চট্টগ্রাম বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:২৯ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ্যাপভিত্তিক রাইডে যাত্রীর হেলমেট নিয়ে প্রতারণা

হ দুর্ঘটনায় মাথা ও মুখম-লের সুরক্ষা পাওয়া যাবে না হ এগুলোকে হেলমেট বলা যায় না : ডিসি ট্রাফিক

অ্যাপভিত্তিক মোটরসাইকেলের রাইড সেবায় যুক্ত হয়ে চালকেরা পাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের হেলমেট। এসব হেলমেট ব্যবহার করছে যাত্রীরা। কিন্তু হেলমেটগুলোর মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ব্যবহারকারীরা বলছেন, হেলমেটগুলো খুবই নিন্মমানের। বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এগুলো প্রকৃতপক্ষে হেলমেট আকৃতির ক্যাপ। এগুলো পরা আর না পরা প্রায় সমান। দুর্ঘটনার সময় এগুলোতে মাথা ও মুখমন্ডলের সুরক্ষা পাওয়া যাবে না। এটা যাত্রীদের সাথে প্রতারণা। নগর ট্রাফিক পুলিশের বন্দর জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) তারেকুল ইসলাম জানান, অ্যাপভিত্তিক রাইড সেবায় যাত্রীদের যেসব হেলমেট দেয়া হচ্ছে তার মান খুবই অনুন্নত। আসলে এগুলোকে হেলমেট বলা যায় না। এসব ক্যাপ নিরাপদ নয়। বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। তাদের নিয়ে আমরা শীঘ্রই বৈঠক করবো। দেশের ট্রাফিক আইন অনুযায়ী, মোটরসাইকেলের চালক ও আরোহীর হেলমেট পরা বাধ্যতামূলক। এর ব্যত্যয় হলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে পারে পুলিশ। সম্প্রতি নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশও এ ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে জ্বালানী বিক্রিও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যাত্রীদের জন্য হেলমেট নিশ্চিত করতে নগরীতে চলা অ্যাপভিত্তিক রাইড সেবায় যুক্ত অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানই বিনামূল্যে হেলমেট সরবরাহ করছে। তবে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে হেলমেট কিনতে হচ্ছে।

নগরীর আগ্রাবাদ, চকবাজার, মুরাদপুরসহ বেশ কয়েকটি এলাকার হেলমেটের দোকান ঘুরে দেখা গেছে, অ্যাপভিত্তিক পরিবহনসেবায় যুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হেলমেট হিসেবে যা সরবরাহ করছে, সেগুলো মূলত ক্যাপ। দেশেও ক্যাপ তৈরি হয়। এর দাম ২০০ থেকে ৩৫০ টাকার মধ্যে। দোকানিরা বলেছেন, ক্যাপের দামই সবচেয়ে কম। এগুলো খুব হালকা। এই ক্যাপ দিয়ে যথাযথ সুরক্ষা পাওয়া যাবে না। ব্যবসায়ীরা জানান হেলমেটের সর্বনিন্ম দাম ৬০০ টাকা। গাড়ির জন্য যেমন সিটবেল্ট, তেমনি মোটরসাইকেলের জন্য হেলমেট জীবন রক্ষাকারী উপাদান। এটি মানসম্মত না হলে হিতে বিপরীত হবে। দেশে কোনো হেলমেট তৈরি হয় না। এগুলো বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়। বাজারে ২০০ থেকে ৩৫০ টাকায় যেসব ক্যাপ বিক্রি হয়, সেগুলোই হেলমেট হিসেবে যাত্রীদের দেওয়া হয়।

গতকাল বুধবার নগরীর নিউমার্কেট এলাকায় কথা হয় একজন পাঠাও চালকের সঙ্গে। তিনি যাত্রীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন। ওই চালকের কাছে নিজের জন্য মজবুত ও যাত্রীর জন্য পাঠাওয়ের লেগোসংবলিত একটি হেলমেট দেখা গেছে। পাঠাওয়ের লোগো–সংবলিত হেলমেটটি তুলনামূলকভাবে অনেক হালকা। তিনি জানান, হেলমেটটি তিনি বিনা মূল্যে পেয়েছেন। উবার ও পাঠাওয়ে নিয়মিত যাতায়াত করেন আবদুল আলিম। তিনি বলেন, দুই প্রতিষ্ঠানেরই হেলমেট অনেক হালকা। মাথায় ঠিকভাবে লাগতে চায় না। অন্য প্রতিষ্ঠানের হেলমেটের মানও প্রায় একই ধরনের বলে তিনি জানিয়েছেন। জানা যায়, প্রথমে দশ হাজার রাউডারকে বিনামূল্যে হেলমেট দিয়েছেন পাঠাও কর্তৃপক্ষ। এখন যাত্রীদের জন্য ৩৫০ টাকার একটি করে হেলমেট দেওয়া হচ্ছে।

The Post Viewed By: 611 People

সম্পর্কিত পোস্ট