চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:১৪ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা হ চকরিয়া-পেকুয়া

পেকুয়ায় গহীন পাহাড়ে নিয়ে দুই নারীকে ধর্ষণ প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

কক্সবাজারের পেকুয়ায় গহীন পাহাড়ে নিয়ে দুই নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আলীম উদ্দিন নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার আলীম উদ্দিন শিলখালী ইউনিয়নের জারুলবুনিয়া দক্ষিণজুম এলাকার আলী হোসেনের ছেলে। বুধবার রাতে দক্ষিণজুম গহীন পাহাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার এক নারীর স্বামী জসিম উদ্দিন বলেন, ‘পুলিশের হাতে আটক আলীম উদ্দিন এলাকায় ভ- বৈদ্য হিসাবে পরিচিত। তার একটি সংঘবদ্ধ বাহিনী রয়েছে। ঘটনার রাতে সংঘবদ্ধ বাহিনী নিয়ে

অস্ত্রসজ্জিত হয়ে আমাদের বাড়িতে হানা দেয়। একপর্যায়ে বাড়ির সদস্যদের গাছের সাথে বেঁধে আমার বোন ও স্ত্রীকে অপহরণ করে গহীন পাহাড়ে নিয়ে যায়। তারপর আলীম উদ্দিনের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ আসামিরা তাদেরকে গণধর্ষণ করে চলে যায়। রাতেই স্থানীয়দের মধ্যে ঘটনাটি জানাজানি হলে বাঁধা অবস্থা থেকে আমাদেরকে উদ্ধার করে। তারপর পেকুয়া থানার ওসিকে ধর্ষণের বিষয়টি আমরা অবগত করি’।

তিনি আরো বলেন, ‘আলীম উদ্দিন ভ- বৈদ্য হিসাবে এলাকায় বেশ পরিচিত। এর আগেও সে বেশ কয়েকজন মহিলাকে সংসার ছাড়া করেছে। সংঘবদ্ধ বেশ কয়েকজন বখাটে তার সাথে থাকায় ভয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পায় না এলাকাবাসী। পেকুয়া থানার ওসির প্রতি অনুরোধ আসামিকে রিমান্ডে নিলে সব তথ্য বেরিয়ে আসবে’।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান বলেন, দুই নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় দুইজনের নাম উল্লেখ করে এবং আরো কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাটি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করা হচ্ছে। মেডিকেল রিপোর্টের জন্য দুই ভিকটিমকে বৃহস্পতিবার (গতকাল) কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, খবর পাওয়ার সাথে ওসি কামরল আজমের নেতৃত্বে পুলিশের একাধিক টিম গহীন পাহাড় থেকে ধর্ষণের শিকার দুইজনকে উদ্ধার করার পাশাপাশি প্রধান অভিযুক্ত আলীম উদ্দিন বৈদ্যকে আটক করি।
পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল আজম বলেন, গণধর্ষণের ঘটনাটি জানার পর পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে দুই ভিকটিমকে উদ্ধার করার পর প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনাটি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করা হচ্ছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তার করার জন্য পুলিশ অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।

The Post Viewed By: 76 People

সম্পর্কিত পোস্ট