চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২১ আগস্ট, ২০১৯ | ১০:৫২ পিএম

বাঁশখালী সংবাদদাতা

অবৈধভাবে বালি উত্তোলন

১৫ বালু ব্যবসায়ীকে সাড়ে ৭ লাখ টাকা জরিমানা

বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ছড়া থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ১৫ জন বালু ব্যবসায়ীকে বুধবার (২১ আগস্ট) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাড়ে সাত লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে। ছড়ার উপর মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে সাতটি বালু উত্তোলনের মেশিন জব্দ করা হয়েছে। অপরদিকে, চাম্বল ছড়া থেকে বালু উত্তোলন করে পরিবহনকালে চারটি ট্রাকের চালককে বালুসহ জব্দ করে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, পুঁইছড়ির ছড়াটি সরকারিভাবে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে নিলামে তোলা হয়। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দিষ্ট স্থানে বালু উত্তোলনের জন্য সীমানা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। কিন্তু এলাকার লোকজন সরকারি নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ছড়ার উপর মেশিন বসিয়ে ২২ জনের সিন্ডিকেট গঠন করে দিন-রাত বালু উত্তোলন করতে থাকে। স্থানীয় লোকজন উপজেলা প্রশাসনকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের জন্য লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামেন।

মঙ্গল ও বুধবার অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে ১০ লক্ষ টাকা মূল্যের সাতটি বালু উত্তোলনের মেশিন জব্দ করেন ইউএনও। ছড়ার উপর থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারী চিহ্নিত করে জনপ্রতি ৫০ হাজার টাকা করে ১৫ জনের কাছ থেকে সাড়ে সাত লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

ছড়া থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা প্রদানকারীরা হলেন- পুঁইছড়ি ইউনিয়নের পূর্ব পুঁইছড়ির মিয়া মার্কেট এলাকার ইউপি সদস্য এম. খাইন আলম চৌধুরী, ইউপি সদস্য তোফাজ্জেল হোসেন পুতু, ইউপি সদস্য ফজলুল কবির, বদরুল আলম, আশিকুল ইসলাম, ইকবালুর রহমান চৌধুরী, সীতাস বড়–য়া, জমির উদ্দিন, মো. নুরুননবী, মো. নুরুচ্ছফা, রফিক আহমদ, ফরহাদুল আলম, আবদু ছবুর, দেলোয়ার হোসেন, আরাফাত চৌধুরী। এছাড়াও চাম্বল এলাকায় ছড়া হতে বালু উত্তোলন করে ট্রাকযোগে পাচারকালে চারটি ট্রাক জব্দ করে চালক জীতেন্দ্র লাল বড়–য়া, হামিদ উল্লাহ, মো. ইউনুস ও আবদুর রশিদকে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। পুকুরিয়ার কুমারী ছড়া থেকে বালু উত্তোলন করে সড়কপথে যাওয়ার পথে ভ্রাম্যমান আদালতকে দেখে চালক ট্রাক ছেড়ে পালিয়ে যায়। এ সময় কাগজপত্র বিহীন  বালু বহনকারী ট্রাকের চাকাগুলো ফুঁটো করে দেয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার বলেন, পুঁইছড়ি, চাম্বল ও পুকুরিয়ায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বালু উত্তোলনের ৭টি মেশিন জব্দ করা হয়েছে। ১৫ জন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়েছে। সড়কপথে বালু বহনকালে চারটি ট্রাক জব্দ করে ট্রাকের চালকদের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়েছে। সরকারি নিয়মের বাইরে গেলে বালু ব্যবসায়ীদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। পুকুরিয়া কুমারী ছাড়া থেকে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে পরিবেশ আইনে মামলা দায়ের হবে।

 

 

 

পূর্বকোণ/অনুপম-রাশেদ

The Post Viewed By: 300 People

সম্পর্কিত পোস্ট