চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৯ অক্টোবর, ২০১৯ | ১:৪৭ পূর্বাহ্ন

পূর্বকোণ ডেস্ক

শারদীয় দুর্গোৎসবের পূজাম-প পরিদর্শনে নেতৃবৃন্দ

সমন্বিত প্রচেষ্টায় অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রপ্রতিষ্ঠা করা সম্ভব

নগরীর বিভিন্ন পূজাম-প পরিদর্শনে বক্তারা বলেন, সমন্বিত প্রচেষ্টায় অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রপ্রতিষ্ঠা করা সম্ভব
শিক্ষা উপমন্ত্রী : ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমেই অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ও সমাজের বিশৃঙ্খলা দূর করা সম্ভব। তিনি গত ৭ অক্টোবর পূজা উদযাপন পরিষদ মহানগরীর উদ্যোগে নগরীর প্রধান পূজামন্ডপ জেএম সেন হলে শারদীয়া দুর্গোৎসবের মহানবমীতে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। পরিষদের সভাপতি এডভোকেট চন্দন তালুকদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের ডেপুটি এটর্নি জেনারেল এডভোকেট আবুল হাশেম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহাজাদা মহিউদ্দিন, চসিক কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, পরিষদের সাবেক সভাপতি সাধন ধর, লোকনাথ ব্রহ্মচারী সেবক ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শিবু প্রসাদ দত্ত, পরিষদের সহ-সভাপতি লায়ন দুলাল চন্দ্র দে। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত। কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, পরিষদের সিনিয়র সদস্য পুলক খাস্তগীর ও দোলন দেব এর যৌথ সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অর্পন কান্তি ব্যানর্জী, যুগ্ম সম্পাদক হিল্লোল সেন উজ্জ্বল, মিথুন মল্লিক, এড. নটু চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক সজল দত্ত, সিনিয়র সদস্য নিখিল ঘোষ, সাধন সিংহ, প্রদীপ শীল, পরিষদ কর্মকর্তা বিপ্লব সেন, সুকান্ত মহাজন টুটুল, এড. তপন কুমার দাশ, চন্দন কুমার পালিত, অঞ্জন দত্ত, পিন্টু দত্ত তমাল, রাহুল দাশ, সৌরেন দত্ত প্রমুখ।

এ বি এম ফজলে করিম এমপি : রাউজান থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা জানিয়েছেন, রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেছেন, দুর্গোৎসব এখন সর্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে। তিনি গতকাল মঙ্গলবার রাউজান পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে অপরাজিতা সেবাশ্রমে শারদীয়া দুর্গাপূজার বিজয়া সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রিয়তোষ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সুমন দে’র সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবীর সোহাগ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আবদুল ওহাব, উপজেলা সহকারী ভূমি কমিশনার এহসান মুরাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সি. সহ সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান, ২য় প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, ওসি কেপায়েত উল্লাহ, কাউন্সিলর এডভোকেট দিলীপ কুমার চৌধুরী, এডভোকেট সমীর দাশগুপ্ত, এডভোকেট দীপক কান্তি দত্ত। বক্তব্য দেন রুনুু ভট্টাচার্য্য, শ্যামল দত্ত, রবীন্দ্র লাল চৌধুরী, অপূর্ব ভট্টাচার্য্য, অনুপ চক্রবর্তী, তপন দে, দিপলু দে দিপু, লক্ষ্মী কান্ত চৌধুরী, উজ্জ্বল দাশগুপ্ত, বিপ্লব মহাজন, জিকু দত্ত। এতে অতিথি ছিলেন কামরুল ইসলাম বাহাদুর, ইরফান আহমদ চৌধুরী, শাহ আলম চৌধুরী, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, এস.এম বাবর, নজরুল ইসলাম চৌধুরী, নুরুল ইসলাম চৌধুরী শাহাজান, জানে আলম জনি, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা, জসিম উদ্দিন, হাসান মো. রাসেল, মাহাবুবুল আলম, মুছা আলম খান চৌধুরী, আবদুল লতিফ, সারজু মো. নাছের, শওকত হোসেন প্রমুখ। এবার রাউজান উপজেলায় দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ ম-পে (২৩২টি) দুর্গোৎসব পালন করা হয়।

সামশুল হক চৌধুরী এমপি : শারদীয় দুর্গোৎসবের মহাঅষ্টমীতে পটিয়ার কোলাগাঁও, হাবিলাসদ্বীপ, ধলঘাট, দক্ষিন ভুর্ষি ও পটিয়া পৌরসভার এলাকা ঘুরে ঘুরে পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ হক চৌধুরী এমপি। এসময় তিনি পুজার্থীদের সাথে শারদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।এ সময় উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল হাসান, পটিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ বোরহান উদ্দিন, হুইপের সহকারী একান্ত সচিব হাবিবুল হক চৌধুরী, উপজেলা আ.লীগ নেতা আবু ছালেহ চৌধুরী, এম.এজাজ চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম শিরু, পুজা উৎযাপন পরিষদের নেতা ঋষি বিশ্বাস, জিতেন গুহ, সৌমেন চক্রবর্তী, চেয়ারম্যান রনবীর ঘোষ টুটুন, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক হাসান উল্লাহ চৌধুরী, আবু জাফর, বদিউল আলম তুষার, মৃদুল নন্দী, মো.আবছার, শফিকুল ইসলাম বাবুল, রবিউল হোসেন রুবেল, স্বপন মিত্র প্রমুখ।

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি : প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি গত ৭ অক্টোবর হাটহাজারী উপজেলার প্রায় ৪০টি পূজাম-প পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইউনুছ গণি চৌধুরী, ওসি বেলাল উদ্দীন জাহাঙ্গীর, ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট মোহাম্মদ শামীম, হাসান জামান বাচ্চু, সৈয়দ মনজুরুল আলম, আলমগীর জামান, নুরুল আবছার, জেলা পূজা পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক অলক মহাজন, হাটহাজারী পূজা পরিষদের সভাপতি মাস্টার অশোক কুমার নাথ, সাধারণ সম্পাদক রিমন মুহুরী, যুগ্ম সম্পাদক পাঁচকড়ি শীল, সুজন তালুকদার, দিপক মজুমদার, পলাশ দে, ডা. স্বপন নাথ, জয়টু শীল, কৃষ্ণ বণিক, নির্মল নাথ, বিজন পাল, মো. শহিদুল্লাহ শহিদ, বিশ্বনাথ চৌধুরী, অধ্যাপক শ্রীমান কান্তি ঘোষ, ডা. বিজয় সরকার, রনধীর চৌধুরী ভুলন, মেম্বার লিটন দাশ, সুমন চৌধুরী, কল্যাণ পাল, অরূপ রায় অপু, সুভাষ রাহা, যুবরাজ নাথ, নাথুরাম চৌধুরী, কানু দাশ, সঞ্জয় ঘোষ, রবিন শীল, মো. নেজাম উদ্দীন টনি, মো. সিরাজ, মো. মহিউদ্দীন, নিটু শীল, অরুণ কুমার দে, উজ্জ্বল দে প্রমুখ।

বোয়ালখালীতে সাংসদ বাদল : বোয়ালখালীতে শারদীয়া দুর্গা পূজায় ম-প পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম-৮ আসনের সাংসদ মঈন উদ্দীন খান বাদল। গত ৭ রাতে উপজেলা পূজাম-প পরিদর্শন করে তিনি। এ সময় তিনি বলেন, শারদোৎসব বাঙালি উৎসব। অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে আবহমানকাল ধরে লালন করছে বাঙালিরা। এ উৎসবে সর্বজনীনতার সম্মিলন শুভ শক্তির জাগরণ ঘটায়। এতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) একরামুল ছিদ্দিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন মিয়া, জেলা পরিষদ সদস্য মো. ইউনুচ, থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ, চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আবদুল কাদের সুজন, বোয়ালখালী পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম বাবুল, ইউপি চেয়ারম্যান কাজল দে, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল মোহাম্মদ হাসেম, জাসদ উপজেলা সভাপতি মনির উদ্দীন আহমদ খান, সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুল হক, পূজা পরিষদের উপদেষ্ঠা বরুণ বিশ্বাস, সহ-সভাপতি মিহির কান্তি বিশ্বাস, সুকুমার নাথ, সাধারণ সম্পাদক অধীর দে, সাংগঠনিক সম্পাদক শুভাশীষ চৌধুরী, দীপেন চৌধুরী, টিটু চৌধুরী নেতৃবৃন্দ।নেতৃবৃন্দ পৌরসভা, কধুরখীল, পোপাদিয়া, সারোয়াতলী, আমুচিয়া, আহলা কড়লডেঙ্গা ও শাকপুরার বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করে শারদীয়া শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

পূজা উদযাপন পরিষদ ফটিকছড়ি শাখা : পরিষদের উদ্যোগে গত ৭ অক্টোবর শারদীয় দুর্গাপূজা মহানবমীতে ফটিকছড়ি উপজেলা কেন্দ্রীয় সেবাখোলা মন্দিরে ধর্মীয় আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ফটিকছড়ি কেন্দ্রীয় মন্দির পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মিলন কান্তি নাথের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য আখতার উদ্দিন মাহমুদ পারভেজ। এতে উদ্বোধক ছিলেন ফটিকছড়ি উপজেলা জন্মাষ্টমী পরিষদের সভাপতি রনজিত কুমার চৌধুরী। প্রধান ধর্মীয় বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ-হিন্দু- বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি ডা. বিজয় কৃষ্ণ বৈষ্ণব। অতিথি ছিলেন ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সায়েদুল আরেফিন। আলোকিত অতিথি ছিলেন পূজা উদযাপন পরিষদ ফটিকছড়ি শাখার সভাপতি মাস্টার রতন কান্তি চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন ফটিকছড়ি প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহেদ কোরাইশী, ফটিকছড়ি প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক মোহাম্মদ মনজু, সাংবাদিক মোহাম্মদ ফরিদ, লায়ন এ কে জাহেদ চৌধুরী, পূজা উদযাপন পরিষদ ফটিকছড়ি শাখার সাধারন সম্পাদক কাজল শীল প্রমুখ।

লক্ষ্মীছড়ি জোন কমান্ডার : সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার ম-প পরিদর্শন করলেন লক্ষ্মীছড়ি জোন কমান্ডার লে. কর্নেল মো. জাহাংগীর আলম। বিজয়া দশমীর শেষ দিনে মঙ্গলবার সকালে তিনি লক্ষ্মীছড়ি ব্রহ্মময়ী কালী মন্দিরে পরিদর্শনে যান। এসময় পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অজিত বিকাশ দত্ত জোন কমান্ডারকে অভ্যর্থনা জানান। এ সময় সংক্ষিপ্ত এক বক্তৃতায় জোন কমান্ডার লে. কর্নেল মো. জাহাংগীর আলম বলেন, লক্ষ্মীছড়িতে খুব সুন্দরভাবে পূজা উদযাপন হচ্ছে। পরে পূজা উদযাপন কমিটির হাতে নগদ অনুদান প্রদান করেন। লক্ষ্মীছড়ি জোনের ক্যাপ্টেন মো. আশফাক বিন আজিজ ও জোনের এসএম অনারারী লে. মো. বাবুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও পূজা উদযাপন কমিটির সদস্য, ধর্মীয়গুরু ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

রামগড় : নিজস¦ সংবাদদাতা জানিয়েছেন, খাগড়াছড়ির রামগড় ভারত সীমান্তবর্তী ফেনী নদীতে দু’দেশের হাজারো হিন্দু ধর্মাবলম্বীর অংশগ্রহণে সম্পন্ন হয়েছে দেবী দুর্গার বির্সজন। গতকাল মঙ্গলবার ফেনী নদীতে এ বির্সজন অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়। এ বির্সজন অনুষ্ঠানকে ঘিরে ফেনী নদী পরিণত হয় দু’দেশের মানুষের মিলন মেলায়। রামগড় দক্ষিণেশ্বরী কেন্দ্রীয় কালীবাড়িতেই উপজেলার একমাত্র সার্বজনীন দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল মঙ্গলবার কালীবাড়ি থেকে বিজয়া দশমীর র‌্যালি বের হয়। দেবী দুর্গাসহ অন্যান্য প্রতিমা নিয়ে র‌্যালিটি পৌরসভার জগন্নাতপাড়া, ডেবারপাড়, মাস্টারপাড়া, রামগড় বাজার, আনন্দপাড়া প্রভৃতি এলাকা প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে শত শত সনাতন ধর্মাবলম্বী ত্রিপুরা উপজাতীয় ও বাঙালি হিন্দু নারী, পুরুষ, আবালবৃদ্ধবণিতা অংশ নেন। এ সময় সীমান্তের এপার ও ওপারে সাব্রুম অংশে হাজার হাজার নারী পুরুষ নদীর তীরে সমবেত হন দেবী দুর্গাকে বিদায় জানাতে । সীমান্তের ওপার থেকেও উলু ধ্বনি ও শঙ্খ বাজিয়ে দেবী দুর্গার বির্সজনে অংশ নেন ভারতীয়রা।

শুলকবহর ওয়ার্ড : শারদীয় দুর্গাপূজার নবমীতে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী আকবর। গত ৭ অক্টোবর সোমবার গভীর রাত পর্যন্ত তিনি ৮ নং শোলক বহর ওয়ার্ডের আওতাধীন বিভিন্ন পূজাম-প পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বলেন, দুর্গাপূজা উৎসব সর্বজনীন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতা ও সুদক্ষ নেতৃত্বের কারণে শান্তিপূর্ণভাবে সনাতন ধর্মাবলম্বিরা তাদের ধর্মী আচার-অনুষ্ঠান পালন করতে পারছে। এ যেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক অন্যন্য বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এই অর্জন আমাদেরকে ধরে রাখতে হবে। অসাম্পদায়িক চেতনায় সমৃদ্ধ অগ্রগতির যাত্রা চলমান রাখতে সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীনের নেতৃত্বে জননেত্রী শেখ হাসিনার পাশে থাকার অনুরোধ জানান তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নাছিরবাদ ওয়ার্ড আ’লীগের সহ-সভাপতি একেএম জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি সাধন চন্দ্র রায়, ওয়ার্ড মহিলা আ’ লীগের সভানেত্রী শিমুলী শীল, সিনিয়র সহ-সভাপতি রুবি আক্তার, আদর্শ পাড়া পূজা কমিটির সভাপতি সুদিশ দাস ও সাধারণ সম্পাদক শ্যামল দাস প্রমুখ।

সাদাত আনোয়ার সাদী : গত ৭ অক্টোবর ফটিকছড়ির বিভিন্ন পূজাম-প পরিদর্শন করে বস্ত্র বিতরণ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সাদাত আনোয়ার সাদী। ম-প পরিদর্শনকালে তিনি সকলকে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় সমৃদ্ধ অগ্রগতির যাত্রা চলমান রাখতে প্রধানমন্ত্রীর হাত কে শক্তিশালী করার আহবান জানান। এ সময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সায়েদুল আরেফীন, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা পরেশ চন্দ্র চৌধুরী, মহেষখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রভাষ ধর, সুমন বণিক, সারোয়ার জামাল বাবুল, মো. আলী, এস এম সাগেদ, হাসানুল করিম রাসেল প্রমুখ। পরে তিনি পূজার্থীদের মাঝে নগদ অর্থ ও বস্ত্র বিতরণ করেন।

দক্ষিণ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ : পরিষদের উদ্যোগে গত ৭ অক্টোবর দক্ষিণ জেলার বিভিন্ন উপজেলার পূজা ম-প পরিদর্শন করেন উদযাপন আহ্বায়ক কমিটির সদস্য পরিমল দত্ত। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকার ড. এম এ কাশেম, মো. আনোয়ার রিংকু, সংগঠনের উপদেষ্টা নিরোদ বরণ আচার্য্য, শ্রী রাস বিহার দত্ত, সজল দে, বেলাল উদ্দিন শাহীন, প্রভাকর আচার্য্য, প্রদীপ আচার্য্য, পলাশ আচার্য, দেবাশীষ আচার্য, নেপাল আচার্য, প্রিয়তোষ আচার্য্য, তপন আচার্য্য, সুভাশীষ আচার্য্য, মৃদুল আচার্য্য, বিকাশ আচার্য্য, বিজয় আচার্য্য, বিপ্লব আচার্য্য, স্মৃতি আচার্য, রাজীব কুমার দত্ত, উত্তম আচার্য্য, মনিন্দ্র আচার্য্য, শুভ আচার্য্য প্রমুখ।

ইপিজেড ও পতেঙ্গা থানা পূজা উদযাপন পরিষদ : পতেঙ্গা সমূদ্র সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে ইপিজেড ও পতেঙ্গা থানা পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে অভিবাদন মঞ্চে বক্তব্য রাখেন সাবেক কাউন্সিলর হাজী আব্দুল বারেক,নগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এড. চন্দন তালুকদার,সাধারণ সম্পাদক প্রসাদ দাশ অজিত, নগর সদস্য লিটন মহাজন, লিটন চৌধুরী, উত্তম শীল, সৈকত মহাজন সাজু, সুজন শীল, উত্তম মহাজন নব এবং থানা কমিটির নেতৃবৃন্দ। চসিক এর প্রতিমা বিসর্জনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন কাউন্সিলর হাজী ছালেহ আহম্মেদ চৌধুরী,নগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এড. চন্দন তালুকদার,লায়ন শংকর সেন,মহিলা কাউন্সিলর শাহীনুর বেগম, ইপিজেড ও পতেঙ্গা থানা পূজা উদযাপন পরিষদের সৈকত মহাজন সাজু,সুজন শীল,উত্তম মহাজন এবং থানা কমিটির নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন ।অতিথি ছিলেন, নগর পূজা কমিটির সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা লায়ন অরবিন্দু দাশ অরুন,সদস্য লিটন চৌধুরী,পতেঙ্গা থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া, ওয়াহিদুল আলম মাস্টার,ওয়াহিদ আলম চৌধুরী প্রমুখ। সিটি মেয়র তিন থানার তিন মন্ডপ ও প্রতিমাকে শ্রেষ্ঠত্বের ক্রেস্ট-সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন।-বিজ্ঞপ্তি

কর্ণফুলী বড়উঠান : ভক্তপাড়া পঞ্চানন সংঘের উদ্যোগে নবীন সংঘ মন্দির ৯নম্বর ওয়ার্ড বড়উঠান ২নম্বর ইউনিয়নে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা কায়ছারুজ্জামান খান ফারুক। তিনি বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। বাংলাদেশ সম্প্রীতির স্থান। প্রতিটি ধর্মের মানুষ এদেশে স্বাধীনভাবে ধর্ম পালন করতে পারে। উপস্থিত ছিলেন সুভাষ দে, ছোটন দে, রনধির দে, রাজীব দে, টিপু দে, তপন দে, সজিব, জয়দেব, ছোটন দে, শিমুল দে,সুমন দে প্রমুখ।

বাগমনিরাম ওয়ার্ড : দুর্গোৎসবের মহাসপ্তমীতে বাগমনিরাম ওয়ার্ড রবি দাশ কলোনীতে শিব মন্দির পূজাম-পে দরিদ্র মহিলাদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ ও জামাল খান ওয়ার্ডের হেমসেন লেইন পূজা ম-প পরিদর্শন করেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহীদ, কোতোয়ালী থানা বিএনপি সভাপতি মঞ্জুর রহমান চৌধুরী, শফিক আহমেদ, আবু মুসা, আবদুল হাই, সালাহ উদ্দিন লাতু, চকবাজার থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক বেলায়েত হোসেন, বাগমনিরাম বিএনপির সভাপতি রাসেল পারভেজ সুজন, সাধারণ সম্পাদক আবু ফয়েজ, এনায়েত বাজার বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ উল্লাহ রাশেদ প্রমুখ।

কাউন্সিলর আফরোজা কালাম : চসিকের সংরক্ষিত ১২ নং আসনের কাউন্সিলর ও মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগ এর কোষাধ্যক্ষ আফরোজা কালাম ২৭, ৩৭ ও ৩৮ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন পূজা ম-প পরিদর্শন করেন।এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হাজী আজাহার মিয়া, যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য দেবাশীষ পাল দেবু, নগর ছাত্রলীগের সদস্য ইমতিয়াজ হোসেন সুমন, যুবলীগ নেতা সালাউদ্দিন বাবর, সোহেল, মো. জনি, বন্দর থানার পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি অশোক দত্ত, সাধারণ সম্পাদক রতন দাশ, প্রিয় লাল দে, পলাশ দে, সাগর দাশ লিটন, দিলীপ দাশ, রাজিব দত্ত, মান্না দে, সবুজ দে রতন, মতিলাল দে, বাবুল দে, নিলু দাশ, মিলি চৌধুরী প্রমুখ।

আলকরণ ওয়ার্ড : নগরীর ৩১নং আলকরণ ওয়ার্ডের আওতাধীন ৬টি দুর্গাপূজাম-প যথাক্রমে পি.কে সেন কম্পাউন্ড, দোভাষ কলোনী, কালী চক্রবর্ত্তী কলোনী, রক্ষাকালী বাড়ী, পোষ্ট অফিস গলি ও কালী বাড়ী দুর্গাপূজা ম-পে কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ইয়াছির আরাফাতের নিজ উদ্যোগে প্রতিটি মন্ডপে পূজারীদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ, মন্ডপে নগদ অর্থ অনুদান ও বস্ত্র সামগ্রী গত ৫ অক্টোবর বিতরণ করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন পি.কে সেন কম্পাউন্ড শারদীয় পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অনুপম ঘোষ অপু, সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী, উপদেষ্টা অসীম দাশ বাবলা, সহ-সভাপতি রাম চক্রবর্ত্তী,যুগ্ম সম্পাদক হরিপদ দাশ, সুদীপ দাশ, ব্যবস্থাপনা সমন্বয়ক সুভাষ কান্তি বিশ্বাস, দোভাষ কলোনী রামঠাকুর মন্দির পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি চন্দন দাশ, টিপু মিত্র, নয়ন দে, সাধারণ সম্পাদক ইমন দাশ, রাজেশ চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক হৃদয় আকাশ, সনত, টারজেন, টিংকু দত্ত, কালী চক্রবর্তী কলোনী পূজা উদযাপন পরিষদ এর সভাপতি রাজীব ভট্টাচার্য্য, সাধারণ সম্পাদক ডা. সঞ্জীত চক্রবর্ত্তী অপু প্রমুখ।

এনায়েত বাজার মহিলা সংঘ : নগরীর এনায়েত বাজার গোয়ালপাড়ায় মহিলা সংঘ দুর্গাপূজা উদ্যাপন পরিষদ আয়োজিত পূজাম-পে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে মহাঅষ্টমীতে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান গতকাল রবিবার অনুষ্ঠিত হয়। লোকনাথ ব্রহ্মচারী সেবক ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সমাজসেবক শিবু প্রসাদ দত্তের ব্যক্তিগত উদ্যোগে অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করা হয়। এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা সংঘ দুর্গাপূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি মিনা চৌধুরী। প্রধান অতিথি ছিলেন লোকনাথ ব্রহ্মচারী সেবক ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সমাজসেবক শিবু প্রসাদ দত্ত। প্রধান বক্তা ছিলেন সুদর্শন চক্রবর্তী। বিশেষ অতিথি ছিলেন জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ, লোকনাথ ব্রহ্মচারী সেবক ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ভবরঞ্জন বণিক, সদস্য অধ্যাপক রতন কুমার দাশ, প্রচার সম্পাদক এস প্রকাশ পাল। সঞ্চালনায় ছিলেন মহিলা সংঘ দুর্গাপূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গীতা রুদ্র।

বোয়ালখালী পূজা উদযাপন পরিষদ : বোয়ালখালীতে দুর্গা পূজাম-প পরিদর্শন করেছেন পূজা উদযাপন পরিষদ বোয়ালখালী শাখার নেতৃবৃন্দ।শনিবার মহাসপ্তমী পূজার দিন উপজেলার পৌর সদর, পশ্চিম সারোয়াতলী, জ্যৈষ্ঠপুরা, পোপাদিয়ার বিভিন্ন পূজাম-প পরিদর্শন করে সার্বিক বিষয়ে খোঁজ খবর নেন নেতৃবৃন্দ। পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, পূজা উদযাপন পরিষদ বোয়ালখালী শাখার আহ্বায়ক সুনীল চন্দ্র ঘোষ, সদস্য সচিব অমিত লালা, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ বোয়ালখালী শাখার সভাপতি সজল চৌধুরী, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান মহিলা ঐক্য পরিষদ দক্ষিণ জেলা সভাপতি রমা বৈদ্য, পরিষদের নেতা অপু কুমার বৈদ্য, কুমকুম দাশ, সুবল দাশ, সাংবাদিক রাজু দে, দেবাশীষ বড়–য়া রাজু, পিংকু কর, মাধব ধর, অনিক চৌধুরী বাসু ও আশীষ বিশ্বাস।

যুব রেড ক্রিসেন্ট : সরকারী সিটি কলেজ ইউনিটের উদ্যোগে গতকাল রবিবার দুর্গা পূজা উপলক্ষে কলেজের কর্মচারী ও ফিরিঙ্গীবাজার শাহ হাজী পাড়া এলাকার গরীব দুঃস্থ পরিবারের মাঝে বস্ত্র বিতরণ এবং শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় করা হয়।
কার্যক্রম পরিচালনা করেন ইউনিটের যুব প্রধান মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন কার্যকরী পরিষদ সদস্য হাবিবুর রহমান তুহিন, জাহিদুল ইসলাম, দীপ্ত ভট্টচার্য্য, তন্ময় বিশ্বাস, রাশনা শারমিন সদস্য প্রিয়ন্ত, নুর, ইরফান প্রমুখ।
বেটারী গলি : সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত শিশির দে’র সভাপতিত্বে ও নারায়ন দাশের সঞ্চালনায় ম-প প্রাঙ্গণে এক সম্প্রীতি সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ১৫নং বাগমনিরাম ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দিন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কাজল দেব, অসীম রায় চৌধুরী, আশীষ মিত্র, দয়াল সামন্ত, শিক্ষানুরাগী সঞ্জিত কুমার আচার্য্য, হারাধন ঘোষ সাধন দে, ডা. সন্তোষ কুমার দত্ত, প্রবীর দে প্রমুখ। সভাশেষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

The Post Viewed By: 105 People

সম্পর্কিত পোস্ট