চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:১১ পূর্বাহ্ণ

‘এম এ মান্নান ছিলেন সৃজনশীল কর্মী সৃষ্টির কারিগর’

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেছেন, এম এ মান্নান একজন শুদ্ধাচারী রাজনৈতিক ছিলেন। তিনি ছিলেন রাজনীতিতে সৃজনশীল কর্মী সৃষ্টির কারিগর। তিনি আরো বলেন, ব্যক্তি জীবনে একজন ভালো মানুষ হিসেবে সমাজে তাঁর পরিচিতি ছিল। তাঁর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে এমপি-মন্ত্রী হয়েছিলেন। ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেন, এমএ মান্নানের মত ত্যাগী নেতার আজ অনেক অভাব। তিনি গতকাল সকালে মরহুম এমএ মান্নানের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি আরো বলেন, আজকাল আমরা বক্তব্যের মধ্যে অনেক ফুলঝুড়ি ছিটিয়ে থাকি কিন্তু বাস্তব ক্ষেত্রে তার প্রতিফলন

নেই বললেই চলে। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম। মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, এমএ মান্নান, আপাদমস্তক একজন গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক নেতা ছিলেন। তিনি একজন নির্লোভ ও নিরহংকারী রাজনীতিক নেতা ছিলেন। মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী সভাপতির বক্তব্যে বলেন, এম এ মান্নানকে খুব কাছে থেকে দেখেছি রাজনীতিতে তিনি সুদক্ষ কর্মী গঠনে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখতেন। মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন মরহুমের জ্যেষ্ঠ সন্তান চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুল লতিফ টিপু, বাগমনিরাম ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দিন। সভামঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, সুনীল কুমার সরকার, ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, খোরশেদ আলম সুজন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমএ রশিদ, উত্তর জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, মো. জসিম উদ্দিন, মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আলহাজ শফর আলী, শেখ মোহাম্মদ ইসহাক, উত্তর জেলার কোষাধ্যক্ষ এহসানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, মহানগরের কোষাধ্যক্ষ আলহাজ আবদুস ছালাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সম্পাদকম-লীর সদস্য নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, হাজি মোহাম্মদ হোসেন, হাজি জহুর আহমদ, আবদুল আহাদ, ডা. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী, কার্যনির্বাহী সদস্য এমএ জাফর, আবুল মনসুর, সৈয়দ আমিনুল হক, শেখ শহীদুল আনোয়ার, বখতিয়ার উদ্দিন খান, সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, রোটারিয়ান মো. ইলিয়াছ, ড. নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু, মো. জাবেদ, যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ মাহমুদুল হক, থানা আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ ফিরোজ আহমদ, সাহাব উদ্দিন আহমদ, আনসারুল হক, রেজাউল করিম কায়সার, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা হাজি আলী বক্স, আতিকুর রহমান আতিক, আবছার উদ্দিন চৌধুরী, আলহাজ সিদ্দিক আহমদ, হাজি আবুল কাশেম, আলহাজ আবদুর রহমান, মোজাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, শেখ সরওয়ার্দী, মো. আবুল বশর, সৈয়দ মো. জাকারিয়া, ইকবাল হাসান, মোসলেম উদ্দিন, আবু তৈয়ব সিদ্দিকী, নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, ইকবাল চৌধুরী, দিদারুল আলম মাসুম, নাজিম মজুমদার প্রমুখ। এর আগে সকালে মরহুমের কবরস্থ জামে মসজিদে মিলাদ মাহফিল শেষে মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মরহুমের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ: সংগঠনের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেছেন, রাজনীতি দুইভাবে হয়, রাজনীতির প্রতি নিষ্ঠা এবং দায়বোধ এবং অন্যটি গণ-মানুষকে সাথে নিয়ে রাজনীতি। শুদ্ধ রাজনীতির বটবৃক্ষ জননেতা এম এ মান্নান আজীবন গণমানুষকে সাথে নিয়ে রাজনীতি করেছেন। গণমানুষের রাজনীতি করতে গিয়ে তিনি বহু কষ্ট, ত্যাগ শিকার করেছেন। জেল জুলুম নির্যাতন নিপীড়নের শিকার হয়েছেন। সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করে এম এ মান্নান চিরঞ্জীব হয়ে আছেন। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় সংগঠন কার্যালয়ে সাবেক মন্ত্রী, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এম এ মান্নানের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত স্মরণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সভায় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আওয়ামী রাজনীতির বিকাশমান ধারার সাথে জনগণ বারবার একাত্ম হয়েছে। জনগণকে সাথে নিয়ে স্বাধীনতা অর্জনের পথে লাগাতার সংগ্রামকে এগিয়ে নিতে বৃহত্তর চট্টলা জুড়ে যারা অনন্য ভূমিকা পালন করে গেছেন, দেশ ও মানুষের কল্যাণে নিজকে নিবেদিত করে নিঃস্বার্থভাবে সাহসিকতার সাথে কঠিন দুঃসময়ের মোকাবেলা করেছেন তাদের অন্যতম এম এ মান্নান। সভায় বক্তব্য রাখেন মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি, বোয়ালখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল আলম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ কুমার দাশ, শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন এমরান, কৃষি সম্পাদক আবদুর রশিদ, উপ দপ্তর সম্পাদক বিজয় কুমার বড়–য়া, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এস এম সেলিম, আওয়ামী লীগ সদস্য মোস্তাক আহমদ আঙ্গুর, মাহবুবুর রহমান শিবলী, বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ সফিউল আলম, সৈয়দ মেজবাহ উদ্দিন পাপ্পু, প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা ইলিয়াছ জাফর, তারেকুল ইসলাম, বোয়ালখালী উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনি, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ নেতা এম এ রহিম, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন, আবু বকর জীবন প্রমুখ।

সভাশেষে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ মরহুম এম এ মান্নানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান ও কবর জিয়ারত করেন।

আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ: সাবেক মন্ত্রী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মরহুম জননেতা এম এ মান্নানের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল সকাল ১০টায় মরহুমের পল্টন রোডস্থ কবরে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইকবাল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক মোসলেম উদ্দিনের নেতৃত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মনজুর হোসেন, সাইফুল আলম সাইফু, নুরুল আমিন মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন শাহ্, তারেক হায়দার বাবু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক সলিল চৌধুরী, সদস্য আজম খান, জাহাঙ্গীর খান, রনি ধর, তৌহিদুল আলম, আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

মহানগর ইউনিট ও সন্তান কমান্ড : সাবেক মন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এম এ মান্নানের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর দামপাড়াস্থ মরহুমের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মহানগর ইউনিট কমান্ড ও সন্তান কমান্ডের নেতৃবৃন্দ।
একই সাথে মরহুমের রুহের আত্মার মাগফিরাত কামনায় মুনাজাত করা হয়। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মহানগর ইউনিট কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ, সহকারী কমান্ডার সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, কোতোয়ালী ডেপুটি কমান্ডার রফিকুল আলম, হালিশহর ডেপুটি কমান্ডার মো. আবুল কাসেম, মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ আহমদ, মো. এয়াকুব হোসেন, আশীষ গুপ্ত, মরহুমের পুত্র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুল লতিফ টিপু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ উপ-কমিটির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নওশাদ মাহমুদ রানা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড মহানগর কমিটির আহবায়ক সাহেদ মুরাদ সাকু, সদস্য সচিব কাজী রাজীশ ইমরান, সদস্য হাসান মো. আবদুল হান্নান, রিপন চৌধুরী, মো. জয়নুদ্দিন জয়, মো. নুরুল আলম ও মো.আবীর প্রমুখ।-বিজ্ঞপ্তি

The Post Viewed By: 135 People

সম্পর্কিত পোস্ট