চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৮ অক্টোবর, ২০১৯ | ৩:১৮ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁশখালী

বাস-ট্যাক্সি সংঘর্ষে নিহত ২ বাঁশখালী সড়কে, আহত ৫

চট্টগ্রাম-বাঁশখালী সড়কের (পিএবি সড়ক) পালেগ্রাম ফকিরনীর বর মসজিদ নামক স্থানে গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে বাস-সিএনজি ট্যাক্সি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই এনজিও কর্মী কার্তিক ম-ল (৪১) মারা গেছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হাফেজ মোহাম্মদ জিয়াউল হক (৪৫) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা সাড়ে ১১টায় মারা যান। এ দুর্ঘটনায় দুই মহিলা ও শিশুসহ আরো ৫ জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন নিহত জিয়াউল হকের স্ত্রী শাহানাজ বেগম (৩৫), তাঁর মেয়ে জোহরা আক্তার (২), হাসনা আক্তার (১৮), ইয়াসমিন আক্তার (৩০)। সিএনজি ট্যাক্সি চালক রুবেল (২৮) আহতে হয়েছে। আহতদের বাঁশখালী বেসরকারি মা ও শিশু হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশ নিহত কার্তিক মন্ডলের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল তৈরির পর ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা করেছেন। অপর লাশের ময়না তদন্তের প্রক্রিয়া চলছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাঁশখালী উপজেলা থেকে চট্টগ্রাম অভিমুখী সিএনজি ট্যাক্সির সাথে বিপরীত দিক চট্টগ্রাম থেকে বাঁশখালী প্রেমবাজার অভিমুখী বাস পালেগ্রাম নামক স্থানে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামের মাদাই আন্ডন মন্ডলের ছেলে এনজিও কর্মী কার্তিক মন্ডল (৪১) ঘটনাস্থলেই মারা যান। তিনি বাঁশখালীর শেখেরখীলে হ্যাবিট্যাটের সহযোগিতায় আর আর এফ বাস্তবায়িত চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের আর আর এফ (রুরাল রিকনস্ট্রাকশন ফাউন্ডেশন) এর কোঅর্ডিনেটর হিসেবে কর্মরত ছিলেন। গুরুতর আহত বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের আবদু রশিদের ছেলে হাফেজ জিয়াউল হক (৪৫) দুর্ঘটনার পর চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম নেওয়ার পথে মারা যান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাঁশখালী প্রধান সড়কের কালীপুর ইউনিয়নের পালেগ্রাম ফকিরনীর বর মসজিদের সামনে দুর্ঘটনা কবলিত চট্টগ্রাম অভিমুখী দ্রুতগামী সিএনজি ট্যাক্সিতে ৭ জন যাত্রী ছিলেন। প্রেমবাজার অভিমুখী বাসটি মুখোমুখি সজোরে ধাক্কা দিলে সিএনজির ২ জন যাত্রী রাস্তায় ছিটকে পড়ে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।
পুঁইছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. জহিরুল ইসলাম জানান, পূর্ব পুঁইছড়ি গ্রামের নিহত হাফেজ জিয়াউল হক তার শাশুড়ি অসুস্থ অবস্থায় ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাকে দেখতে যাওয়ার পথেই দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে এনজিও কর্মী কার্তিক মন্ডল শহরে অফিসে যাওয়ার পথেই দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মারা যান বলে জানা গেছে।
বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, বাস সিএনজি ট্যাক্সি সংঘর্ষের ঘটনায় দুইজন মারা গেছেন। চালক পলাতক রয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত বাস ও সিএনজি ট্যাক্সিটি আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

The Post Viewed By: 106 People

সম্পর্কিত পোস্ট