইউনিয়ন ও ৫ নং ইউনিয়ন আ.লীগের কমিটি নিয়ে মতানৈক্যর কারণে সভাটি মুলতবি হয়েছে। তাই ওয়ার্ড আ.লীগের কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত নেয়া যায়নি। আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. ইসহাক বলেন, সভাটি সকল নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে প্রাণবন্ত ছিল। কিন্তু দুটি ইউনিয়নের আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে মতানৈক্য সৃষ্টি হলে কাউন্সিলের জেলা সমন্বয়কারী এডভোকেট ফকরুদ্দিন জানান, এসব বিষয়ে জেলা নেতৃবৃন্দ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন। শেষে সভাটি মুলতবি করা হয়। তবে বড় কোন হট্টগোল হয়নি বলে দাবি করেন তিনি। সীতাকু- উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম আল মামুন বলেন, চারটি ইউনিয়নে আহ্বায়ক কমিটি আছে। এর মধ্যে দুটি নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। এতে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় সভাটি মুলতবি করা হয়েছে।

The Post Viewed By: 37 People

সম্পর্কিত পোস্ট