চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৩৫ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাউজান

চুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়নি

ভিসি ড. রফিকুল আলম

বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকা- নিয়ে সারাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ এবং উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হলেও চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় চুয়েটের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। ওই হত্যাকা- নিয়ে এ পর্যন্ত মিছিল, সভা-সমাবেশ কিংবা কোন অঘটন ঘটেনি। এদিকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফসের ড. রফিকুল আলম পূর্বকোণের সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছে বলেছেন ‘দেশে ছাত্র রাজনীতি না থাকলে নেতৃত্ব সৃষ্টি হবেনা। ছাত্র রাজনীতির দরকার আছে। ছাত্র রাজনীতির অর্থ হচ্ছে, ক্যাম্পাসে ছাত্রদের একাডেমিক এবং ক্যাম্পাস অবস্থাগত বা সংশ্লিষ্ট যেসব সমস্যা আছে তা, যথাযথভাবে যথাস্থানে বা কর্তৃপক্ষের কাছে উপস্থাপন করে সমস্যার সমাধান করা। দাবি আদায়ের জন্য কাজ করা। ভিসি ছাত্র ‘রাজনীতির প্রয়োজন আছে’ মন্তব্য বলে করে বলেন ‘ছাত্র রাজনীতির কারণে যেসব অশান্তি সৃষ্টি হচ্ছে, তার জন্য নির্দিষ্ট কিছু আইন করে দিতে হবে। ছাত্র রাজনীতির ক্ষেত্রে কিছু নির্দিষ্ট আইন করে দিয়ে তার মধ্য থেকে রাজনীতি করতে হবে। এর বাইরে কিছু করতে তারা পারবেনা। তাহলে ছাত্র রাজনীতি সঠিকভাবে চলবে।’ তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন ‘ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করা হলে জাতীয় রাজনীতি কোত্থেকে আসবে?। এখান থেকেই তো আসবে। ছাত্র রাজনীতির কারণে হত্যাকা-, মারামারি অশান্তি হচ্ছে- এমন প্রশ্নের জবাবে ভিসি বলেন ‘এটার একটু প্রভাব পড়ছে, তবে এ জন্য ছাত্ররানীতিকে দোষ দিলে হবেনা, এটার জন্য কারা দায়ী এর পেছনে কারা আছে, কাজ করছে, তা দেখতে হবে। ছাত্রদের মোটিভেট করতে হবে যে, ছাত্ররাজনীতি এদেশের আন্দোলন সংগ্রামে ভূমিকা পালন করেছে। স্বাধীনতা সংগ্রামে ছাত্ররা মোটিভেট করে বঙ্গবন্ধুর গতিশীল নেতৃত্বে পাকিস্তানী বাহিনীর সাথে জয়লাভ করেছে। তৎকালীন প্রতিটি ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মী অপরিসীম পরিশ্রম করেছিলেন। ছাত্র রাজনীতির ইতিহাস গৌরবের ইতিহাস। কিন্তু কিছু ছাত্র পথচ্যুৎ হয়ে ভুল করলে, তাতে আমরা ছাত্র রাজনীতিকে দোষারোপ করতে পারিনা।’

ভিসি বলেন ‘আমি মনে করি জাতীয়ভাবে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করা যাবেনা। বন্ধ করাটাও ঠিক হবেনা। ছাত্রদের মাধ্যমেই আগামী জাতীয় নেতৃত্ব সৃষ্টি হবে। সুতরাং এটি বন্ধ হলে জাতীয় নেতৃত্ব শূন্য হবে।’ চুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকের বলেন ‘চুয়েটের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

The Post Viewed By: 92 People

সম্পর্কিত পোস্ট