চট্টগ্রাম বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৪৮ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

ময়লার স্তুপ অপসারণ করে সুমনের নার্সারি

নগরীর কোতোয়ালী মোড় পূবালী ব্যাংকের পাশে একসময় ময়লা-আবর্জনার গন্ধের জন্য পথচলা দায় ছিল। নাকে হাত দিয়েই যাতায়াত করতে হতো পথচারিদের। কারণ এখানে অনেকে বাথরুম সারতেন। বাসাবাড়ির ময়লা-আবর্জনাও বিভিন্ন রেস্টুরেন্টের ময়লা ফেলা হত। যার কারণে জায়গাটি সবসময়ই থাকত নোংরা এবং দুর্গন্ধ ছড়াতো। কিন্তু সেই ময়লা আর দুর্গন্ধযুক্ত স্থানটি এখন আর নেই। ফিরিঙ্গিবাজারের বাসিন্দা ব্যবসায়ী মো. সুমন সিডিএ ও কোতোয়ালী থানার অনুমতি নিয়ে নিজে এ ময়লা-আবর্জনাগুলো পরিষ্কার করে নার্সারি করার উদ্যোগ নেন। এরপর তিনি ও তার ভাই লিপন নানারকম চারা গাছ নিয়ে নার্সারি স্থাপন করেন। এতে রোধ হয়েছে বায়ুদূষণ । মো. সুমন বলেন, আগে এখানের নালাটি ভাঙা ছিল। পরে সিডিএ এটি সংস্কার করে। তবুও এলাকার মানুষ ও স্থানীয় দোকানীরা এখানে ময়লা ফেলতেন। আর পথচারিরা যাতায়াতের সময় এখানে পানি ত্যাগ করতেন। তীব্র গন্ধে এপথ দিয়ে হাঁটাও কষ্টসাধ্য ছিল। একদিন আমি নিজেই এখানকার ময়লাগুলো পরিষ্কার করি।

এরপর কিছু গাছের চারা এনে বিক্রি শুরু করি। পরে সিডিএ ও কোতোয়ালী থানারও অনুমতি নিয়েছি। অনুমতি নিয়ে আমি আর আমার ভাই এখানে একটি নার্সারিটি স্থাপন করেছি। এখন আবার সিডিএ এর পক্ষ থেকে এখানে সৌন্দর্যবধনের জন্য টাইল্স বসিয়ে আরো সংস্কার করে দেবে বলে জানিয়েছে। তবে এখনো আমার নার্সারির নাম দেয়া হয়নি। বর্তমানে আমার নার্সারিতে হাসনাহেনা, দোলনচাঁপা, গোলাপ, কবরী, সূর্যমুখি, চেরিফুল, রাধাচুড়া, একঝোরা, বেলি, সন্ধ্যা মালতি, নয়নতারা, জবা, টগর, বাগানবিলাশ ফুলের চারা ও পাতাবাহার আছে। আবার ফলের মধ্যে আছে আম, জাম, কাঠাঁল, লিচু, জাম্বুরা, পেঁয়ারা, আঙ্গুর, মালটা ও জলপাইসহ আরো অনেক ফলের চারা। এলাকার বাসিন্দা রাকিব হোসেন বলেন, ফিরিঙ্গি বাজারে আমার বাসা। এখানে আগে দুর্গন্ধে পথচলা দায় ছিল। এখন নার্সারি করায় পরিবেশটি অনেক বেশি সুন্দর হয়ে গেছে। আর দুগন্ধ ও ময়লা-আবর্জনাও নেই। বিকেলে এখানে হাটাহাটিও করা যায়। যা আগে পারতাম না।

The Post Viewed By: 96 People

সম্পর্কিত পোস্ট