চট্টগ্রাম রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৪১ এএম

চট্টগ্রাম জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক

মাদক ও ভেজাল খাবার রোধে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেছেন, জেলার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অন্যান্য মাসের চেয়ে অনেক ভালো রয়েছে। কিন্তু মাদক একটি সামাজিক ব্যাধি। মাদক ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন কৌশল অবলম্বনের মাধ্যমে সড়ক ও নৌ-পথে মাদক পাচার করার কারণে আমাদের যুব সমাজ মাদকাসক্ত হচ্ছে। নগরীর বরিশাল কলোনীসহ মাদকের আস্তানাগুলো গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আসামিদের দেখা সাক্ষাতে কেন্দ্রীয় কারাগারে কোন কায়দায় যাতে মাদক না ঢুকে সে ব্যাপারে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। আদালতের হাজতখানায়ও একই পন্থা অবলম্বন করতে হবে। প্রয়োজনে আরো সিসি ক্যামেরা সংযোজন করতে হবে। পাশাপাশি ভেজাল খাবার রোধসহ বিভিন্ন অপরাধ নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) নুরেআলম মিনা বলেন, জেলার সকল উপজেলায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। আদালতের হাজতখানায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক আইপি ক্যামেরা বসানো হয়েছে যাতে আসামিদের সাথে আত্মীয়-স্বজনের দেখা সাক্ষাতে ইয়াবা ও অন্যান্য মাদকদ্রব্য দিতে না পারে। সন্ত্রাসী-জঙ্গি গ্রেপ্তার, মাদক, চুরি, ডাকাতি, ও ছিনতাইরোধে পুলিশের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে গত আগস্ট মাসের খাতওয়ারী অপরাধ চিত্র, সভার সিদ্ধান্ত ও অগ্রগতি তুলে ধরেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ইউনিট কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ইউনিট কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন, কোস্টগার্ড প্রতিনিধি লেফটেন্যান্ট মো. নাঈমুল হক, জেলা পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এডভোকেট একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল (রাউজান), তৌহিদুল হক চৌধুরী (আনোয়ারা), হোসাইন মো. আবু তৈয়ব (ফটিকছড়ি), মো. জসিম উদ্দিন (মীরসরাই), মো. খলিলুর রহমান (রাঙ্গুনিয়া), চৌধুরী মো. গালিব (বাঁশখালী), ফারুক আহমদ (কর্ণফুলী), উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোমেনা আক্তার (বাঁশখালী), আছিয়া খাতুন (বোয়ালখালী), শেখ জোবায়ের আহমদ (আনোয়ারা), মোহাম্মদ মোবারক হোসেন (সাতকানিয়া), মিল্টন রায় (সীতাকু-), মো. রুহুল আমিন (মীরসরাই), মো. জোনায়েদ কবীর সোহাগ (রাউজান), মো. সায়েদুল আরেফিন (ফটিকছড়ি), সৈয়দ শামসুল তাবরীজ (কর্ণফুলী), মো. নুরুল হুদা (সন্ধীপ), হাবিবুল হাসান (পটিয়া) প্রমুখ।-বিজ্ঞপ্তি

The Post Viewed By: 35 People

সম্পর্কিত পোস্ট