চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:১৫ এএম

পূর্বকোণ ডেস্ক

২ শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে চবি ছাত্রলীগ নেতার অনশন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্যের রুটিন দায়িত্ব গ্রহণ করেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। দায়িত্ব নিয়েই তিনি বেশ কিছু প্রশাসনিক রদবদল করেন। সম্প্রতি প্রশাসনিক দায়িত্ব পাওয়া দুই শিক্ষক অধ্যাপক ড. রাহমান নাসির উদ্দিন ও সহকারী অধ্যাপক ড. হানিফ মিয়াকে অপসারণের দাবিতে অনশন করেছেন শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ইফতেখার উদ্দিন আয়াজ। তার দাবি এই দুই শিক্ষক গত বছর কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ‘কটূক্তিকারী’ সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলামের পক্ষে মানববন্ধন করেছিলেন। ২০১৮ সালের ২৩ জুলাই মাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলাও করেছিলেন এ ছাত্রলীগ নেতা। গতকাল বুধবার বিকেল ৩ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চত্বরে অনশন করেন। পরে বিকেল ৪টার দিকে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরীর আহ্বানে অনশন তুলে নেন। পরে প্রক্টর কার্যালয়ে অনশনকারী ছাত্রলীগ নেতার সাথে আলোচনা হয়। অনশনকারী শাখা ছাত্রলীগের এই নেতা বলেন, উপাচার্যের পালা

বদলে সম্প্রতি ড. রাহমান নাসির উদ্দিনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা পরিচালনা ও প্রকাশনা দফতরের পরিচালক পদে এবং ড. হানিফ মিয়াকে সহকারী প্রক্টর পদে নিয়োগ দেন রুটিন দায়িত্বে থাকা উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। অথচ এই দুই শিক্ষক প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তিকারী মাইদুল ইসলাম ও কোটা সংস্কারকারীদের পক্ষে ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করেছিলেন। কিন্তু শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় এদের দুইজনকে প্রশাসনিক দায়িত্ব দিয়েছেন উপাচার্য। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এমন কর্মকা- শেখ হাসিনার সঙ্গে প্রতারণার শামিল। ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে এটা কখনোই মেনে নিতে পারি না। আমি তাদের অপসারণের জোর দাবি জানাচ্ছি।

এদিকে, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্রের আশ্বাসে এক ঘণ্টার মধ্যে অনশন তুলে নেন তিনি। অনশনকারী আয়াজ বলেন, প্রক্টর স্যার এসেছেন। এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছেন। তাও আজকের মতো অনশন তুলে নিয়েছি। কাল ফের অনশনে বসবো।

ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন, আমরা আলোচনা করে তার দাবির বিষয়ে জেনেছি। আমাদের আহ্বানে সে অনশন তুলে নেয়।

The Post Viewed By: 158 People

সম্পর্কিত পোস্ট