চট্টগ্রাম শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:১১ পূর্বাহ্ণ

এম. জাহেদ চৌধুরী, চকরিয়া

চকরিয়ায় মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার সেবায় ৩ যুবক

পুরুষ কিংবা মহিলা। মানসিক ভারসাম্যহীন হলে সবাই তাকে এড়িয়ে চলে। যদি ওই মানসিক ভারসাম্যহীন রোগাক্রান্ত বা ক্ষতজনিত হয়ে দুর্গন্ধ ছড়ায় তাহলে তার ধারে কাছেও যায় না কেউ। এর মাঝেও ব্যতিক্রম গুটিকয়েক মানবিকগুণ সম্পন্ন ব্যক্তির খোঁজ মেলে কক্সবাজারের চকরিয়ায়। আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে দুর্গন্ধ ছড়ানো এক মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার চিকিৎসায় এগিয়ে আসে চাকরি করা তিন যুবক। তাদের ঊর্বর মানসিক ভূমিকা দেখে পথচারী শতশত লোক প্রশংসায় পঞ্চমুখ। চকরিয়া পৌরশহরে তিন দশক ধরে দেখা মিলছে অজ্ঞাত পরিচয়ের এই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার । যুবতী থেকে এখন প্রৌঢ় বয়স তার। নালা নর্দমার আবর্জনা ঘেঁটে পচাবাসি খাবার খেয়ে বেঁচে রয়েছে ওই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা। গত কয়েকমাস হলো তার পায়ে আঘাতজনিত কারণে পচন ধরেছে। সৃষ্টি হয়েছে দুটি গর্ত। পুঁজ ও পোকা বের হয় ওই গর্ত দিয়ে। ওখান থেকেই ছড়ায় দুর্গন্ধ। এই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার পা থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানোর পর সবাই এড়িয়ে চলতো। যদিও কয়েকজন দোকানি সামান্য খাবার দিত তাকে। এই খাবারও খেতে পারতো না পায়ের যন্ত্রনায়। এ করুণ দৃশ্য দেখেও কোন ব্যবসায়ী বা ধনাঢ্য ব্যক্তি এগিয়ে আসেনি তার চিকিৎসা বা সেবায়। এর মাঝেই ওসান সিটি মার্কেটের বারান্দায় দিনে অবস্থানকালে ওই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে খাবার দেয় শিবু দাশ নামের এক দোকান কর্মচারী। দুই একদিন খাওয়ার পর খাবার নিয়ে গেলে না খেয়ে ইশারায় পা দেখায়।

মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার ইশারা বুঝতে পেরে শিবু দাশ, একজন চিকিৎসকের কম্পাউন্ডার নুরুল আমিন ও ওষুধ কোম্পানির কর্মচারী নাজেম উদ্দিন এগিয়ে আসেন মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার চিকিৎসায়। টানা সাতদিন ধরে ইনজেক্শন দেয়ার পাশাপাশি প্রতিদিন পায়ের ক্ষতস্থানে ড্রেসিং করছেন তারা। দিনে হাজার টাকা খরচ হলেও তিন যুবকের মুখে দেখা মেলে হাসি। টানা চিকিৎসায় মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাটি সামান্য সুস্থের পথে। কিন্তু টানা বর্ষণে সড়কে পানি জমায় ওই পানি মাড়িয়ে রাতে সায়মা প্লাজা নামক একটি মার্কেটে রাতযাপন করতে আসা যাওয়ার কারণে তার সুস্থতায় বিঘœ ঘটছে। কোন ধনাঢ্য ব্যক্তি বা সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার চিকিৎসায় এগিয়ে আসলে সে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে।

The Post Viewed By: 52 People

সম্পর্কিত পোস্ট