চট্টগ্রাম রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৪ আগস্ট, ২০১৯ | ৩:২৬ এএম

ইমরান বিন ছবুর

চুরি হচ্ছে লাইট, জ¦লছে না বাতি

ফ্লাইওভার তুমি কার

মাদকাসক্ত পথশিশুরা করছে ছিনতাই

আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার
হ রেলিং ও পানির পাইপও চুরি হচ্ছে
হ অন্ধকারে সৌন্দর্য নষ্ট,

নগরীর আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের ডিভাইডার থেকে লাইট চুরি করছে মাদকাসক্ত পথশিশুরা। এ পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক লাইট চুরি হয়ে গেছে। অপরদিকে সড়ক আলোকায়নে ফ্লাইওভারের গার্ডারে স্থাপনকৃত লাইটগুলোও জ¦লছে না। আলোর অভাবে ঘটছে নানা অপকর্ম। চোরের দল শুধু লাইট নয়, ফ্লাইওভারের রেলিং ও পানির পাইপও চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। লাইট না থাকায় ডিভাইডারের যে অংশে অন্ধকার থাকে সেখানে একদিকে যেমন সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে অন্যদিকে মাদকাসক্ত পথশিশুরা বিভিন্ন অপকর্ম করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল (শুক্রবার) রাতে সরেজমিনে দেখা যায়, মুরাদপুর থেকে সিএন্ডবি কলোনি পর্যন্ত এবং নার্সারি থেকে ওয়াসা পর্যন্ত ফ্লাইওভারের ডিভাইডারের কোন লাইট (রঙিন) জ¦লছে না। তবে সিএন্ডবি কলোনি থেকে জিইসি’র নার্সারি পর্যন্ত লাইট জ¦লতে দেখা যায়। অন্যদিকে ফ্লাইওভারের প্রতি দুই পিলারের (মধ্যে) নিচে ছয়টি করে সড়ক বাতি বা লাইট রয়েছে। কিন্তু মুরাদপুর, দুই নম্বর গেট ঘুরে দেখা যায়, দুই-তিনটি পিলার পর একটি করে লাইট জ¦লছে। আবার কোথাও কোথাও চার-পাঁচটি পিলার পর মাত্র একটি বা দুটি লাইট জ¦লছে। এতে পুরো সড়ক অন্ধকারে রয়েছে। ফলে এসব এলাকায় ছিনতাইসহ ঘটছে অপরাধ।

ফ্লাইওভারের নিচে মাদকাসক্ত পথ শিশুদের হাতেনাতে ধরে কয়েকজনকে পুলিশেও সোপর্দ করেছে সিডিএ। এ ঘটনায় কোতোয়ালী থানায় মামলাও করেছে। তবে ছাড়া পেয়ে তারা আবার চুরি করে বলে অভিযোগ সিডিএ’র কর্মকর্তাদের।
লাইট না জ¦লার কারণ জানতে চাইলে ফ্লাইওভারের প্রকল্প পরিচালক মাহাফুজুর রহমান বলেন, সড়কের সৌন্দর্য বাড়াতেই ফ্লাইওভারের নিচে ডিভাইডারের মধ্যে বাগান করা হয়েছে। বাগানে বিভিন্ন রঙের প্রায় এক হাজার বাতি লাগানো হয়েছে। ইদানিং কিছু মাদকাসক্ত পথশিশু এসব লাইট চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। আমাদের পক্ষে তো এসব লাইট পাহাড়া দেয়া সম্ভব না। তবে প্রশাসন চাইলে এসব চোরদের ধরে শাস্তি দিতে পারে। আমরা এ ঘটনায় কোতোয়ালী থানায় একটি মামলাও দায়ের করে ছিলাম।

আর কি কারণে ফ্লাইওভারের নিচের লাইটগুলো জ¦লছে না, তা আমরা দেখছি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চারজন পথশিশুকে সানমারের বিপরীতে ফ্লাইওভারের নিচে ডিভাইডারে বসে নেশা করতে দেখা যায়। তাদের মধ্যে দু’জন ছেলে ও দু’জন মেয়ে। তাদের সবার বয়স ১২ থেকে ১৫ বছর। দিনে ও রাতের বেলায় প্রকাশ্যে এসব ছেলে-মেয়ে নেশা করলেও প্রশাসন তাদের কিছুই করে না অভিযোগ সানমারে আসা বিভিন্ন ক্রেতাদের।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে পাঁচলাইশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কাশেম ভুইয়া বলেন, পথশিশুরা ফ্লাইওভারের নিচে ডিভাইডারে বসে নেশা করে এ ব্যাপারে আমাদের আগে কেউ অভিযোগ করেনি। তাই ব্যাপারটি আমাদের জানা ছিল না। আমি এক্ষুণি ফোর্স পাঠাচ্ছি। লাইট চুরির ব্যাপারে সিডিএও আমাদের কখনো জানায়নি। তাহলে আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতাম

সানমারে শপিং করতে আসা জান্নাতুল কাউসার নামের এক বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষার্থী জানান, শপিং করতে এসে প্রায় দেখি কিছু পথশিশু বাগানে (ডিভাইডারে) বসে এক ধরণের নেশা করে। শপিং করতে আসা লোকজনের কাছ থেকে তারা বিভিন্ন সময় ছিনতাইও করে। তবে রাতের বেলা এদের সংখ্যা বাড়তে থাকে এবং সুযোগ বুঝে ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে এসব ছেলে-মেয়েদের তৎপরতা বাড়লেও তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় না বলে অভিযোগ এই শিক্ষার্থীর।

জানতে চাইলে সিএমপি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) আমেনা বেগম জানান, ফ্লাইওভারের নিচের লাইট চুরি বা নেশা করার ব্যাপারে আমাদের কেউ অভিযোগ করেনি। এমনকি লাইট চুরির ঘটনা সিডিএ আমাদের জানায়নি। আর আমরা এ ব্যাপারটি জানতাম না। এখন থেকে এসব এলাকায় নিয়মিত পুলিশ টহল থাকবে। এ ঘটনায় জড়িত কাউকে পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, নগরীর যানজট কমাতে ২০১৭ সালের জুনে আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হয়। প্রায় ৫.২ কিলোমিটার দীর্ঘ ফ্লাইওভারটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৪৬২ কোটি টাকা। ২০১৪ সালের ১১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্লাইওভারটির নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেছিলেন।

The Post Viewed By: 1246 People

সম্পর্কিত পোস্ট