চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৫৫ এএম

নিজস্ব সংবাদদাতা হ মিরসরাই

কাউন্সিল ঘিরে উত্তাপ উদ্দীপনা মিরসরাই উপজেলা আ.লীগ

মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলকে ঘিরে হঠাৎ উত্তাপ হয়ে উঠেছে স্থানীয় রাজনীতি। উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে দলটির নেতাকর্মীদের মাঝে। অবশ্য এখনো অনুষ্ঠিত হয়নি দলের বর্ধিত সভা, নতুন কমিটি গঠন প্রক্রিয়াও শুরু হয়নি হয়নি ওয়ার্ড, পৌরসভা ও ইউনিয়নে। অথচ তৃণমূল থেকে উপজেলা পর্যায়ের রাজনৈতিক মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে নিজের প্রার্থীতা ঘোষণা করছেন। মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী জানান, আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর শনিবার স্থানীয় এক কমিউনিটি সেন্টারে দলের বর্ধিত সভা আহ্বান করা হয়েছে। প্রথমে ওয়ার্ড এবং দ্বিতীয় দফায় ইউনিয়ন ও পৌরসভা ইউনিট গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। সবশেষে অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া। তবে এসব প্রক্রিয়া দলের অভিভাবক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, মিরসরাইয়ের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের দিকনির্দেশনা মেনেই করা হবে। উপজেলা আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারক পর্যায়ের

একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা গেছে, মিরসরাই উপজেলার দুইটি পৌরসভা ও ১৬টি ইউনিয়নের মোট ১৬২টি ওয়ার্ডে দলের কাউন্সিল অনুষ্ঠান বাস্তবায়নের কাজ আগামী ২০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে পারে। শুরু হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে সবগুলো ওয়ার্ডে নতুন কমিটি গঠিত হবে। পরবর্তীতে পৌরসভা ও ইউনিয়ন কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে গত এক মাসেরও বেশি সময় জুড়ে উপজেলার হাট-বাজার, পাড়া-মহল্লা, চায়ের দোকান সব খানে মানুষের প্রাত্যহিক আলোচনায় ঠাঁই পাচ্ছে দেশের ইতিহাসের প্রাচীনতম এ দলটির নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের আনুষ্ঠানিকতা। এখানকার ওয়ার্ড, ইউনিয়ন-পৌরসভা ও উপজেলা পর্যায়ে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদের সম্ভাব্য প্রার্থীরা তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করছেন।

জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি পদে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বাহার, বর্তমান উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে মিরসরাই পৌরসভার মেয়র মো. গিয়াসউদ্দিন, ধুমইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মো. জাহাঙ্গীর, করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন, মিরসরাই উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি খন্দকার শফি ও দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বিপ্লবের নাম শোনা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১ সেপ্টেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি নির্বাচিত হন শেখ আতাউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। নির্বাচিত হওয়ার পর আওয়ামী লীগের তৃণমূলকে সংগঠিত করতে কাজ শুরু করেন। বর্তমান কমিটি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরেবিএনপি-জামায়াত জোটের আন্দোলন প্রতিহত করার পাশাপাশি দলকে করেন সুসংগঠিত। ইউনিয়ন পরিষদ ও দুই পৌর সভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন। বর্তমান সরকারের সকল নাগরিক সুবিধা তৃণমূলে পৌঁছে দিয়ে দলের জনপ্রিয় তা বৃদ্ধির পাশাপাশি দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করেন।

এদিকে প্রতি তিনবছর পর পর ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের মাধ্যমে দলের নতুন কমিটি গঠনের নিয়ম থাকলেও এবার তা হচ্ছে ৭ বছর পর। এতে করে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মাঝে এবারের কাউন্সিল অনুষ্ঠান নিয়ে বাড়তি আমেজ তৈরি করেছে।
এ বিষয়ে মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান জানান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পুরোপুরি সাংগঠনিক মেজাজের একটি রাজনৈতিক দল। বিগত ৮ বছর ধরে আমরা তৃণমূল থেকে উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত দলকে অত্যন্ত সুসংগঠিতভাবে পরিচালনা করতে সক্ষম হয়েছি। এতে করে দলের কাউন্সিলকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে বাড়তি উদ্দীপনা দেখা যাওয়া টা স্বাভাবিক।

The Post Viewed By: 108 People

সম্পর্কিত পোস্ট