চট্টগ্রাম সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:১৫ এএম

আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভায় চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি

১১ জেলায় ৩ হাজার ৮২০টি ম-পে শারদীয় দুর্গাপূজা

বাংলাদেশ পুলিশ চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক বিপিএম, পিপিএম বলেছেন, আসন্ন হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা অত্যন্ত সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করা হবে। ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এ উৎসবে সকলের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে জেলা পুলিশ সুপারগণকে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দেয় হয়েছে। এবার চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলায় মোট ৩ হাজার ৮২০টি ম-পে সাড়ম্বরে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তন্মধ্যে চট্টগ্রাম জেলায় ১ হাজার ৬০০টি, কক্সবাজারে ১৭০টি, কুমিল্লায় ৭৭০টি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৫৬৭টি, চাঁদপুরে ১৯৯টি, নোয়াখালীতে ১৬৮টি, লক্ষ্মীপুরে ৭৮টি, ফেনীতে ১৪২টি, রাঙামাটিতে ৪৩টি, খাগড়াছড়িতে ৫৬টি ও

বান্দরবানে ২৭টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্টিত হবে। ১১ জেলার পূজা ম-পগুলোকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ, গুরুত্বপূর্ণ ও সাধারণ ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। গুরুত্ব বিবেচনা করে নিরাপত্তা বিষয়টি অগ্রাধিকার দেয়া হবে। অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারও পূজা নির্বিঘœ করতে প্রত্যেকটি ম-পে পূজার শুরু থেকে বিজয়া দশমী পর্যন্ত পুলিশের পাশাপাশি আনসার সদস্য ও কমিটির স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী সার্বক্ষনিক দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। কয়েকটি ম-প মিলে পুলিশের একটি করে পেট্টোল টিম ও এলাকা জুড়ে স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে। এর বাইরে র‌্যাবের টহল টিম পূজা ম-পগুলোর নিরাপত্তায় কাজ করবে। ম-প ও আশপাশের এলাকায় কমিটির পক্ষ থেকে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করলে যে কোন ধরনের অপরাধ চিহ্নিত করা সম্ভব হবে। প্রতিমা বিসর্জনের সময়ে ও পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা বজায় থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে বলেই প্রতি বছর পূজা ম-পের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আইন-শৃংখলা পরিস্থিতিও অত্যন্ত স্বাভাবিক রয়েছে। তাই সনাতন ধর্মাবলম্বীরা আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা নির্বিঘেœ উদযাপন করতে পারবে। গতকাল ১৯ সেপ্টেম্বর নগরীর খুলশীস্থ ডিআইজি, চট্টগ্রাম রেঞ্জের সম্মেলন কক্ষে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আইন-শৃংখলা বিষয়ক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় বিভিন্ন জেলা পূজা কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকগণ তাদের অনুভূতি প্রকাশ করেন। বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (অপারেশন এন্ড ক্রাইম) মোহাম্মদ আবুল ফয়েজ, জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা (চট্টগ্রাম), মো. মাহাবুবর রহমান (চাঁদপুর), এবিএম মাসুদ হোসেন (কক্সবাজার), মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার (বান্দরবান), মো. আহমার উজ্জামান (খাগড়াছড়ি), মো. আলমগীর কবীর (রাঙামাটি), মো. আলমগীর হোসেন (নোয়াখালী), ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান (লক্ষ্মীপুর), সৈয়দ নুরুল ইসলাম (কুমিল্লা) ও মোহাম্মদ আনিসুর রহমান (ব্রাহ্মণবাড়ীয়া)। সভা পরিচালনা করেন পুলিশের রেঞ্জ অফিসের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশন এন্ড ক্রাইম) মাহমুদা বেগম ।-বিজ্ঞপ্তি

The Post Viewed By: 100 People

সম্পর্কিত পোস্ট