চট্টগ্রাম সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:২১ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা, সীতাকু-

কুমিল্লা থেকে ট্রেনে উঠে সীতাকু-ে

পথ হারানো দুই শিশুকে তিনদিন পর ফিরে পেল পরিবার

কুমিল্লায় ট্রেনে উঠে পথ হারিয়ে চট্টগ্রামের সীতাকু-ে চলে আসার তিনদিন পর স্থানীয় সাংবাদিক ও পুলিশের সহযোগিতায় পরিবার ফিরে পেল দুই শিশু। গত রবিবার রাতে সীতাকু- থানা পুলিশ তাদের অভিভাবকদের হাতে তুলে দেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা সদর কোতয়ালী এলাকার রিক্সা চালক মনির হোসেনের ছেলে মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র রুবেল (৯) ও একই এলাকার অপর রিক্সা চালক মো. কাজলের ছেলে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র নাজমুল হোসেন (৮) গত বৃহস্পতিবার বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। এরপর থেকে দুই রিক্সা চালক পিতা হন্য হয়ে সন্তানদের খুঁজলেও তাদের কোন সন্ধান মিলছিল না। এদিকে, গত রবিবার সকালে সীতাকু- উপজেলার বাড়বকু- এক ব্যক্তি শিশু দুটিকে সীতাকু- সদরে সাংবাদিকদের কাছে নিয়ে আসেন। এই খবর পেয়ে এ প্রতিবেদক সীতাকু- থানা সার্কেলের এডিশনাল এসপি শম্পা রানী সাহা ও ওসি মো. দেলওয়ার হোসেনকে জানালে তারা ফোর্স পাঠিয়ে শিশু দুটিকে থানায় নিয়ে যান। পরে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে নাজমুল জানায় সে কুমিল্লা সদরের ইসহাক স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। এই সূত্রে থানা পুলিশ ঐ এলাকার থানায় খবর দিলে তারা এলাকার কাউন্সিলরের মাধ্যমে শিশু দুটির পিতাকে খুঁজে নিয়ে সীতাকু- থানায় পাঠান। রবিবার সন্ধ্যার পর দুই শিশুর বাবা সীতাকু- থানায় এসে উপস্থিত হন। পরে সীতাকু- থানার ওসি (তদন্ত) শামীম শেখ স্থানীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সৌমিত্র চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক লিটন কুমার চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য সেকান্দার হোসাইন সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে শিশু দুটিকে তাদের বাবার হাতে তুলে দেন। এসময় ছেলেকে ফিরে পাবার আনন্দে কেঁদে ফেলেন রুবেলের বাবা মনির হোসেন।

সীতাকু- থানার ওসি (তদন্ত) মো. শামীম শেখ বলেন, শিশু দুটির সাথে কথা বলে জেনেছি কুমিল্লা থেকে প্রথমে নাজমুল চট্টগ্রামমুখি ট্রেনে উঠে পড়ে। তাকে নামাতে উঠে রুবেল। এরপর ট্রেন ছেড়ে দিলে তারা আর নামতে পারেনি। পরে সীতাকু-ে চলে আসে। এ দুইদিন তারা কিভাবে, কোথায় ছিল বিস্তারিত বলতে পারছে না। তবুও তিনদিন পর অভিভাবকের হাতে তুলে দিতে পারায় আমরা খুশি।

The Post Viewed By: 108 People

সম্পর্কিত পোস্ট