চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সর্বশেষ:

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:৫২ পূর্বাহ্ণ

মো. জহুরুল আলম, খাগড়াছড়ি

আবাসন প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়ে

খাগড়াছড়িতে ঠিকানা পাচ্ছে ৩৪ পরিবার

খাগড়াছড়িতে ঠিকানাহীন ৩৪ পরিবার পৌরসভার আবাসন প্রকল্পের মাধ্যমে ঠিকানা খুঁজে পাবে। এ আবাসন প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়ে। এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়।

খাগড়াছড়ি পৌরসভার উদ্যোগে ভূমিহীন, বিধবা ও অসহায় ৩৪ পরিবারের স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে চলেছে তৃতীয় নগর পরিচালনা ও অবকাঠামোগত উন্নীতকরণ প্রকল্পের কাজ। ৩ কোটি ৫৬ লক্ষ ৬৮ হাজার ৫৮১ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়ে।

খাগড়াছড়ি পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের কুমিল্লা টিলায় ১ একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত আবাসন প্রকল্পে পৌর এলাকার ভূমিহীন, বিধবা, যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী ও স্বামী পরিত্যক্তরা এ আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় সুবিধা পাবে। এ আশ্রয় প্রকল্পে রয়েছে, প্রতি পরিবারের জন্য ২টি বেডরুম, ১টি ড্রয়িং রুম কাম ডাইনিং (লিভিং স্পেস), ১টি বাথরুম কাম টয়লেট, ১টি বারান্দা এবং বাড়ি সংলগ্ন ভেজিটেবল গার্ডেন। রয়েছে প্রতি পরিবারের জন্য আলাদা আলাদা পানি সরবরাহ ব্যবস্থা, ৫শ লিটার ক্ষমতাসম্পন্ন ওয়াটার ট্যাংক, প্রতি পরিবারের জন্য আলাদা আলাদাভাবে থাকছে মানসম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থাও। এছাড়াও ৩৪ পরিবারের জন্য রয়েছে পরিকল্পিত ওয়াটার বডি, ১টি কমিউনিটি হল ও বনায়ন ব্যবস্থা। এতে আবাসন প্রকল্পে পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থা, অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা, আলোকিতকরণের লক্ষ্যে ৩টি সোলার লাইট সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছে। স্থানীয় কুমিল্লা টিলার বাসিন্দা কালামিয়া ও খোদেজা বেগম বলেন, খাগড়াছড়িতে এ ধরনের উদ্যোগ এ প্রথম। আগের কোন মেয়র সাধারণ অসহায় মানুষের জন্য এভাবে কাজ করেনি। আবাসন প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে ৩৪টি অসহায় পরিবার তাদের জীবন চলার স্বপ্নপূরণে নতুন করে ঠিকানা খুঁজে পাবে।

আবাসন (আশ্রয়) প্রকল্পের উন্নয়ন কাজের বিষয়ে খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র মো. রফিকুল আলম বলেন, খাগড়াছড়ি পৌরসভাকে একটি আধুনিক পর্যটনমুখী পরিকল্পিত পৌরসভায় রূপ দিতে কাজ করে যাচ্ছি। তারই ধারাবাহিকতায় ভূমিহীন, বিধবা, যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী ও স্বামী পরিত্যক্তারা এ আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় সুবিধা পাবে। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে চলছে সড়ক উন্নয়ন, রাস্তা প্রশস্তকরণ, লাইটিং ব্যবস্থা, পানি সরবরাহ, বস্তি উন্নয়ন, পর্যটকদের থাকার সুবিধার্থে পৌর রেস্ট হাউজসহ নানামুখী উন্নয়নকাজ। অন্যদিকে পৌর আধুনিক বাস টার্মিনালের জন্যও কাজ হাতে নেয়া হয়েছে বলে জানান খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র মো. রফিকুল আলম। একইভাবে চলমান কাজের সমাপ্তি হলে খাগড়াছড়ির পৌরসভার দৃশ্যমান পরিবর্তন হবে বলেও তিনি জানান।

খাগড়াছড়ি পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী দিলীপ কুমার বিশ্বাস জানান, ৩ কোটি ৫৬ লক্ষ ৬৮ হাজার ৫৮১ টাকা ব্যয়ে নির্মিত তৃতীয় নগর পরিচালনা ও অবকাঠামোগত উন্নতিকরণ প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়ে। এখন শুধু দিনক্ষণ ঠিক করে দেশের যেকোন উচ্চ পর্যায়ের নীতিনির্ধারণী কাউকে দিয়ে উদ্বোধনের অপেক্ষায়।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 291 People

সম্পর্কিত পোস্ট