চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

১০ অক্টোবর, ২০১৯ | ১:৫৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা হ পটিয়া

পটিয়ায় ইউপি সদস্যকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা

পটিয়া উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের মহিলা সদস্য নাছিমা আকতারকে শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগ ওঠেছে। ওই মহিলা মেম্বার বাদি হয়ে পটিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফৌজদারি দন্ড বিধিতে একটি মামলা করেছেন। মামলা নং- ৩৩৪/১৯। এটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পটিয়া থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

জানা গেছে, উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের হাতিয়ার ঘোনা মৌজা এলাকার কাজির পুকুর নিয়ে দুটি পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। হাতিয়ারঘোনা এলাকার নুরুল ইসলাম খাঁন গং ও হিলচিয়া এলাকার আহমদ হোসেনের মধ্যে বিরোধের বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন। তাদের মধ্যে একটি পক্ষ পুকুর থেকে মাছ ধরতে গেলে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে মৌখিকভাবে অভিযোগ করেন। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসানুল হকের নির্দেশে ৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার নাছিমা আকতারকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিষয়টি দেখার জন্য বলেন। এর প্রেক্ষিতে নাছিমা ঘটনাস্থলে গেলে আহমদ হোসেন, নুরুল ইসলাম, নুরুল আবছার, আবুল কালাম শুনু মহিলা মেম্বারকে শারীরিকভাবে নাজেহাল করে। ঘটনার পর মহিলা মেম্বার নিজে পটিয়া থানায় গত ১ অক্টোবর একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পটিয়া থানায় ডায়েরি করার পরের দিন ক্ষিপ্ত হয়ে মহিলা মেম্বারকে পুনরায় শ্লীলতাহানির চেষ্টা ও মারধর করে। ওই সময় চিৎকার করলে এলাকার লোকজন দৌড়ে এসে মহিলা মেম্বারকে উদ্ধার করে পটিয়া হাসপাতালে নিয়ে যায়। মহিলা মেম্বার নাছিমা আকতার জানিয়েছেন, দুই পক্ষের বিরোধের কারণে চেয়ারম্যানের নির্দেশে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। কোন কারণ ছাড়াই আহমদ হোসেনের লোকজন তাকে মারধর ও শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছে। যার কারণে তিনি থানায় একটি ডায়েরি ও পরবর্তীতে আদালতে ফৌজদারী দ-বিধিতে একটি এজাহার দাখিল করেছেন।

পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানিয়েছেন, ইউপি সদস্যকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা সংক্রান্তে থানায় যে অভিযোগ রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সত্যতা পেলে আসামিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 164 People

সম্পর্কিত পোস্ট