চট্টগ্রাম শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:০৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা হ কক্সবাজার

লাশ গুম করতে গিয়ে ‘গ্যাং স্টার’ জোহান অস্ত্রসহ আটক

কক্সবাজারে টমটম চালককে হত্যা

সদরের ঈদগাঁওয়ে বিদেশ ফেরৎ এক যুবকের নাম জোহান। অল্পদিনে বিদেশ থেকে ৬০ লাখ টাকা হাতিয়ে পালিয়ে আসে দেশে। কয়েক বছর ধরে একের পর এক অপরাধ করে পার পেয়ে যাওয়া জোহান হয়ে ওঠে অপরাধ জগতের ‘গ্যাং স্টার’। শনিবার রাতে সদরের ঈদগাঁও এলাকায় নুরুল ইসলাম নুরু নামের এক টমটম চালককে গুলি করে হত্যার পর তার মুখোশ উন্মোচন হয়। জনতার হাতে অস্ত্রসহ আটক অপরাধ জগতের ‘গ্যাং স্টার’ জোহানকে ঈদগাঁও পুলিশের হাতে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা। এলাকাবাসী জানিয়েছে, ধৃত জোহানের বাবার নাম এহসান। কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও মাইজপাড়ায় বাড়ি। তিনি সরকারি একটি বাহিনীতে উচ্চ পদে চাকরি করেন। ছোট বেলায় মা মারা গেছে জোহানের। বাবা আরেকটি বিয়ে করে চট্টগ্রামে থাকেন। বাবার আদরের ছেলে জোহানকে আফ্রিকায়ও পাঠিয়ে ছিলেন। কিন্তু ওখানে বিয়ে করা বৌয়ের কাছ থেকে অন্তত ৬০ লক্ষ টাকা নিয়ে পালিয়ে আসে বাংলাদেশে। বিষয়টি পুরো এলাকাবাসীর মুখে মুখে। সে থেকেই আস্তে আস্তে অপরাধ জগতে পা বাড়ান জোহান। জানা গেছে, কক্সবাজার কলাতলী লাইটহাউস পাড়ার কটেজ জোন এলাকায় তার বাবার রয়েছে কটেজ। সেই কটেজকে ঘিরে শুরু করে নানামুখী অপরাধ, সেখানে গড়ে তুুুলে অপরাধের আস্তানা। কিন্ত এরই মধ্যে আবারও নতুন করে এক কিশোরীকে বিয়ে করে জোহান।

তবে সে বৌয়ের সঙ্গে তার তেমন মিল ছিল না। একাধিক সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার কটেজ জোনে তাদের নিজস্ব কটেজে ইয়াবা, অস্ত্র ব্যবসা, নারী নিয়ে ব্যবসা, বর্ডারদেব আটক রেখে টাকা আদায়, গাড়ি চুরি, ছিনতাইসহ এমন কোন অপকর্ম ছিল না সেই জোহান করত না। শহর কেন্দ্রিক তার ছিল সশস্ত্র অপরাধ চক্র। বাবার দাপট দেখিয়ে অন্ধকার জগতে সে দিনদিন অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠে। গত কয়েক বছর আগে ছিনতাই কালে কলাতলী মোড় থেকে একটি দেশীয় তৈরি কাটা বন্দুকসহ জোহানকে ও তার সহযোগীকে আটক করেছিল কক্সবাজার থানা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলাও হয়। বেশ কিছুদিন জেলে ছিল। কিন্তু জামিনে মুক্ত হয়ে এসে ফের জড়িয়ে পড়ে নানামুখী অপরাধে। গত বছর তাদের কটেজে অভিযান চালায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এসময় কটেজ থেকে চার জন নারী, ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধার করে। গ্রেপ্তার করা হয় জোহানকে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র, মাদক ও মানবপাচার আইনে মামলা হয়। একবছর ধরে জেলখানায় আটক ছিল জোহান। গত কয়েক মাস আগে জামিনে মুক্তি পেয়ে আবারও শুরু করে ইয়াবা ব্যবসা ও অস্ত্র ব্যবসা।

সদরের ঈদগাঁও দক্ষিণ মাইজপাড়ায় নুরুল আলম নুরু (৩৭) নামের এক টমটম চালকে গুলি করে হত্যার পর বস্তাভর্তি করে লাশ সরিয়ে ফেলার সময় জনতার হাতে অস্ত্রসহ আটক হয়েছে ইয়াবা ও অস্ত্র ব্যবসায়ী জোহান। তিন সন্তানের জনক নিহত টমটম চালক ও মালিক নুরু কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামপুর মধ্যম নাপিতখালী হ্নীলাপাড়া ৪ নং ওয়ার্ডের আব্দুস ছবির পুত্র। এসময় ঘটনাস্থলে হত্যাকা-ে ব্যবহার করা দেশীয় তৈরি বন্দুক ও কার্তুজসহ জোহানকে ধরে পুলিশে দিয়েছে জনতা।

ঘটনাস্থল থেকে দুটি মোটরসাইকেল, একটি সিএনজি ট্যাক্সি ও একটি টমটম তদন্ত কেন্দ্রে আনা হয়েছে। শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে দশটার দিকে জালালাবাদ ইউনিয়নের সিদ্দিকের বাপের পুকুর পাড়ে এ ঘটনাটি ঘটেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, আটক জোহান নিজের হাতে গুলি করে হত্যা করেছে টমটম চালক নুরুকে। এরপর বস্তা ভরে লাশটি সিএনজি ট্যাক্সিযোগে নিয়ে যাবার সময় এলাকাবাসী ধাওয়া দিয়ে তাকে আটক করে।

ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আসাদুজ্জামান বলেন, ঘাতক জোহানকে আটক করা হয়েছে। ঊদ্ধার করা হয়েছে হত্যাকা-ে ব্যবহার করা অস্ত্র। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

The Post Viewed By: 578 People

সম্পর্কিত পোস্ট