চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৫৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা , হাটহাজারী

পুলিশের বিরুদ্ধে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার অভিযোগ

এনাম গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে হাটহাজারীতে মানববন্ধন

হাটহাজারীতে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে চক্রান্ত করে মুহাম্মদ এনাম (৩০) নামে এক ব্যক্তিকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠানোর অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে এলাকাবাসী গতকাল রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের চারিয়া নয়াহাট বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম ঘটনার সঠিক তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। এর আগে এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে এনামের পরিবারের পক্ষ থেকে এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষর সম্বলিত একটি লিখিত অভিযোগ জেলা পুলিশ সুপারের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে। মুহাম্মদ এনাম মির্জাপুর ইউনিয়নের চারিয়া শিকদার পাড়ার মৃত গোলাপুর রহমানের পুত্র ও পেশায় একজন সিএনজি ট্যাক্সি চালক।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, এনাম কোন ইয়াবা ব্যবসায়ী নয় তাঁকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসিয়ে দেয়া হয়েছে। যে ব্যাক্তি কোনদিন একটা পান সিগারেট খায়নি তাকে ইয়াবা দিয়ে কারাগারে প্রেরণ খুবই দুঃখজনক। বক্তারা বলেন, জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ তাকে ফাঁসিয়েছে। কারণ গত দুই বছরে অন্তত ৮টি হয়রানিমূলক মামলা দিয়েও যখন এনাম ও তার পরিবারকে দমাতে পারেনি তখন পুলিশের যোগসাজশে এভাবে মিথ্যাম মামলা দিয়ে ফাঁসানো হল এনামকে। গত ২৭আগস্ট হাটহাজারী পৌরসভার মুন্সী মসজিদ এলাকায় অটোরিক্সায় গ্রিজ প্রলেপ লাগাতে গেলে পুলিশ প্রতিপক্ষের ইশারায় ইয়াবা দিয়ে তাকে আটক করে। কিন্তু আটকের সময় যাত্রীর আসনে ৪-৫ পিচ ইয়াবা পাওয়ার কথা জানিয়ে এনামকে থানায় নিয়ে গেলেও পরে পরিহিত লুঙ্গী থেকে ৫২পিচ ইয়াবা উদ্ধার মর্মে এসআই আনিছ বাদি হয়ে মামলা রুজু করে ২৯ আগস্ট আদালতে প্রেরণ করে। এতেই প্রমাণ হয় এটা প্রতিপক্ষ এবং পুলিশের সাজানো নাটক। বক্তারা সঠিক তদন্ত করে দ্রুত এনামকে মুক্তির জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মানববন্ধন চলাকালে হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপারের কাছে এনামের পরিবার দেওয়া অভিযোগ সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করা হবে। নিরপরাধ কেউ যেন হয়রানির শিকার না হন তা নিশ্চিত করা হবে’। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার বাদি এসআই আনিস বলেন, ‘এনামের পরিহিত লুঙ্গীতে ৫২টি ইয়াবা বড়ি পাওয়া গেছে। তিনি মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তাকে রক্ষা করতে পুলিশের বিরুদ্ধে মনগড়া কথা বলা হচ্ছে’।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 304 People

সম্পর্কিত পোস্ট