চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ২:০১ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা হ রামু

রামুতে মাদ্রাসায় গুলিবর্ষণ ও হামলা

ঘটনায় জড়িতরা অধরা প্রতিবাদ সভা

চাকমারকুল আল জামেয়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদ্রাসায় গুলিবর্ষণ, ভাংচুর, ছাত্রদের অমানবিকভাবে নির্যাতনের ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি। ঘটনার ২দিন পেরিয়ে গেলেও ঘৃণ্য এ ঘটনায় কাউকে আটক করেনি পুলিশ। অথচ ঘটনার পরই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। এরপরও হামলাকারীরা ধরা না পড়ায়

জনমনে চরম ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। এ ঘটনায় মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা সিরাজুল ইসলাম বাদি হয়ে রামু থানায় লিখিত এজাহার দিয়েছেন বলে জানান। অপরদিকে বর্বরোচিত এ ঘটনার প্রতিবাদে সমাবেশ করেছেন, এলাকাবাসী, মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ। প্রতিবাদ সভায় হামলার মূল হোতা আবদুর রাজ্জাক ও নুরুল আলমসহ জড়িত সকল সন্ত্রাসীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করা হয়। গত মঙ্গলবার এশার নামাজের পর আয়োজিত এ প্রতিবাদ সভায় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, মাদ্রাসার শিক্ষকগণ বক্তব্য রাখেন। এতে সভাপতির বক্তব্যে মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা সিরাজুল ইসলাম বলেন, হামলাকারী চক্রটি দীর্ঘদিন এ মাদ্রাসাকে ধ্বংসের পায়তারা চালাচ্ছে। পবিত্র আল্লাহর ঘর মসজিদ ও মাদ্রাসায় এভাবে গুলিবর্ষণ, ভাংচুর ও নিরীহ ছাত্রদের মারধর করা হবে তা ছিলো কল্পনাতীত।

সভায় বক্তারা এ হামলার ঘটনায় জড়িত আবদুর রাজ্জাক ও নুরুল আলমসহ সকল চিহ্নিত সন্ত্রাসীকে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানান এবং বলেন, সময় থাকতেই পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।
এনিয়ে জানতে চাইলে রামু থানার ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান গতকাল বুধবার রাতে সাংবাদিকদের জানান, লিখিত এজাহার পেলেও এ নিয়ে এখনো মামলা হয়নি। এ বিষয়ে পুলিশ যথাযথ তদন্তপূর্বক আইনী ব্যবস্থা নেবেন।

The Post Viewed By: 25 People

সম্পর্কিত পোস্ট