চট্টগ্রাম রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৫৬ এএম

শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের ৯ম দিনে বক্তারা

আহলে বায়তে রাসূলের (দ.) প্রতি ভালোবাসা ঈমানের দাবি

দ্বীনদার আহলে বায়তপ্রেমী মানুষের অংশগ্রহণে জমিয়তুল ফালাহ মসজিদে আন্তর্জাতিক শাহাদাতে কারবালা মাহফিল বেশ প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে। মসজিদ চত্বর পেরিয়ে গতকাল মাহফিলের চারপাশ ছিল লোকে লোকারণ্য। গতকাল সোমবার মাহফিলের ৯ম দিনে দেশি-বিদেশি ইসলামী চিন্তাবিদ ও আলোচকরা বলেছেন, আহলে বায়তে রাসূল (দ.)-এর পবিত্রতা, নিষ্কলুষ-পরিচ্ছন্ন জীবনযাপন, সকল দোষ-ত্রুটি থেকে যে মুক্ত তা স্বয়ং আল্লাহ কুরআন মজিদে এর ঘোষণা দিয়েছেন। সকল প্রকার অপবিত্রতা থেকে আল্লাহ তাঁদের সুরক্ষিত রেখেছেন-এটাই হচ্ছে ইসলামী আক্কিদা। তাই আহলে বায়তে রাসূলের (দ.) শান মর্যাদা হানি হয় এমন কোনো মন্তব্য করা যাবে না। প্রিয় নবী (দ.) তথা আহলে বায়তে রাসূল (দ.), হযরত আলী (রা.), মা ফাতেমা, হযরত ইমাম হাসান (রা.) ও ইমাম হোসাইন (রা.)-্এর প্রতি ভালোবাসা প্রদর্শন, তাঁদের প্রতি শর্তহীন আনুগত্যই ঈমানের দাবি। তাঁদের প্রতি অকুণ্ঠ মহব্বত পোষণ ছাড়া কখনো পরিপূর্ণ ঈমানদার ও জান্নাতের ভাগিদার হওয়া যাবেনা। আহলে বায়তে রাসূল (দ.) স্মরণে শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদের আয়োজনে ১০ দিনব্যাপী ৩৪তম আন্তর্জাতিক শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের গতকাল ৯ম দিনে সভাপতিত্ব করেন আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ মুহাম্মদ মহসিন। প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ আব্দুল মান্নান। বিদেশি আলোচক ছিলেন বড়পীর শেখ সৈয়দ আব্দুল কাদের জিলানি (রা.)-এর বংশধর শাহ্ সূফি আল্লামা সৈয়দ আফিফ আব্দুল কাদের মনসুর আল-জিলানি আল-বাগদাদী, ভারত কাসওয়াসা দারবারের সাজ্জাদানশীল আল্লামা সৈয়দ মাহমুদ আশরাফ আল-আশরাফি আল-জিলানি ও মিশরের কারী মুহাম্মদ রিদওয়ান গোম্মাহ ইউনুছ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জমিয়তুল ফালাহ শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও চেয়ারম্যান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান আলহাজ সূফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

প্রধান অতিথি বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল মান্নান বলেন, ইসলামের নামে প্রথম রাজতন্ত্রের সূচনাকারী ইয়াজিদ। সে অন্যায়ভাবে ক্ষমতায় বসে ব্যভিচার ও মদপানসহ যাবতীয় সামাজিক অনাচারকে বৈধতা দেয়। জনগণের ওপর জুলুমের রাজত্ব কায়েম করার কারণে ইয়াজিদ যুগে যুগে ঘৃণা ও ধিক্কারের পাত্র হয়ে আসছে। আর হযরত ইমাম হোসাইন (রা.) ইয়াজিদি জুলুমতন্ত্র থেকে জনগণের মুক্তির জন্যই কারবালা প্রান্তরে নিজের জীবন বিসর্জন দিয়ে ইতিহাসে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। বিদেশি আলোচক আল্লামা সৈয়দ আফিফ জিলানি বলেন, জমিয়তুল ফালাহর এই শাহাদাতে কারবালা মাহফিল চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশের জন্য বিরল সম্মান ও মর্যাদা বয়ে আনছে।

বিদেশি আলোচক আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ মাহমুদ আশরাফ আশরাফি বলেন, হযরত ইমাম হাসান (রা.) ও হযরত ইমাম হোসাইন (রা.)-এর পদাঙ্ক অনুসরণের মাধ্যমে আমরা নাজাত পেতে পারি। শুভেচ্ছা বক্তব্যে সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ইসলামে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ হারাম। যারা মানুষকে ভালোবাসে না, মানুষের ওপর বোমা মারে আমরা তাদের ঘৃণা করি। তারা ইসালাম, দেশ ও মানবতার শত্রু। এদের জঘন্য ফিতনা থেকে আল্লাহ পাক যেন আমাদের হেফাজত করেন, এই ফরিয়াদ জানাই।
সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ সৈয়দ মুহাম্মদ মহসিন বলেন, জমিয়তুল ফালাহর কারবালা মাহফিল আমাদের জযবা ও ঈমানি উজ্জীবনের পথে বড় প্রেরণা জোগায়। এই মাহফিল চট্টগ্রামকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। মাওলানা এম এ মতিন বলেন, বিভেদ অনৈক্য ভুলে সুন্নিদের একই প্লাটফ্রমে আসতে হবে। মাযহাবের ইমামগণের দৃষ্টিতে ইয়াজিদ সম্পর্কে শরিয়তের ফয়সালা বিষয়ে আলোচনা করেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসার মুহাদ্দিস আল্লামা হাফেজ আশরাফুজ্জামান আলকাদেরী। বক্তব্য রাখেন জামেয়ার আরবি প্রভাষক আল্লামা মীর মুহাম্মদ আলাউদ্দিন।

মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন ও ড. আল্লামা মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ সঞ্চালনায় মাহফিলে অতিথি ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার শায়খুল হাদিস শেরে মিল্লাত আল্লামা মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী ও জামেয়ার শায়খুল হাদিস আল্লামা হাফেজ সোলাইমান আনসারী, ওয়েস্টার্ন মেরিনের চেয়ারম্যান আলহাজ সাখাওয়াত হোসেন, বিজ্ঞানী ড. সমশের আলী, পিএইচপি ফ্যামিলির পরিচালক্ব মুহাম্মদ আলী হোসেন, মুনতাহা গ্রুপের চেয়ারম্যান লায়ন মনজুরুল আলম মনজু, আনজুমান ট্রাস্টের সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, গাউসিয়া কমিটির চেয়ারম্যান পেয়ার মুহাম্মদ, আশরাফিয়া তরিকার বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মাসুদুর রহমান আশরাফি, মাওলানা এম এ মতিন, সৈয়দ শফিউল আজম, সৈয়দ আরফাতুর রহমান, মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন, এস এ গ্রুপের এমডি. সাজ্জাদ আরেফীন আলম প্রমুখ। কুরআন মজিদ থেকে তেলাওয়াত করেন আন্তর্জাতিক কারী শাইখ আহমাদ বিন ইউসুফ আল আজহারী। হামদ ও নাতে রাসূল (দ) পরিবেশন করেন শায়ের জয়নাল আবেদিন ও মিনহাজুল আবেদিন। জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের নিচতলায় সমাপনি মাহফিলে মহিলাদের জন্য পর্দা সহকারে বক্তব্য শোনার ব্যবস্থা রয়েছে। মাহফিল সরাসরি সম্প্রচার হচ্ছেঃ ংঁভরঃাড়হষরহব, িি.িংযধযধফধঃ-ব-শধৎনধষধ.পড়স

The Post Viewed By: 108 People

সম্পর্কিত পোস্ট