চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:১৬ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা হ মিরসরাই

মিরসরাইয়ে সড়কে ঝরলো আ. লীগ ও ছাত্রলীগ নেতার প্রাণ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সিএনজি চালিত তিন চাকার অটোরিকশা বন্ধের পরও কিছুতেই থামছে না মৃত্যুর মিছিল। নিয়মিত বিরতিতে ঝরছে পথচারী ও যাত্রী সাধারণের প্রাণ। বেপরোয়া কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় এবার প্রাণ গেল আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের দুই নেতার। এর আগে উপজেলার নয়দুয়ারি এলাকায় লেগুনায় ট্রাকের ধাক্কায় প্রাণহারায় প্রফেসর কামাল উদ্দিন চৌধুরী কলেজের অধ্যক্ষ আমিনুর রসুল।

গত মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) দিবা গতরাত ১০টার নাগাদ মহাসড়কের জামালের দোকান এলাকায় সড়কের ওপর যাত্রী ওঠানামার সময় বেপরোয়া কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা মো. আলাউদ্দিন (৬০) ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন মিলন (৩০) নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৭জন। আহতদের মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (মাস্তান নগর হাসপাতাল) ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে আ.লীগ নেতা আলাউদ্দিন ও ছাত্রলীগ নেতা মিলনের জানাজা শেষে নিরাপদ সড়কের দাবিতে উপজেলার মিঠাছরা বাজার এলাকায় মানববন্ধন করেছে স্থানীয় ছাত্রলীগ। মিরসরাই সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে যোগ দেয় স্থানীয় স্কুল-মাদরাসার সাধারণ ছাত্ররাও। মানববন্ধন থেকে তারা মহাসড়কে যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণ ও লেগুনাচালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং রুট পারমিট যাছাইয়ের দাবি জানায়। এসময় তারা বেশ কয়েকটি লেগুনা থামিয়ে চালকদের লাইসেন্স ও রুট পারমিট যাছাই করে।

ওইদিন ছাত্রলীগ নেতা মিলনের জানাজা শেষে চট্টগ্রাম উত্তরজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হোসেন তপু পূর্বকোণকে বলেন, ‘সিএনজি অটোরিকশা বন্ধের পর মহাসড়কে দুর্ঘটনা কিছুটা কমে আসলেও অদক্ষ চালক দিয়ে লেগুনা পরিবহণ চালুর পর দুর্ঘটনা আবার বেড়েছে। এটির প্রতিকার হওয়া প্রয়োজন। পাশাপাশি মহাসড়কে যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণেও সংশ্লিষ্টদের পদক্ষেপ নেয়া জরুরি।’

এদিকে ২০১৫ সালের ১ আগস্ট দেশের ২২টি জাতীয় মহাসড়কে থ্রি হুইলার বন্ধের ঘোষণা দেয় সরকার। এরপর ফোর হুইলার বৈধতার সুযোগে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই ও সীতাকু- অঞ্চলে হুলুস্থুল করে নেমে পড়ে ফিটনেসবিহীন লেগুনা পরিবহন। এখান কারবার ইয়াহাট পৌরসভা এলাকা থেকে সীতাকু- সদর পর্যন্ত অন্তত ৬০টি লেগুনা যাত্রী পরিবহন করছে। মিরসরাই-সীতাকু- হিউম্যানহলার মালিক সমিতির সাইন বোর্ডে চলাচল করা এসব লেগুনার অধিকাংশ রইরুট পারমিট নেই। শুধু তাই নয় বেশির ভাগ চালক দক্ষতা ও ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়াই দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছে মহাসড়ক।

The Post Viewed By: 106 People

সম্পর্কিত পোস্ট