চট্টগ্রাম বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:২৪ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

যানজট কমাতে ‘সাময়িক বন্ধ’ থাকবে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ

সিডিএ’র সমন্বয় সভায় সিদ্ধান্ত

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ সল্টগোলা ক্রসিং থেকে সিমেন্ট ক্রসিং পর্যন্ত সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বন্দরকেন্দ্রিক যানজটের কারণে নির্মাণাধীন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ওই অংশের কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আউটার রিং রোড এবং সিইপিজেড থেকে রিং রোড পর্যন্ত সংযোগ সড়ক চালুর পর ওই অংশে কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের প্রকল্প পরিচালক মাহফুজুর রহমান।

গতকাল মঙ্গলবার এলিভেডেট এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পের এলাইনমেন্ট নির্ধারণ শীর্ষক সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভা সম্পর্কে মাহফুজুর রহমান জানান, ‘সল্টগোলা ক্রসিং থেকে সিমেন্ট ক্রসিং অংশে আমরা কাজ শুরু করেছিলাম। সম্প্রতি কাজ শুরুর ওই এলাকায় যানজট বেড়ে গেছে জানিয়ে বন্দর কর্তৃপক্ষ বিকল্প সড়ক চালু করে ওই অংশে কাজ করার প্রস্তাব দেয়। মূলত বন্দরকেন্দ্রিক যানজটের কারণে ওই অংশে কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এছাড়া, বারিক বিল্ডিং মোড় থেকে সল্টগোলা ক্রসিং পর্যন্ত রাস্তার ডানপাশে দিয়ে এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ হবে। ওই অংশে বন্দরের একটি ফ্লাইওভার রয়েছে, সেটির পাশ দিয়ে যাবে এক্সপ্রেসওয়ে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এলিভেডেট এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের শেষ প্রান্ত নির্ধারণ নিয়ে জটিলতা ছিলো। কর্ণফুলী টানেলের কারণে সেখানে নকশায় পরিবর্তন আনা হচ্ছে। নির্মাণাধীন এলিভেডেট এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের শেষ প্রান্ত কর্ণফুলী টানেল ও শাহ্ আমানত বিমানবন্দরের সংযোগ সড়কে মিলিত হবে। উঠানামার জন্য পতেঙ্গা সৈকত এলাকায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে নতুনভাবে র‌্যাম্প নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এছাড়া, সিইপিজেড থেকে আউটার রিং রোড পর্যন্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হবে। আউটার রিং রোড প্রকল্পের আওতায় সংযোগ সড়কটি নির্মাণ করবে সিডিএ।’

আগ্রাবাদে কাজ প্রসঙ্গে মাহফুজুর রহমান বলেন, আগ্রাবাদ থেকে বারিক বিল্ডিং অংশে শীঘ্রই কাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পিসি রোড ও এক্সেস রোডের নির্মাণ কাজ এখনো শেষ হয়নি। ডিসেম্বরে রোড দুটির কাজ শেষ হবে জানিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। সড়ক দুটি চালুর পর এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে।

সমন্বয় সভায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এম জহিরুল আলম দোভাষ, কর্ণফুলী টানেল প্রকল্প পরিচালক মো. হারুনুর রশীদ, আউটার রিং রোড প্রকল্প পরিচালক ও সিডিএর প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস, চসিকের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম বন্দরের প্রধান প্রকৌশলী মাহমুদুল হোসাইন খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

The Post Viewed By: 238 People

সম্পর্কিত পোস্ট