চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৩৫ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইডিইউ ভিসি সিকান্দর খান

লেজুড়বৃত্তি নয়, রাজনীতিতে সুস্থ ধারা ফিরে আসুক

ছাত্ররাজনীতি যেভাবে চলছে, এটাকে রাজনীতি বলে না। ছাত্ররা করে বলেই ছাত্ররাজনীতি নাম পাচ্ছে। কারণ ছাত্ররাজনীতির গতি-প্রকৃতি ভিন্ন। ছাত্রদের উপর অভিভাবক রয়েছে। সেটা হচ্ছে প্রশাসন বা শিক্ষক। ছাত্রদের সামাল দিতে হয়, আবার জ্ঞানও দিতে হয়। এখন আমি সামাল দেব কিভাবে? কারণ আমাকে যারা বানিয়েছে তারা আমার উপর রুষ্ট হচ্ছে কিনা, চেয়ার থাকবে কিনা- পেছনে সেই ভয় কাজ করে। বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি বন্ধের বিষয়ে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির ভিসি প্রফেসর সিকান্দর খান বলেন, রাজনীতির ভিত ভেঙে গেছে। ঘরের সব পিলার নষ্ট হয়ে গেলে ঘরটি ভেঙে ফেলা উচিত। না হলে ঘর ভেঙে পড়ে সবাই মরবে।

নিজের সন্তানের উদাহরণ দিয়ে শিক্ষাবিদ সিকান্দর খান বলেন, আমার ছেলেমেয়ে বুয়েটে পড়াশোনা করেছে। এখন দেশের বাইরে রয়েছে। তাদের কাছে জানতে চেয়েছিলাম, তোদের সময় কি এই অবস্থা ছিল ? তারা বলল, তা তো কল্পনাই করিনি।
অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কি শিক্ষণীয় হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তো বলেছেন সব বিশ্ববিদ্যালয়ে তল্লাশি চালাবেন। এই ঘোষণাকে সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন- শিক্ষক, ছাত্র এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সবাইকে তল্লাশিতে সহযোগিতা করা উচিত। হল বা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অস্ত্র-শস্ত্র বের করে দেওয়া উচিত।

ছাত্র রাজনীতি কি বন্ধ করে দেওয়া উচিত কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করার কোন কারণ নেই।

কোন রাজনীতি বন্ধ করা উচিত না। কারণ সমাজে কেউ সমাজনীতি করবে, কেউ রাজনীতি করবেন। একেক মানুষের একেকটা গুণ রয়েছে। কারো যদি রাজনীতির প্রতি টান থাকে, সেই রাজনীতি করুক। শিক্ষক করেন করুক, সাংবাদিকরা করেন করুক। ছাত্রদের মধ্যেও যারা রাজনীতি করবে আমি তো অস্বীকার করতে পারব না। স্বাভাবিক প্রণবতা থাকলে বাধা দেওয়া উচিত না। তবে আমাদের রাজনীতির মধ্যে পলিটিক্স ঢুকে গেছে। ছাত্র রাজনীতি লেজুড়বৃত্তি হয়ে গেছে। আমাদের রাজনৈতিক শক্তি সুস্থধারায় পরিচালিত হচ্ছে না। প্রতিটি দল ছাত্রদের লাঠিয়াল বাহিনী হিসেবে পুষে। অবশ্য, অনেকেই লেজুড়বৃত্তি করে ফায়দা লুটে। অপকর্ম করে থাকে। লেজুড়বৃত্তি নয়, রাজনীতিতে সুস্থ ধারা ফিরে আসুক। ক্ষুদ্র স্বার্থের বাইরে রাজনীতির বৃহত্তর স্বার্থে নিজস্ব গতিতে পরিচালিত হোক।

The Post Viewed By: 41 People

সম্পর্কিত পোস্ট