চট্টগ্রাম সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৫০ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা ম রাঙ্গুনিয়া

নতুন ক্লাসরুম পেয়ে উচ্ছসিত মডেল স্কুলের শিক্ষার্থীরা

গাদাগাদি করে ক্লাস করতে কষ্ট হচ্ছিল শিশু শিক্ষার্থীদের। গরমের দিনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ঠেকা দায় হয়ে পড়েছিল ছোট ভবনে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে নতুন ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। শুধু উদ্যোগ নয় দেড় বছরে পুরো ভবন নির্মাণে তাক লাগিয়ে দেয়। উপজেলা প্রশাসন পরিচালিত “শিশু মেলা মডেল স্কুল” সত্যিকারের মডেল স্কুলে রূপ নিতে যাচ্ছে। নতুন ক্লাসরুম পেয়ে উচ্ছ্বসিত এই স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে , ২০০০ সালে স্কুলটি “ শিশুমেলা” নামে প্লে থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত চালু হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে ৭ম শ্রেণি পর্যন্ত বর্ধিত করেন। পদাধিকার অনুযায়ী শুরু থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) স্কুলটির সভাপতির দায়িত্বে থাকেন। বিভিন্ন সময়ে রাঙ্গুনিয়ায় কর্মকালীন সব ইউএনও স্কুলটির উন্নয়নে বিশেষ নজর রাখেন। গত বছর চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন রাঙ্গুনিয়ার ইউএনও থাকাকালীন শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিয়ে ভবনের কাজ শুরু করেন। তাঁর পদোন্নতি হয়ে রাঙ্গুনিয়ার কর্মস্থল ত্যাগ করার পর স্কুলের দায়িত্ব নেন বতর্মান ইউএনও মো. মাসুদুর রহমান। তিনি স্কুলটির ভবন নির্মাণের পুরো কাজ বাস্তবায়ন করেন। সম্প্রতি ভবনটি উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন। তিনি স্কুলের বিভিন্ন কর্মকা-ে সন্তোষ প্রকাশ করে স্কুলের জন্য ২০ জোড়া বেঞ্চ উপহার দেন।

বিদ্যালয়ের অভিভাবক খায়রুল আলম বলেন, ‘বিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম অত্যন্ত ভাল। এখানে শিক্ষাকার্যক্রম আনন্দদায়ক ভাবে প্রদান করায় শিক্ষার্থীরা খুবই উপকৃত হয়। অন্যদিকে শ্রেণির কাজ শ্রেণিতেই আদায় করার কারণে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা চাপমুক্ত থাকে।

বিদ্যালয়ের উপাধ্যক্ষ মো. রাসেল খাঁন বলেন, স্কুলের উন্নয়নে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। ইউএনও মহোদয়ের প্রচেষ্ঠায় শিক্ষার্থীরা নতুন ক্লাসরুম পেয়েছে। নতুন শ্রেণিকক্ষ পেয়ে শিক্ষার্থীরা উচ্ছ্বসিত। ইউএনও মহোদয় সবসময় স্কুলে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবেন এই আশা করছি। স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ইউএনও মো. মাসুদুর রহমান বলেন, স্কুলের নতুন ভবন নির্মাণ হওয়ায় শিক্ষার্থীরা স্বাচ্ছন্দ্যে ক্লাস করছে। যারা স্কুলের উন্নয়নে সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। স্কুলের সার্বিক বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছি। রাঙ্গুনিয়ায় যতদিন আছি এই স্কুলের জন্য কাজ করে যাব।

The Post Viewed By: 74 People

সম্পর্কিত পোস্ট