চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৮ অক্টোবর, ২০১৯ | ২:৫২ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম কলেজ ক্যাম্পাসে বিএনসিসি’র মহাপরিচালক

বৈরী পরিবেশেও মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে ক্যাডেটরা

বর্তমানে আমাদের তরুণ প্রজন্ম নানাভাবে বিপদগামী হচ্ছে। মাদক সেবন থেকে শুরু করে সামান্য বিষয়ে খুনাখুনির মত বৃহৎ অপরাধও করছে তারা। নেশার অতলে তলিয়ে যাচ্ছে নিজেরা। এভাবে ধ্বংস করছে নিজের জীবন ও পরিবার। কিন্তু সমাজের এমনি এক বৈরী পরিবেশের মধ্য দিয়েও বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) এর ক্যাডেটরা কাজ করে যাচ্ছে দেশের মানুষের জন্য। নিজেদের তৈরি করছে দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে। তাদের মধ্যে তৈরি হচ্ছে নেতৃত্বের গুণাবলী, সুশৃঙ্খল জীবন, সুমানবিক গুণাবলী ও বৈরী পরিস্থিতির সাথে খাপ খাওয়ানোর মত অদম্য সাহস। যেখানেই কোন প্রাকৃতিক বা মানুষের সৃষ্ট দুর্যোগ সেখানেই তারা ছুটে যাচ্ছে সাহায্য করতে। বাংলাদেশের দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনীর সাথে কাজ করে তারা। হয়ে উঠছে সেনাবাহিনীর সাহায্যকারী হাত। সপ্তাহব্যাপী প্রশিক্ষণে চট্টগ্রাম কলেজ ক্যাম্পাসে বিএনসিসি’র মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আবুল বাতেন খান একথা বলেন। গত রবিবার চট্টগ্রাম কলেজ শহীদ অবনী মোহন দত্ত অডিটরিয়ামে সদর দপ্তর কর্ণফুলী রেজিমেন্টের আওতাধীন ১২ বিএনসিসি ব্যাটালিয়ন ক্যাম্পিং-১৯-২০ এর সপ্তাহব্যাপী এই প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের আয়োজন করে। ব্রিগেডিয়ার জেনারেল বাতেন খান ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। এসময় সাথে ছিলেন কর্ণফুলী রেজিমেন্টের রেজিমেন্ট কমান্ডার লে. কর্নেল মো. সফিকুর রহমান, জি ব্যাটালিয়ন কমান্ডার মেজর প্রফেসর ড. শওকোতুল মেহের, ব্যাটালিয়ন এডজুটেন্ট মেজর সৈয়দ জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর, বিএনসিসিও, পিইউও ও টিইউওগণ। পরিদর্শনকালে সুশৃঙ্খল গার্ড অব অনার গ্রহণ, চট্টগ্রাম কলেজের অধ্যক্ষ মুজিবুল হক চৌধুরী সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।
অনুষ্ঠানে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আবুল বাতেন খান বলেন, বিএনসিসি’র মূল মন্ত্র হচ্ছে জ্ঞান, শৃঙ্খলা আর এর প্রেরণা হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবা। বিএনসিসি’র ক্যাডেটদের অস্ত্র ধারণের শিক্ষা দেয়া হয়। যার মাধ্যমে দেশ রক্ষায় ও অন্যান্য সকল কর্মে নারী পুরুষ একত্রে কাজ করতে শিক্ষা দিয়ে থাকে। যে তরুণ প্রজন্মকে দিয়ে সাম্যের বিজয় পতাকা উড়ানোর অভিপ্রায়ে বিএনসিসি’র যাত্রা শুরু হয়েছিল আজও তা চলমান। বিএনসিসি এমনি এক প্রতিষ্ঠান এখানে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। তাদের মাধ্যমে দেশের তরুণ সমাজ আলোর পথ দেখবে। ছাত্র-ছাত্রী তথা যুব সমাজের নৈতিক চরিত্রের উন্নতি সাধন, তাদের মধ্যে নৈতিক চরিএ ও ত্যাগ স্বীকারের মনোভাব গড়ে তোলা ও পরস্পরের মধ্যে ভ্রাতৃত্ববোধ গড়ে উঠে। এ সময় প্রশিক্ষণে ক্যাডেটদের ক্যাম্পে দেশগঠনে আত্মনিয়োগের জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি দেশ সেবায় মহান ব্রত অন্তরে লালন করে ক্যাডেটদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার পরামর্শ দেন। ক্যাম্পে অগ্নিনির্বাপক, প্রাথমিক চিকিৎসা, মাদকের কুফল, ইভটিজিং, ভূমিকম্পে করণীয়সহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের পাশাপাশি ড্রিল, শরীরচর্চা, অস্ত্র প্রশিক্ষণ, ফায়ারিং ম্যাপ রিডিং, ফাঁদ, টহল, হানা, ছদ্মবেশ ও গোপনীয়তার মত সামরিক বিষয়ে বাস্তব প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ক্যাডেটদের জন্য বিভিন্ন ধরনের খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

The Post Viewed By: 60 People

সম্পর্কিত পোস্ট